গভীর রাতে হাজারো মানুষের ভালোবাসায় সিক্ত বিশ্বজয়ী হাফেজ তাকরিম

শুক্রবার, সেপ্টেম্বর ২৩, ২০২২

ঢাকা: গভীর রাতে আন্তর্জাতিক হিফয প্রতিযোগিতায় তৃতীয় হওয়া বাংলাদেশি কুরআনের হাফেজ তাকরিমকে সংবর্ধনা দেওয়া হয়েছে। বৃহস্পতিবার (২২ সেপ্টেম্বর) দিবাগত রাত পৌনে ২টার দিকে রাজধানীর শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে পৌঁছালে তাকে অভ্যর্থনা জানাতে বিমানবন্দরে জড়ো হন অসংখ্য কুরআনপ্রেমী জনতা। হাজারো মানুষের ভালোবাসায় সিক্ত হন হাফেজ তাকরিম।

এসময় বিমান বন্দরের ভিআইপি লাউঞ্জে বাংলাদেশ সরকারের ধর্ম মন্ত্রণালয় ও ইসলামিক ফাউন্ডেশনের প্রতিনিধি দল তাকে শুভেচ্ছা জানায়।

এর আগে সৌদি আরবের পবিত্র মক্কায় ৪২তম বাদশাহ আব্দুল আজিজ আন্তর্জাতিক হিফজুল কোরআন প্রতিযোগিতায় তৃতীয় স্থান অর্জন করে বাংলাদেশি হাফেজ সালেহ আহমাদ তাকরিম। প্রতিযোগিতায় ১১১টি দেশের ১৫৩ জন হাফেজ কোরআন তেলাওয়াতে অংশ নেন।

হাফেজ সালেহ আহমদ তাকরিম মারকাযু ফয়জিল কোরআন আল ইসলামী ঢাকা এর শিক্ষার্থী। প্রতিযোগিতায় তৃতীয় হওয়ায় তাকরিম পাবেন এক লাখ রিয়াল (বাংলাদেশি টাকায় প্রায় সাড়ে ২৭ লাখ টাকা)।

প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ করতে গত ৯ সেপ্টেম্বর দুপুর ১২টা ৩৫ মিনিটে সৌদি এয়ারলাইন্সের ফ্লাইটে জেদ্দার উদ্দেশে ঢাকা ত্যাগ করেন সালেহ আহমাদ তাকরিম (১৫ পারা খ-গ্রুপ) ও ফয়জুল কোরআনের প্রধান শিক্ষক হাফেজ ক্বারী মাওলানা আব্দুল্লাহ আল মামুন।

এর আগে লিবিয়ায় আন্তর্জাতিক হিফজুল কোরআন প্রতিযোগিতায় হাফেজ সালেহ আহমাদ তাকরিম ৭ম স্থান অর্জন করেন। এ বৈশ্বিক প্রতিযোগিতায় ৭ম স্থান অর্জন করার পাশাপাশি সর্বকনিষ্ঠ প্রতিযোগী হিসেবে বিশেষ সম্মাননা অর্জন করেন তাকরিম।

গত ২২ মে আন্তর্জাতিক ক্বিরাত সংস্থা বাংলাদেশের তত্ত্বাবধানে অনুষ্ঠিত নির্বাচনী পরীক্ষায় প্রথম স্থান অর্জন করে লিবিয়ার বন্দরনগরী বেনগাজিতে অনুষ্ঠিত ১০ম আন্তর্জাতিক হিফজুল কোরআন প্রতিযোগিতায় বাংলাদেশের একমাত্র প্রতিনিধি নির্বাচিত হন।

এর আগে তেহরানের আন্দিশাহ (আল-ফিকির) মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত ৩৮তম আন্তর্জাতিক হিফজুল কোরআন প্রতিযোগিতায় তাকরিম বিশ্বে ১ম স্থান অর্জন করে বাংলাদেশের লাল সবুজের পতাকা বিশ্ব দরবারে সমুন্নত করেন।

২০২০ সালের পবিত্র রমজান মাসে বাংলাভিশন টেলিভিশন আয়োজিত হিফজুল কোরআন প্রতিযোগিতায় বিজয়ী হয় সালেহ। তার গ্রামের বাড়ি টাঙ্গাইলে। সালেহর বাবা হাফেজ আবদুর রহমান একটি মাদরাসার শিক্ষক।

তাকরিম ছাড়াও মারকাযু ফয়জিল নামের একই প্রতিষ্ঠানের একাধিক ছাত্র কুয়েত, মিসর ও আলজেরিয়া আন্তর্জাতিক হিফজুল কোরআন প্রতিযোগিতার জন্য বাংলাদেশের প্রতিনিধি নির্বাচিত হয়েও করোনা প্রাদুর্ভাবের কারণে অংশগ্রহণ করতে পারেনি।

তাকরিমের এ অনন্য কৃতিত্বে মারকাযু ফয়জিল কোরআন আল ইসলামী ঢাকার প্রতিষ্ঠাতা প্রিন্সিপাল, গুলশান সোসাইটি জামে মসজিদের খতিব মুফতি মুরতাজা হাসান ফয়েজী মাসুম দেশবাসীর কাছে দোয়া চেয়েছেন।

তিনি বলেন, আল্লাহ যেন তাকরিমসহ ইলমে দীনের সব শিক্ষার্থীকে আন্তর্জাতিক মানের আলেম ও দীনের খাদেম হওয়ার তাওফিক দান করেন।