শিক্ষার উদ্দেশ্যর চেয়ে ব্যবসায়িক উদ্দেশ্যই বড় হয়ে উঠছে: দীপু মনি

বুধবার, ফেব্রুয়ারি ২০, ২০১৯

ঢাকা : অনেক প্রতিষ্ঠান করতে আগে অনুমনি লাগে। কিন্ত শিক্ষা প্রতিষ্ঠান গড়ে তুলার আগে অনুমতির প্রয়োজন হয় না। তবে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান গড়ে তোলার পর পাঠদানের অনুমতি নেওয়া হয়। সেই জন্যই সারাদেশে যত্রতত্র শিক্ষা প্রতিষ্ঠান গড়ে তোলায় অনেকাংশেই শিক্ষার যে মূল উদ্দেশ্য তার বদলে ব্যবসায়িক উদ্দেশ্য বড় হয়ে উঠছে। কাজেই এটা নিয়ে ভাবছে সরকার বলে মন্তব্য করেছেন শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি।

বুধবার সকালে টাঙ্গাইলের মির্জাপুর উপজেলার সরকারী এসকে পাইলট হাইস্কুলে এসএসসি পরীক্ষার কেন্দ্র পরিদর্শনের সময়ে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি এসব কথা বলেন।

তিনি আরো বলেন, কোচিং সেন্টার অনেক রকম আছে। তবে যেখানে শিক্ষকরা শ্রেণীতে পড়াশোনা না করিয়ে তাদের নিজেদের বাড়িতে বা কোন কোচিং সেন্টারে ছাত্র-ছাত্রীদের পড়তে বাধ্য করেন, সেখানে না পড়লে তাদের নম্বর কম দিয়ে ফেল করিয়ে দেন। এ রকম অপরাধ যারা করেন তাদের ধরতে সারা দেশে আইনশৃংখলা বাহিনীর সদস্যরা অভিযান চালাচ্ছেন।

দীপু মনি বলেন, শিক্ষা ব্যবস্থাকে আরো এগিয়ে নিয়ে যেতে হবে। তাই যারা বা যে সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠান নোট বইয়ের ব্যবসা করছেন তাদের কঠোর হাতে দমন করা হবে।

এ সময় শিক্ষামন্ত্রীর সাথে উপস্থিত ছিলেন টাঙ্গাইল-৭ (মির্জাপুর) আসন থেকে নির্বাচিত সংসদ সদস্য একাব্বর হোসেন, টাঙ্গাইলের জেলা প্রশাসক মো. শহিদুল ইসলাম, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আহাদুজ্জামান।