বেঙ্গালুর বধে প্লে অফ আশা জিইয়ে রাখল পাঞ্জাব

শনিবার, মে ১৪, ২০২২

স্পোর্টস ডেস্ক: প্লে অফে টিকে থাকতে গতকালকের ম্যাচে জয়ের বিকল্প ছিল না পাঞ্জাব কিংসের। বাঁচা-মরার এই লড়াইয়ে নিজেদের সেরাটাই যেন দিয়েছে মায়াঙ্ক আগারওয়ালের দল। টসে হেরে ব্যাট করতে নেমে রয়েল চ্যালেঞ্জার্স বেঙ্গালুরুকে ২১০ রানের বিশাল লক্ষ্য দেয় পাঞ্জাব। জবাবে ১৫৫ রানেই গুটিয়ে যায় ভিরাট কোহলির দল।

প্রথমে ব্যাট করতে নেমে উড়ন্ত সূচনা এনে দেন পাঞ্জাবের দুই ওপেনার। ইনিংসের পঞ্চম ওভারেই দলীয় অর্ধশতক পূরণ করেন জনি বেয়ারস্টো ও শিখর ধাওয়ান। ১৫ বলে ২১ রান করে ধাওয়ান বিদায় নিলেও এক প্রান্তে দুর্দান্ত ব্যাটিং করতে থাকেন ইংলিশ মারকুটে ব্যাটার বেয়ারস্টো।

দশম ওভারে দলের শতরান পূরণ হলেও সাজঘরে ফিরে যান ইংলিশ হার্ড হিটার ব্যাটার। ২৯ বলে ৬৬ রানের ইনিংসটি সাজানো ছিল ৪টি চার ও ৭টি ছয়ের মারে। পাঞ্জাবকে চতুর্থ উইকেট জুটিতে বড় লক্ষ্যের দিকে এগিয়ে নিয়ে যান ইংলিশ ব্যাটার লিয়াম লিভিংস্টোন ও অধিনায়ক আগারওয়াল।

চতুর্থ উইকেট জুটিতে ৫২ রানের পার্টানারশিপ গড়ে পাঞ্জাব অধিনায়ক সাজঘরে ফিরে গেলেও নিজের স্বভাবসুলভ ব্যাটিং করে যান লিভিংস্টোন।

এই ইংলিশ ব্যাটারের ৭০ রানের বিধ্বংসী ইনিংসে ভর করে নির্ধারিত ২০ ওভারে ২০৯ রান সংগ্রহ করে পাঞ্জাব কিংস। বেঙ্গালুরুর হয়ে বল হাতে ৪টি উইকেট নেন হার্শাল প্যাটেল।

বিশাল লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে এদিনও বড় রান করতে ব্যর্থ হন কোহলি। ১৪ বলে ২০ রান করে কাগিসো রাবাদার শিকার হয়ে ফিরে যান প্যাভিলিয়নে।

এর পরের ওভারেই অধিনায়ক ফাফ ডু প্লেসিকে কট বিহাইন্ডের ফাঁদে ফেলেন ঋষি ধাওয়ান। মাহিপাল লমর ছক্কা হাঁকিয়ে আশা জাগালেও একই ওভারে শিখর ধাওয়ানকে ক্যাচ দিয়ে ঋষিকে উপহার দেন আরও একটি উইকেট।

এরপর রজত পাতিদারের সঙ্গে ৬৪ রানের জুটি গড়ে কিছুটা প্রতিরোধ গড়েন অজি হার্ডহিটার গ্লেন ম্যাক্সওয়েল। ২৬ রান করা রজতকে ফেরান রাহুল চাহার। এরপর যাওয়া আসার মিছিলে লিপ্ত হয়ে পড়েন শেষ দিকের ব্যাটাররা।

স্রোতের বিপরীতে দাঁড়িয়ে আউট হওয়ার আগে ২২ বলে ৩৫ রানের ইনিংস খেলেন ম্যাক্সওয়েল। শেষ পর্যন্ত নির্ধারিত ২০ ওভার শেষে ৯ উইকেট হারিয়ে ১৫৫তে থামে বেঙ্গালুরু।