প্রধানমন্ত্রীর বক্তব্য মানুষকে বোকা বানানোর চেষ্টা: ফখরুল

শুক্রবার, জানুয়ারি ২৫, ২০১৯

ঢাকা : জাতির উদ্দেশ্যে প্রধানমন্ত্রীর দেয়া ভাষণকে ‘প্রতারণামূলক’ হিসিবে অভিহিত করে করে তা প্রত্যাখান করেছেন বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

শুক্রবার (২৫ জানুয়ারি) প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা জাতির উদ্দেশ্যে ভাষণ দেয়ার পর মির্জা ফখরুল মুঠোফোনে সাংবাদিকদের এমন প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করেন।

মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, ‘এই নির্বাচনে মানুষের মতামতের প্রতিফলন ঘটেনি এবং তারা(ক্ষমতাসীন) একটা ভয়াবহ রকমের বাংলাদেশের নজিরবিহীন ভোট ডাকাতি করেছে তা ইতোপূর্বে বাংলাদেশ কখনো দেখেনি। সেই ভোটের মাধ্যমে তারা ক্ষমতা আবার দখল করে নিয়েছেন। আবারেএসেছেন, এসে তারা দেশ পরিচালনা করবেন এবং বলছেন বিরোধী দলকে পার্লামেন্টে যাওয়ার জন্যে।’

তিনি বলেন, ‘আমি মনে করি, এটা আরও একটা প্রতারণা জনগনের সঙ্গে করা হচ্ছে, বোকা বানানোর চেষ্টা করা হচ্ছে মানুষকে।’

একাদশ সংসদে যাওয়ার বিষয়ে দলের অবস্থান পরিস্কার করেবিএনপি মহাসচিব বলেন, ‘এই সংসদে তো …। কীভাবে এটাকে সংসদ হিসেবে ধরে নেয়া হবে। আমরা বলেছি, ফলাফল প্রত্যাখান করেছি। এই মুহূর্তে সংসদ যাওয়ার বা শপথ নেওয়ার প্রশ্নই উঠতে পারে না।’

তিনি বলেন, ‘আমরা বলেছি যে, এ নির্বাচন বাতিল করেন, আবার নতুন নির্বাচন দেন। নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে নির্বাচন দিয়ে সুষ্ঠু নির্বাচন করেন, গ্রহনযোগ্য নির্বাচন দেন। সবাই অংশগ্রহন করবে। তারপরে যে ফলাফল আসবে সেই ফলাফলের ভিত্তিতে সংসদ এবং, সরকার গঠন হবে। আমরা তো আগেই বলে দিয়েছি। নতুন করে বলার কিছু নেই।’

মির্জা ফখরুল বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রীর এই বক্তব্যই মধ্যে যে ব্যাখ্যা তিনি দিয়েছেন প্রথমেই যে, কেনো তার বিজয় হলো? সেই ব্যাখ্যাই প্রমাণ করে যে তারা আসলে কোনো বিজয় অর্জন করেনি, জনগনের ভোটকে ডাকাতি করে নিয়ে গিয়ে ক্ষমতা দখল করে বসেছেন। প্রথম তাঁর(প্রধানমন্ত্রী) ব্যাখ্যাটা সেটাই প্রমাণ করে।’

তিনি এ বক্তব্যের পক্ষে যুক্তি তুলে ধরে বলেন, ‘ইতিপূর্বে আপনার কোনো ব্যাখ্যা দেয়ার প্রয়োজন হয় না। সঠিক ভোটে জিতলে কোনো ব্যাখ্যা দেয়ার প্রয়োজন হয় না। ইতোমধ্যে জাতীয় ও আন্তর্জাতিক পত্র-পত্রিকা, মিডিয়া এবং বিভিন্ন দেশগুলো বক্তব্যের মধ্যে এসেছে যে, এই নির্বাচন কখনোই গ্রহনযোগ্য নির্বাচন হয়নি এবং এখানে মানুষের মতামতের প্রতিফলন হয়নি। ভয়াবহ রকমের নজিরবিহীন ভোট ডাকাতি করেছে।’