সন্ত্রাসী আপেলের কুকীর্তি: কুপ্রস্তাবে সারা না দেয়ায় প্রবাসীর স্ত্রীকে হত্যার হুমকি

বৃহস্পতিবার, মে ২, ২০১৯

জাহিন সিংহ, সাভার থেকে : সাভার এক প্রবাসীর স্ত্রীকে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে বিভিন্ন কুপ্রস্তাবে রাজি না হওয়ায় হত্যার হুমকি দিয়েছে স্থানীয় এক বখাটে ও সন্ত্রাসী। ভয়ভীতি ও হুমকি প্রদানের পর থেকে চরম নিরাপত্তা হীনতা ও আতংকের মদ্যে দিনযাপন করছে ভুক্তভোগী ও তার পরিবার। এ ঘটনায় সাভার মডেল থানায় সাধারণ ডায়েরী (জিডি নং-১৫১২) দায়ের করে ভুক্তভোগী ওই প্রবাসীর স্ত্রীর পিতা।

এ ব্যপারে ভুক্তভোগী ওই নারী বলেন, বিয়ের আগে থেকেই এলাকার বখাটে যুবক ও মাদকসেবী আপেল মাহমুদ তাকে উত্যক্ত করতো। বিয়ের পর এখন এক সন্তানের মা হওয়ার পরও বিভিন্ন সময়ে খারাপ প্রস্তাব দেয় ও ফোন করে আপত্তিকর কথা বলে। তার কুপ্রস্তাবে রাজি না হওয়ায় এখন নানাভাবে তাকে ব্ল্যাকমেইল করছে এই বখাটে। সর্বশেষ তাকে তুলে এনে হত্যার হুমকি দেওয়া পর থেকে ছোট একটি সন্তান নিয়ে ভয়ে বাড়িতে থাকতে পারছেন না তিনি।

এ ঘটনায় ভুক্তভোগী নারীর পিতার দায়ের করা সাধারণ ডায়েরীতে বলা হয়, সাভার পৌরসভার নয়াবাড়ী ভাটপাড়া এলাকার আপেল মাহমুদ (৪০) আমার মেয়েকে দীর্ঘদিন যাবৎ বিভিন্নভাবে বিরক্ত করাসহ বাজে কুপ্রস্তাব দিয়ে আসছিল।

বিষয়টি জানার পর আপেলকে কয়েকবার নিষেধ করা সত্বেও, সে আমার কথা না শুনে আরো বেশি বিরক্ত শুরু করে। পরে উপায় না পেয়ে আমার মেয়েকে জামসিং এলাকায় এক প্রবাসী ছেলের সাথে বিয়ে দেই। বিয়ের দেওয়ার কয়েক বছর অতিবাহিত হওয়ার পর মেয়ের স্বামী বিদেশে চলে যায়।

এরপর থেকেই আপেল আমার মেয়ের পিছু না ছেড়ে আমার মেয়েকে বিভিন্নভাবে বিবাহের প্রলোভন দেখানোসহ কু-প্রস্তাব দেয়। বিষয়টি স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যাক্তিদের সাথে আলোচনা করা হয়।

একপর্যায়ে আপেল ক্ষিপ্ত হয়ে সম্প্রতি বাড়ীর সামনে এসে আমার সাথে খারাপ আচরণ করে। আমাদের বিভিন্ন প্রকার ভয়ভীতি ও হুমকী প্রদান করে বলে এ বিষয় নিয়ে আমরা কোন বাড়াবাড়ি করি বা আইনের আশ্রয় যেন না নেই। অথবা আমার মেয়েকে যদি তার সাথে বিয়ে না দেই, তাহলে আপেল আমাকেসহ আমার স্ত্রী, ছেলে, মেয়ে ও মেয়ের সন্তানকে প্রাণে শেষ করে ফেলবে।

তবে এব্যপারে জানতে চাই অভিযুক্ত আপেল মাহমুদ বলেন, এসব অভিযোগ সত্য নয়। তাকে মিথ্যা অপবাদ দিয়ে ফাঁসিয়ে দেওয়া চেষ্টা করছে তারা।

সাভার মডেল থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) নুরুল ইসলাম বলেন, এক নারী হুমকি প্রদানে অভিযোগে সাধারণ ডায়েরি দায়ের করেছে। বিষয়টি তদন্তের মাধ্যমে প্রয়োজনীয় আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে তিনি জানান।

উল্লেখ্য, বখাটে এই যুবক এলাকায় সন্ত্রাসী আপেল নামেই পরিচিত। নিয়মিত মদক সেবন ও এলাকার নানা রকম অপরাধমূলক কর্মকান্ডে জড়িত সে। এর আগেও আপেল ও তার পরিবারের অন্য সদস্যদের নির্যাতনে বিভিন্ন অভিযোগ আনে এলাকাবাসী।

সন্ত্রাসী আপেলের বড় ভাই গেলাম কিবরিয়া রেডিও কলেনি মডেল স্কুলের প্রাক্তন শিক্ষক ছিলেন। যৌন কেলেঙ্কারীসহ নানা অপকর্মের অভিযোগে স্কুল থেকে বহিষ্কারের পর এলাকা থেকেও তার বিকৃত চরিত্রের জন্য ঝাড়ু পেটা করে তাড়িয়ে দেওয়া হয় তাকে। এরপর এলাকা থেকে ঢাকায় পলিয়ে গেলে সেখানেও এক ছাত্রকে বলকারের অভিযোগে পুলিশের হাতে গ্রেপ্তার হয় গোলাম কিবরিয়া।