রামুতে ফতেখাঁরকুল-মরিচ্যা জাতীয় মহাসড়ক নির্মাণ কাজ উদ্বোধন

রবিবার, আগস্ট ৩০, ২০২০

নীতিশ বড়ুয়া, রামু (কক্সবাজার) : রামুতে নিরাপদ সড়ক যোগাযোগ নিশ্চিত করতে ‘ফতেখাঁরকুল-মরিচ্যা জাতীয় মহাসড়ক’ প্রশস্তকরণ কাজ উদ্বোধন করা হয়েছে। এ উপলক্ষে রোববার (৩০ আগস্ট) বিকাল ৫টায় রামু চৌমুহনী চত্ত্বরে মহাসড়কটির উন্নয়ন কাজ উদ্বোধনী সভায় প্রধান অতিথি ও উদ্বোধকের বক্তব্যে তথ্য মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সদস্য, কক্সবাজার-৩ আসনের জাতীয় সংসদ সদস্য আলহাজ্ব সাইমুম সরওয়ার কমল বলেছেন, রামু ফতেখাঁরকুল-মরিচ্যা মহাসড়কটি জাতীয় মহাসড়কের সমমান প্রশস্ততায় উন্নীত করা হচ্ছে। এরফলে রামুতে সড়ক যোগাযোগ আগের চেয়ে নিরাপদ ও সহজ হবে। দেশের পর্যটন রাজধানী কক্সবাজার জেলার সড়ক যোগাযোগ ব্যবস্থা নিরাপদ ও নির্বিঘ্নে করার জন্যই রামু-ফতেখাঁরকুল-মরিচ্যা সড়কটি জাতীয় মহাসড়কের যথাযথ মানে প্রশস্তকরণ করা হচ্ছে। এগিয়ে চলছে কক্সবাজার শহরের চারলেনে উন্নীতকরণ মহাসড়কের নির্মাণ কাজ। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে আগামী ৩ বছরের মধ্যে উন্নয়নের মাধ্যমে কক্সবাজার-রামুকে আধুনিক শহরে পরিনত করা হবে।
তিনি বলেন, জাতীয় মহাসড়কে প্রশস্ততায় উন্নীতকরণে প্রকল্প বাস্তবায়ন হলে, সারা বছর দেশী-বিদেশী পর্যটকরা নিরাপদে ও নির্বিঘ্নে কক্সবাজার আসতে পারবেন। কক্সবাজারে পর্যটকদের প্রধান আকর্ষণ পৃথিবীর দীর্ঘতম সমুদ্র সৈকত ও নান্দনিক স্থাপনার নির্মাণশৈলী রামুর বৌদ্ধ বিহার।

উদ্বোধন অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন সড়ক ও জনপথ বিভাগের উপ-বিভাগীয় প্রকৌশলী ইঞ্জিনিয়ার মো. মামুন হোসেন খাঁন।
কক্সবাজার জেলার রামু- ফতেখাঁরকুল-মরিচ্যা জাতীয় মহাসড়ক (এন-১০৯ এবং ১১৩) যথাযথ মান ও প্রশস্ততায় উন্নীতকরণ’ প্রকল্প বাস্তবায়ন করবে, সড়ক ও জনপদ অধিদপ্তর। প্রকল্প ব্যয় ২৬৬ কোটি ১৭ লাখ টাকা।
জাতীয় মহাসড়ক উদ্বোধন অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তৃতা করেন, সড়ক ও জনপথ বিভাগ কক্সবাজারের নির্বাহী প্রকৌশলী পিন্টু চাকমা, রানা বিল্ডার্স (প্রা:) লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক নাজমুল হাসান পাখি, জেলা আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি জাফর আলম চৌধুরী, রামু উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান সালাহ উদ্দিন, ফতেখাঁরকুল ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান ফরিদুল আলম, রাজারকুল ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান মুফিজুর রহমান, রানা বিল্ডার্স (প্রা:) লিমিটেডের প্রকল্প ব্যবস্থাপক ইঞ্জিনিয়ার মো. সুজন তালুকদার।

অন্যান্যদের মধ্যে কক্সবাজার জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সদস্য গোলাম কবির, জেলা আইনজীবি সমিতির সাবেক সাধারণ সম্পাদক এড. হোছাইন আহমদ আনচারি, রাজারকুল ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাবেক সভাপতি তারেক সরওয়ার, জেলা যুবলীগ নেতা পলক বড়ুয়া আপ্পু, রামু উপজেলা স্বেচ্ছা সেবকলীগ সাধারণ সম্পাদক তপন মল্লিক, উপজেলা যুবলীগ সাধারণ সম্পাদক নীতিশ বড়ুয়া, আওয়ামী লীগ নেতা জহির সিকদার, জেলা তাঁতীলীগের সহ সভাপতি- আনচারুল হক ভুট্টো, রামু উপজেলা স্বেচ্ছাসেবকলীগ যুগ্ম সম্পাদক আবু বক্কর ছিদ্দিক, দপ্তর সম্পাদক আরিফ খাঁন জয়, ফতেখাঁরকুল সভাপতি আজিজুল হক আজিজ, রামু উপজেলা তাঁতীলীগ সভাপতি নুরুল আলম জিকু, সাধারণ সম্পাদক মোস্তাক আহমদ, জাতীয় শ্রমিকলীগ সভাপতি শফিকুল ইসলাম কাজল, সাধারণ সম্পাদক শাহাব উদ্দিন, সৈনিকলীগ সভাপতি মিজানুল হক রাজা, সাধারণ সম্পাদক রাশেদুল হক বাবু, ওলামালীগ সভাপতি মাওলানা নুরুল আজিম, ছাত্রলীগ নেতা মো. নোমান, দুরন্ত মন্ডল সভাপতি তসলিম উদ্দিন সোহেল, সাধারণ সম্পাদক নুরুল আলম, বঙ্গবন্ধু ছাত্র পরিষদের সভাপতি একরামুল হাছান ইয়াছিন, সাধারণ সম্পাদক মো. শাকিল, বঙ্গবন্ধু ছাত্র ফেডারেশন সভাপতি মাকছুদুর রহমান সাগর, সাধারণ সম্পাদক মেহেদী হাসান রিয়াদ প্রমুখ নেতৃবৃন্দ বক্তব্য রাখেন।
জানা গেছে, রামু ফতেখাঁরকুল-মরিচ্যা মহাসড়কটি দেশের গুরুত্বপূর্ণ জাতীয় মহাসড়কের সাথে মিলিত হয়েছে। সড়কটির দৈর্ঘ্য ১৬ দশমিক ৭২৬ কিলোমিটার ও ৩৪ ফুট
প্রস্থে উন্নীত করা হবে।
রামু বাইপাস ফুটবল চত্ত্বর থেকে চৌমুহনী, চৌমুহনী থেকে উত্তর বাইপাস এবং চৌমুহনী স্টেশন ফতেখাঁরকুল, রাজারকুল হয়ে মরিচ্যা পর্যন্ত এই জাতীয় মহাসড়কের নির্মাণ কাজ চলবে। সড়কটির ৮ কিলোমিটারে বর্ডার গার্ড (বিজিবি), ১০ পদাতিক ডিভিশন রামু সেনানিবাস ও কক্সবাজার বোটানিক্যাল গার্ডেন রয়েছে। এ সড়ক দিয়ে বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর ভারী যানবাহন ছাড়াও নিয়মিত শত শত গণপরিবহন ও পণ্যবাহী গাড়ি। সড়কটি জনগুরুত্বপূর্ণ হওয়ায় জাতীয় মহাসড়কের অন্তর্ভূত করে সড়ক ও জনপদ অধিদপ্তর। গত বছরের ১০ ডিসেম্বর জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটি (একনেক) রামু ফতেখাঁরকুল-মরিচ্যা মহাসড়ক প্রশস্ততায় উন্নীতকরণে নির্মাণ প্রকল্প অনুমোদন করে।
সড়ক ও জনপদ বিভাগের কক্সবাজারের নির্বাহী প্রকৌশলী পিন্টু চাকমা জানান, রামু থেকে মরিচ্যা পর্যন্ত ১৬ দশমিক ৭২৬ কিলোমিটার মহাসড়ক, যথাযথ মান ও উভয় পাশে প্রশস্থকরণ করা হবে। প্রকল্পের প্রাক্কলিত ব্যয় ২৬৬ কোটি ১৬.৭৯ লাখ টাকা। মুল সড়কটি ৩৪ ফুটে উন্নীত করা হবে। সড়কটি প্রশস্থে উন্নীতকরণের প্রকল্প হাতে নেয়, সড়ক পরিবহন ও মহাসড়ক বিভাগ।
তিনি জানান, ২০২২ সালের ৩০ জুন (১৮ মাসের মধ্যে) প্রকল্প নির্মাণ কাজ শেষ করবে, নির্মাণ কাজে নিয়োজিত প্রতিষ্ঠান রানা বিল্ডার্স (প্রা:) লিমিটেডের অংগপ্রতিষ্ঠান ‘মাসুদ হাই-টেক ইঞ্জিনিয়ারিং লি:-হাসান টেকনো বিল্ডার্স লি:-জেভি।
রানা বিল্ডার্স (প্রা:) লিমিটেডের প্রকল্প ব্যবস্থাপক ইঞ্জিনিয়ার মো. সুজন তালুকদার জানান, বিদ্যমান পেভমেন্ট প্রশস্তকরণ ও মজবুতিকরণ, সার্ফেসিং (ডিবিএস বেইসকোর্স এবং ওয়ারিং কোর্স), ১৬ টি আরসিসি বক্স কালভার্ট, ৭৬ মিটার দীর্ঘ ২ টি পিসি গার্ডার সেতু নির্মাণ ও রক্ষাপ্রদ কাজ (টো-ওয়াল নির্মাণ) ও একটি বড় সেতু (শিকলঘাট ব্রীজ) নির্মাণ করা হবে, চারটি প্যাকেজ প্রকল্পের মাধ্যমে।
সাইমুম সরওয়ার কমল এমপি বলেন, রামু-ফতেখাঁরকুল, মরিচ্যা জাতীয় মহাসড়ক নির্মাণ কাজ উদ্বোধন হয়েছে। প্রকল্পটির নির্মাণ কাজ শেষ হলে, কক্সবাজার জেলায় রামু উপজেলা ও কক্সবাজার সদর উপজেলার মধ্যে নিরাপদ সড়ক যোগাযোগ ব্যবস্থার উন্নয়ন হবে। পাশাপাশি রামু উপজেলা ও পার্বত্য নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলার আর্থ সামাজিক উন্নয়নে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে।
উদ্বোধন সভায় উপজেলা যুবলীগ সাধারণ সম্পাদক নীতিশ বড়ুয়া রামু বাইপাস ফুটবল চত্ত্বর থেকে চৌমুহনী স্টেশন পর্যন্ত সড়কটি সাবেক সাংসদ ও সাবেক রাষ্ট্রদূত আলহাজ্ব অধ্যক্ষ ওসমান সরওয়ার আলম চৌধুরীর নামে ‘ওসমান সরওয়ার এভিনিউ’ নামকরণ করার দাবী করেন। উপস্থিত জনতা এ প্রস্তাবের প্রতি সমর্থন জানান। এ দাবীর প্রেক্ষিতে সড়ক ও জনপদ বিভাগ কক্সবাজারের নির্বাহী প্রকৌশলী পিন্টু চাকমা এ প্রস্তাবের প্রতি সম্মতি জানান।