খালেদা নয়, শাস্তি পাচ্ছে জাতীয়তাবাদী শক্তি: অলি

শনিবার, জানুয়ারি ২৬, ২০১৯

ঢাকা : মিথ্যা বানোয়াট মামলায় কারান্তরীণ করে বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়াকে নয়, বরং জাতীয়তাবাদী শক্তিকেই শাস্তি দেয়া হচ্ছে বলে মন্তব্য করেছেন এলডিপির চেয়ারম্যান কর্নেল অবসরপ্রাপ্ত অলি আহমেদ বীর বিক্রম।

শনিবার (২৬ জানুয়ারি) জাতীয় প্রেসক্লাবের হক চৌধুরী হলে ২০ দলীয় জোট নেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে লেবার পার্টির সংহতি সমাবেশে তিনি এসব কথা বলেন।

কর্নেল অলি আহমেদ বলেন, ‘দুর্নীতিকারী, দণ্ডপ্রাপ্তরা মুক্তি পাচ্ছে। হাজার হাজার কোটি টাকা লুটকারীদের বিচার হচ্ছে না। কিন্তু বেগম খালেদা জিয়াকে জেলে রাখা হয়েছে। যিনি একটি টাকাও দুর্নীতি করেন নাই। যে টাকার দুর্নীতির দায়ে তাঁকে জেলে রাখা হয়েছে তা তিনি দেখেনও নাই। আসলে বেগম খালেদা জিয়াকে শাস্তি দেয়া হচ্ছে না। শাস্তি দেয়া হচ্ছে জাতীয়তাবাদী শক্তিকে। কারণ জাতীয়তাবাদী শক্তি ধ্বংস হলে বর্তমান সরকার যা মনে চায় তাই করতে পারবে।’

তিনি বলেন, ‘বর্তমান স্বাধীন দেশে আওয়ামী লীগ, ছাত্রলীগ, যুবলীগ, পুলিশ, আইনশৃঙ্খলা বাহিনী যেভাবে বিরোধীদলের নেতাকর্মী‌দের ওপর অত্যাচার করছে এরকম অত্যাচার পাকিস্তানি আমলে পাকিস্তানি স্বৈরশাসকরাও করেনি।’

একাদশ জাতীয় নির্বাচনের কথা উল্লেখ করে তিনি বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছিলেন নির্বাচন সুষ্ঠু হবে, অংশগ্রহণমূলক হবে। আমরা উনার কথায় বিশ্বাস করেছিলাম, আস্থা রেখেছিলাম। কিন্তু এ ধরনের ডাকা‌তি হবে জানলে আমরা নির্বাচনে যেতাম না।’

অতি উৎসাহী কিছু পুলিশ আওয়ামী লীগের কবর রচনা করছে মন্তব্য করে কর্নেল অলি বলেন, ‘৩০ তারিখের নির্বাচনে আওয়ামী লীগ ও তার অঙ্গ সংগঠনের নেতাকর্মীরা বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি করার পাঁয়তারা করেছে। আর আসল ভোট ডাকাতি করিয়েছে প্রশাসনকে দিয়ে।’

এ সময় আওয়ামী লীগের সমালোচনা করে তিনি বলেন, ‘আওয়ামী লীগ নেতারা প্রত্যেকদিন বিএনপির নামে গালিগালাজ না করলে মনে হয় তাদের রাতে ঘুম হয় না। এসব তো রাজনৈতিক শিষ্টাচার না। আপনারা কি করবেন সেটা ভাবেন। কারণ দেশ নিলামে উঠেছে। একাদশ নির্বাচনে সরকারি দল যে হাজার হাজার কোটি টাকা ব্যয় করেছে এটা কোথা থেকে এলো। এগুলো প্রধানমন্ত্রী দেখা উচিত। এবং একাদশ নির্বাচনে যারা প্রার্থী হয়েছেন যারা হাজার হাজার কোটি টাকার পাহাড় গড়েছেন তারা এ টাকা কোথা থেকে পেলেন এর হিসাব নেয়াও উচিত।’

এ সময় তিনি আওয়ামী লীগের ওপর অভিযোগ এনে বলেন, ‘বাংলাদেশের ইতিহাসে আওয়ামী লীগ কখনও জনগণের ভোটে নির্বাচিত হতে পারে নাই। তারা কোনও না কোনও সমস্যা বাঁধিয়ে সরকার গঠন করেছে।’

লেবার পার্টির সভাপতি ডাক্তার মোস্তাফিজুর রহমান ইরান এর সভাপতিত্বে সমাবেশে আরও উপস্থিত ছিলেন- কল্যাণ পার্টির চেয়ারম্যান জেনারেল সৈয়দ ইব্রাহিম, বিএনপি’র ভাইস চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট জয়নাল আবেদীন, এনডিপির চেয়ারম্যান ক্বারী মো. আবু তাহের, জিনফ সভাপতি লায়ন মোঃ আনোয়ার, শাহবাগ থানা কৃষক দলের সভাপতি এম জাহাঙ্গীর আলম, লেবার পার্টির ভাইস চেয়ারম্যান আমিনুল ইসলাম রাজু, এস এম ইউসুফ আলী, সাংগঠনিক সম্পাদক হুমায়ুন কবির ও যুবদল নেতা কাদের সিদ্দিকী প্রমুখ।