হজে যেতে হলে ১৮ মের মধ্যেই নিবন্ধন

শুক্রবার, মে ১৩, ২০২২

ঢাকা: আগামী ১৬ থেকে ১৮ মের মধ্যে নিবন্ধন করতে না পারলে এই বছর হজে যেতে পারবেন না আগ্রহীরা। শুক্রবার (১৩ মে) ধর্ম মন্ত্রণালয়ের হজ শাখা-১ থেকে পাঠানো এক জরুরি বার্তায় এ কথা জানানো হয়েছে।

মন্ত্রণালয়ে পাঠানো বার্তায় বলা হয়েছে, সরকার ঘোষিত ২০২২ সালের দুটি হজ প্যাকেজের আওতায় এবারের হজে যেতে হলে ২০২০ সালের তিনটি প্যাকেজের নিবন্ধিত সকল হজযাত্রীকে আগামী ১৬ মে থেকে ১৮ মের মধ্যে

যেকোনো নিবন্ধন কেন্দ্র থেকে ২০২২ সালের ঘোষিত যেকোনো একটি প্যাকেজ থেকে নিবন্ধন গ্রহণ করতে হবে। একই সঙ্গে ২০২০ সালের প্যাকেজের পরিশোধিত অর্থের সঙ্গে সমন্বয় করে ২০২২ সালের যেকোনো একটি প্যাকেজের বাকি অর্থ ভাউচারের মাধ্যমে সোনালী ব্যাংকে জমা দিতে হবে।

মন্ত্রণালয়ের ওই বার্তায় আরও বলা হয়েছে, নতুন প্যাকেজ অনুসারে নিবন্ধনের দুই দিনের মধ্যে সরকারি ব্যবস্থাপনায় হজ যাত্রীদের পাসপোর্ট নিজ দায়িত্বে ঢাকায় আশকোনা হজ অফিসে জমা দিতে হবে।

এই সময়ের মধ্যে প্যাকেজ নির্ধারণ করে নিবন্ধন না করলে এ বছর তিনি হজে যেতে ইচ্ছুক নন বলে গণ্য করা হবে এবং পূর্বের নিবন্ধন বাতিল বলে গণ্য হবে।

এতে আরও বলা হয়েছে, ৬৫ বছর ঊর্ধ্বের হজযাত্রীদের ক্ষেত্রে তার পরিবারের সদস্যরা শূন্য কোটায় হজে যাওয়ার অগ্রাধিকার পাবেন। পরিবারের সদস্যদের পর অবশিষ্ট শূন্য কোটায় সরকারি ব্যবস্থাপনায় প্রাক-নিবন্ধনের ক্রমানুসারে প্রথমদিকের ব্যক্তিরা নিবন্ধনের সুযোগ পাবেন। এক্ষেত্রে তাদের মোবাইলে এসএমএস দেওয়া শুরু হয়েছে।

ধর্ম মন্ত্রণালয় আরও জানিয়েছে, সরকারি ব্যবস্থাপনায় ইতোপূর্বে প্রাক-নিবন্ধন ব্যক্তিদের আগামী ১৮ মের মধ্যে অর্থ পরিশোধের জন্য ইউনিয়ন ডিজিটাল সেন্টার, ইসলামিক ফাউন্ডেশন, ডিসি অফিস বা ঢাকা হজ অফিসে

একক বা ইউনিট ভিত্তিক হিসেবে পূর্বের বছরের ন্যায় নিবন্ধন ভাউচার তৈরি করে নিবন্ধন সম্পন্ন করতে হবে। এই সময়ের মধ্যে পছন্দের প্যাকেজ নির্ধারণ করে নিবন্ধন না করলে এ বছর তিনি হজে যেতে ইচ্ছুক নন বলে গণ্য করা হবে।