উলের পোশাকের যত্ন

মঙ্গলবার, ফেব্রুয়ারি ২৬, ২০১৯

লাইফস্টাইল ডেস্ক : শীত এলেই আমাদের গরম কাপড়-চোপড়ের প্রয়োজন পড়ে। গরমকাপড়-চোপড়ের মধ্যে অন্যতম হলো উলের পোশাক। শুধু শীতের সময়টায় এগুলো ব্যবহার করা হয়, তারপর সারাবছরটাই এগুলো পড়ে থাকে আলমারিতে। একভাবে পড়ে থাকলে যেকোনো কাপড়ই নষ্ট হতে পারে। কিন্তু এমন কিছু পদ্ধতি আছে যেগুলো আপনার উলের পোশাকটা ঠিক রাখতে পারে অনেকদিন-

উলের পোশাক কাচা:

ঘরে উলের পোশাক কাচার সময় একটু বেশি সতর্ক ও যত্নশীল হতে হয়। মনে রাখবেন, উল হচ্ছে প্রকৃতপক্ষে একটি প্রাণীর গায়ের চুল, তার মধ্যে কিউটিকল থাকে। বিভিন্ন প্রসেসিংয়ের মধ্যে দিয়ে গিয়ে বাজারজাত হওয়ার সময়ে সেই কিউটিকলের অনেকটাই ক্ষতিগ্রস্ত হয়, তাই খুব গরম পানি বা কড়া ডিটারজেন্টে উলের পোশাক ধুলে তার মান খুব তাড়াতাড়ি খারাপ হওয়ার আশঙ্কা থেকে যায়। হালকা সাবানে উলের পোশাক ধুতে হবে, পানি যেন ঘরের তাপমাত্রায় থাকে। গরম পানিতে উলের পোশাক ভেজাবেন না, ঘণ্টাখানেকের বেশি ভেজানোরও দরকার নেই। তার পর সাবধানে অল্প ঘষে অন্তত তিনবার পানি বদলে ধুয়ে নিন। কড়া হাতে নিংড়ানোর দরকার নেই, শুকনো পুরোনো তোয়ালেতে মুড়ে শুষে নিন বাড়তি পানি।

ঘন ঘন কাচবেন না:

খুব ঘন ঘন উলের জামাকাপড় কাচার দরকার নেই, তাতে ফ্যাব্রিক কোমলতা হারায়। কোথাও দাগ লাগলে সেই অংশটুকু ধুয়ে পরিষ্কার করে নিন। তবে আলমারিতে বছরভরের জন্য তুলে রাখার আগে অবশ্যই একবার ভালো করে ধুয়ে নিতে হবে। উলের পোশাক যদি ঘাম বা খাবারের টুকরাসহ আলমারিতে থাকে, তা হলে কিন্তু মথবল বা সিলভারফিশ পোকার আক্রমণ হতে পারে।

শুকনো করবেন কীভাবে:

উলের পোশাক সমতল জায়গায় তোয়ালে পেতে শুকিয়ে নিন, ঝুলিয়ে শুকনো করলে পোশাকের আকার নষ্ট হয়ে যাওয়ার আশঙ্কা থাকে। ইস্ত্রি করার আগে পোশাক উলটো করে নিন। সামান্য আর্দ্র উলের পোশাক স্টিম আয়রন দিয়ে ইস্ত্রি করা যায়।

ড্রাই ক্লিন করার পর রোদে দিন:

ড্রাই ক্লিনিংয়ের জন্য প্রচুর কেমিক্যাল ব্যবহার করা হয়, তাই ধোয়ার পর অবশ্যই একবার রোদে দিয়ে তার পর আলমারিতে তুলুন।

কাঠের আলমারিতে নয়, উলের পোশাক রাখুন এয়ারটাইট প্যাকেটে: এয়ারটাইট প্যাকেটে ভরে উলের জামাকাপড় আলমারিতে রাখা উচিত, তা হলে ঠেকাতে পারবেন পোকামাকড়ের আক্রমণ।

সূত্র : ফেমিনা