বিনাপ্রতিদ্বন্দীতায় চেয়ারম্যান হচ্ছেন তারা

বৃহস্পতিবার, অক্টোবর ২১, ২০২১

মিরসরাই: চট্টগ্রামের মিরসরাইয়ে ১৬ ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে বিনাপ্রতিদ্বন্দীতায় বিজয়ী হচ্ছেন ৯ চেয়ারম্যান প্রার্থী। বৃহস্পতিবার (২১ অক্টোবর) প্রার্থীদের মনোনয়ন যাচাই-বাছাই শেষে এসব একক প্রার্থীদের মনোনয়ন বৈধ ঘোষণা করে উপজেলা নির্বাচন কর্তৃপক্ষ।

উপজেলা নির্বাচন অফিস সূত্র জানায়, চেয়ারম্যান পদে একক প্রার্থী হিসেবে মনোনয়ন জমা দেয়া করেরহাট ইউনিয়নে এনায়েত হোসেন নয়ন, ধুম ইউনিয়নে একেএম জাহাঙ্গির ভূঁইয়া, ওচমানপুর ইউনিয়নে মফিজুল হক, ইছাখালী ইউনিয়নে নুরুল মোস্তফা, কাটাছড়া ইউনিয়নে রেজাউল করিম চৌধুরী হুমায়ুন, মঘাদিয়া ইউনিয়নে জাহাঙ্গির হোসেন মাস্টার, মায়ানী ইউনিয়নে মাস্টার কবির নিজামী, হাইতকান্দি ইউনিয়নে জাহাঙ্গির কবির চৌধুরী ও সাহেরখালী ইউনিয়নে কামরুল হায়দার চৌধুরীর মনোনয়ন বৈধ ঘোষণা করা হয়েছে।

এর মধ্যে জোরারগঞ্জ ইউনিয়নে চেয়ারম্যান পদে একাধিক প্রার্থী মনোনয়ন জমা দিলেও যাচাই-বাছাইয়ে নিজাম উদ্দিনের সমর্থনকারীর স্বাক্ষর নকলের আভিযোগে তার মনোনয়ন প্রাথমিকভাবে বাতিল হয়। তবে এ বিষয়ে ওই প্রার্থীর আপিলের সুযোগ রয়েছে। অপিলে ফলাফল পরিবর্তন না হলে জোরারগঞ্জ ইউনিয়নেও বিনাপ্রতিদ্বন্দীতায় রেজাউল করিম মাস্টার বিজয়ী হওয়ার সম্ভবনা রয়েছে।

মিরসরাই উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা ফারুক হোসেন জানান, বর্তমানে ৯টি ইউনিয়নে একাধিক প্রার্থী না থাকায় একক প্রার্থী হিসেবে মনোনয়ন বৈধতা পাওয়া প্রার্থীরাই বিনাপ্রতিদ্বন্দীতায় বিজয়ী হবেন। জোরারগঞ্জ ইউনিয়নে নিজাম উদ্দিনের আপিলের সুযোগ থাকায় ওই ইউনিয়নে একক প্রার্থীর বিষয়টি এখনো নিশ্চিত নয়। ইউনিয়নে ফলে ইউনিয়নগুলোতে চেয়ারম্যান পদে ভোটগ্রহন না হলেও ইউপি সদস্য ও সংরক্ষিত ইউপি সদস্যপদে ভোটগ্রহণ হবে।

ইউপি সদস্য বা সংরক্ষিত সদস্য পদে কারো মনোনয়ন বাতিল হয়েছে কিনা জানতে চাইলে ব্যস্ততার কারণে এখনো এ বিষয়ে সঠিকভাবে তথ্য জানানো সম্ভব হচ্ছে না বলে জানান নির্বাচন কর্মকর্তা ফারুক হোসেন।

বাকি ৬ ইউনিয়নের মনোনয়ন বৈধতা পাওয়া কোনো প্রার্থী প্রার্থীতা প্রত্যাহার করলে উপজেলায় বিনাপ্রতিদ্বন্দীতায় বিজয়ী চেয়ারম্যান প্রার্থীর সংখ্যা আরও বাড়তে পারে।

উল্লেখ্য, ঘোষিত তফসিল অনুযায়ী দ্বিতীয় ধাপে স্থানীয় সরকার নির্বাচনে বাছাইয়ে সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে আপিল ২১ থেকে ২৩ অক্টোবর, আপিল নিষ্পত্তি ২৪ ও ২৫ অক্টোবর। ২৬ অক্টোবর প্রার্থীতা প্রত্যাহার ও ২৭ অক্টোবর প্রতীক বরাদ্ধ শেষে আগামি ১১ নভেম্বর ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা রয়েছে।