কর্মীর স্মার্টফোন চুরি করে হল ছাড়তে হলো জাবি ছাত্রলীগ নেতাকে

মঙ্গলবার, মে ৭, ২০১৯

জাবি: জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে এক ছাত্রলীগ কর্মীর স্মার্টফোন চুরি করে হাতেনাতে ধরা খেয়েছেন এক সিনিয়র ছাত্রলীগ নেতা। সোমবার দিবাগত রাত আড়াইটার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান হলে এই ঘটনা ঘটে। এসময় হলের জুনিয়র কর্মীরা চুরির দায়ে তাকে হল থেকে বের করে দেয়।

অভিযুক্ত ছাত্রলীগের ওই নেতার নাম কৌশিক রহমান শিমুল। তিনি লোকপ্রশাসন বিভাগের ৪২তম ব্যাচের শিক্ষার্থী এবং শাখা ছাত্রলীগের শিক্ষা ও পাঠচক্র বিষয়ক সম্পাদক এবং মুক্তিযোদ্ধা সংসদ সন্তান কমান্ড জাবি শাখার যুগ্ম-আহ্বায়ক।

জানা যায়, সোমবার রাত সাড়ে ১২ টার দিকে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান হলের ৩৩০ নং কক্ষ থেকে দর্শন বিভাগের ৪৩ ব্যাচের ছাত্র ও ছাত্রলীগ কর্মী ফিরোজের ‘শাওমি নোট ফাইভ’ ব্রান্ডের একটি স্মার্টফোন চুরি হয়। এসময় সন্দেহের ভিত্তিতে ছাত্রলীগ নেতা কৌশিক রহমান শিমুলের ৩১২নং কক্ষে খুঁজতে যান ছাত্রলীগের ৫-৬ জন নেতাকর্মী।

তখন শিমুল জোর করে কক্ষ থেকে বের হয়ে যান। পরে হলের ওয়াশরুমের কাছে ফোনটি ফেলে দেয়ার চেষ্টা করলে নেতাকর্মীরা তাকে হাতেনাতে ধরেন। এরপর রাত আড়াইটা পর্যন্ত এ বিষয়ে আলোচনা করেন হল ছাত্রলীগের সভাপতি প্যানেলের নেতাকর্মীরা। তারপর রাত আড়াইটার দিকে ছাত্রলীগ নেতা কৌশিক রহমান শিমুলকে হল থেকে বের করে দেয়া হয়।

এ ঘটনার পরে ছাত্রলীগ নেতা শিমুলের পুরোনো অনেক অপরাধ উঠে আসে। মাদকাসক্ত ও মাদকের টাকা সংগ্রহের জন্য শিশুদের অপরাধে জড়ানোর বিষয়টি তুলে ধরেন হলের শিক্ষার্থীরা। অন্যদিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের বটতলা ও হলের দোকানে নিয়মিত খাবারের বিল পরিশোধ না করার অভিযোগও রয়েছে তার বিরুদ্ধে।

স্মার্টফোন চুরির অভিযোগের বিষয়ে জানতে চেষ্টা করেও ছাত্রলীগ নেতা কৌশিক রহমানকে ফোনে পাওয়া যায়নি।

এ বিষয়ে জাবি ছাত্রলীগ সভাপতি জুয়েল রানা বলেন,‘তারা দুইজনই ছাত্রলীগের রাজনীতি করলেও এমন একটি ঘটনায় আমাকে কেউই কিছু জানাইনি। তবে হলের রাজনীতিতে হলের ছোট ভাই ও বড় ভাইয়ের মধ্যে ব্যক্তিগত সংঘাত বা বিরোধ থাকেতে পারে।’

এ বিষয়ে জাবির বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান হলেন প্রভোস্ট অধ্যাপক ফরিদ আহমেদ বলেন,‘মঙ্গলবার সকালে কয়েকজন ছাত্র আমাকে এ বিষয়ে জানায় এবং মোবাইল চুরিসহ পূর্বের আরো কয়েকটি বিষয়ে শিমুলকে দোষী করে। তবে শিমুল অপরাধী কিনা বা কেন তাকে বের করে দেয়া হলো এ বিষয়ে শিমুল আমাকে কোনো কিছুই জানায়নি। আমরা মঙ্গলবার ইফতারের পরে বিষয়টি অনুসন্ধান করবো।