প্রচন্ড পায়ে ব্যথা কমাবেন যেভাবে

বুধবার, ফেব্রুয়ারি ২৭, ২০১৯

স্বাস্থ্য ডেস্ক : পায়ে ব্যথা আমাদের খুবই পরিচিত একটি সমস্যা। পা আমাদের পুরো শরীরের ভার নেয়। কিন্তু যতক্ষণ পর্যন্ত পায়ে কোনো সমস্যা হয় না ততক্ষণ একে গুরুত্ব দেই না। বিভিন্ন কারণে আমাদের পায়ের ব্যথা দেখা দিতে পারে। দেখে নিন ব্যথা হওয়ার বিভিন্ন কারণ এবং কমানোর উপায়।

পায়ে ব্যথার বিভিন্ন কারণ

সঠিক মাপের জুতা না পড়লে

এমন হাই হিল যাতে পায়ের গোড়ালিতে অনেক চাপ পড়ে

অতিরিক্ত ব্যায়াম অথবা খেলাধুলা
গর্ভধারণ, ডায়াবেটিস, স্থূলতা ইত্যাদি থাকলে

কিছু লক্ষণ

যখন তখন পা ব্যথা করা

ফুলে যাওয়া

লাল হয়ে যাওয়া

চলাফেরা করার সময় ব্যথা করা বা অনেকক্ষণ দাঁড়িয়ে থাকার কারণে ব্যথা করা

পায়ের চামড়া বিবর্ণ হয়ে যাওয়া পুড়ে যাওয়া বা চুলকানির মত অনুভব করা
পায়ের হাড় ভেঙে যাচ্ছে এমন অনুভব করা ইত্যাদি

কমাবেন যেভাবে

বেকিং সোডা

বেকিং সোডা হাফ কাপ, এক বোল গরম পানি

প্রথমে একটি বড় বোলে গরম পানি নিন এবং এতে হাফ কাপ বেকিং সোডা দিয়ে ভালভাবে মেশান। ১৫-২০ মিনিটের জন্য আপনার পা সোডা মিশ্রিত পানিতে ডুবিয়ে রাখুন। প্রতিদিন একবার করুন।

নারিকেল তেল

নারিকেল তেল ২/৩ চা চামচ

আপনার হাতে দুই থেকে তিন চা চামচ নারিকেলের তেল নিন। এবারে ব্যথার জায়গায় আঙুল দিয়ে আস্তে আস্তে ম্যাসেজ করুন। কয়েক ফোঁটা অ্যাসেনশিয়াল অয়েল যোগ করতে পারেন। তেল ম্যাসাজ করার পর পায়ে মোজা পরে রাখতে পারেন। পায়ে ব্যথা থাকলে প্রতিদিনই ঘুমানোর আগে ব্যবহার করুন।

ইপসম সল্ট

ইপসম সল্ট হাফ কাপ, ১ বোল গরম পানি

গরম পানিতে হাফ কাপ ইপসম সল্ট মেশান। পা ১০-১৫ মিনিটের জন্য ডুবিয়ে রাখুন। ব্যথা থাকলে প্রতিদিনই করুন। এটি পেশির ব্যথার জন্য খুব ভাল।

আদা

আদা ১ ইঞ্চি পরিমান, গরম পানি ১ কাপ, মধু

১ ইঞ্চি পরিমান আদা কুঁচি ১ কাপ পানিতে ৫-১০ মিনিট ফুটান। এতে ১/২ চামচ মধু মেশান ও গরম গরম খান। প্রতিদিন তিনবার খেতে পারেন।

গরম বা ঠাণ্ডা স্যাঁক

গরম পানির বোতল, আইস ব্যাগ

ব্যথার স্থানে হট ওয়াটার বোতল রাখুন ৫-১০ মিনিট। এবার গরম পানির বোতল সরিয়ে ঠাণ্ডা আইস ব্যাগ রাখুন ১০ মিনিট। এভাবে ২/৩ বার করুন।

বিশেষ পরামর্শ

সবসময় আরামদায়ক জুতা পড়ুন

হাই হিল এবং টাইট জুতা এড়িয়ে চলুন

স্বাস্থ্যকর খাওয়া-দাওয়া খান এবং ওজন নিয়ন্ত্রণে রাখুন

পায়ের স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলুন

বাইরের জন্য সঠিক সাইজের জুতা পড়ুন

মাঝে মধ্যে পায়ে ম্যাসাজ করুন এতে রক্ত সঞ্চালন বৃদ্ধি পায়