বিয়ে অবৈধ হলেও সন্তান বৈধ!

বৃহস্পতিবার, জানুয়ারি ২৪, ২০১৯

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : হিন্দু কোনো নারী মুসলমান কোনো পুরুষকে বিয়ে করলে তা অবৈধ হবে বলে এক ঐতিহাসিক রায় দিয়েছে ভারতের সুপ্রিমকোর্ট। ভারতের সুপ্রিমকোর্ট হিন্দু-মুসলমানের এ বিয়েকে অবৈধ ঘোষণা করলেও হিন্দু-মুসলিম দম্পতির কোনো সন্তান হলে তা বৈধ হবে বলেও রায় দিয়েছে।

মঙ্গলবার (২২ জানুয়ারি) দেশটির সর্বোচ্চ আদালত এ রায় প্রদান করে।

ভারতীয় এক প্রভাবশালী সংবাদমাধ্যমের খবর অনুযায়ী, শামসুদ্দিন নামের এক ব্যক্তির করা মামলায় এ রায় প্রদান করে ভারতের সুপ্রিমকোর্ট। শামসুদ্দিনের বাবা ভারতের সংখ্যালঘু মুসলিম সম্প্রদায়ের মোহাম্মদ ইলিয়াস আলি বিয়ে করেন হিন্দু নারী ভাল্লিয়াম্মাকে। কিছুদিন আগে তার বাবার মৃত্যু হয়।

কিন্তু সন্তান হিসেবে বাবার সম্পত্তি তার হওয়ার কথা থাকলেও ইলিয়াসের পরিবারের লোকজন তা দিতে অস্বীকৃতি জানায়। তাদের দাবি, ইসলামের আইন লঙ্ঘন করে ইলিয়াস হিন্দু নারীকে বিয়ে করেছেন। এই বিয়ের ফলে তাদের যে সন্তান জন্মগ্রহণ করেছে তা অবৈধ। ফলে সে অবৈধ সন্তান সম্পত্তি পাবে না। পরে এই দম্পতির ছেলে সন্তান শামসুদ্দিন তার বাবার সম্পত্তির উত্তরাধিকারি হবে কিনা তা জানতে চেয়ে আদালতে মামলা করা হয়।

ভারতীয় সর্বোচ্চ আদালতের এ ঐতিহাসিক রায়ে বলা হচ্ছে, কোনো হিন্দু নারী যদি অগ্নিপূজা ও মূর্তিপূজা করেন তাহলে মুসলমান পুরুষের সঙ্গে তার বিয়ে বৈধ নয়। কিন্তু কিন্তু তাদের দু’জনের যদি কোনো সন্তানের জন্ম হয় তাহলে সেই সন্তান বৈধ। আর বাবার সম্পত্তিতে তার পূর্ণ অধিকার আছে।

আদালতের পর্যবেক্ষণে আরও বলা হয়েছে, বিয়ের সময় ভালিয়াম্মা হিন্দু ছিলেন। তাই তাদের বিয়ে ধর্মমতে বৈধ নয়। আবার আইনের চোখে বেআইনিও নয়। সেক্ষেত্রে বিধবা ভালিয়াম্মা ইসলামী আইনে স্বামীর সম্পত্তির উত্তরাধিকারি নন। তবে তার সন্তানের সে সম্পত্তিতে পূর্ণ অধিকার আছে।