পৈত্রিক সম্পত্তির মালিকানার দাবিতে আদালতে অমৃতা সিং

বুধবার, জানুয়ারি ২৩, ২০১৯

বিনোদন ডেস্ক : দেরাদুনের ক্লিমেন্ট টাউনে পৈত্রিক সম্পত্তির মালিকানা দাবি করে পুলিশের দ্বারস্থ হয়েছেন সইফ আলি খানের প্রাক্তন স্ত্রী অমৃতা সিং ও তার অভিনেত্রী কন্যা সারা আলি খান।

ওই সম্পত্তিটি যাতে কোনওভাবেই জমি মাফিয়াদের হাতে না যায় এবং তাদের হাতেই থাকে সেবিষয়টি দেখার জন্য পুলিশের কাছে আবেদন করেছেন অমৃতা ও সারা।

অন্যদিকে ওই একই সম্পত্তির দাবি করেছেন অমৃতার সৎ বোন তাহিরা বিম্বাট। সম্পত্তি সংক্রান্ত এই মামলাটি আদালত পর্যন্ত গড়াতে পারে বলে অনুমান করছেন অনেকেই। এমনকী এই মামলা দীর্ঘদিন গড়াতে পারে বলে মনে করছেন অনেকে।

পাশাপাশি সম্পত্তির নিরাপত্তার দাবিতে পুলিশের দ্বারস্থ হয়েছেন ওই বাংলোর কেয়ারটেকার খুশিরাম। জানা যাচ্ছে দেরাদুনের ক্লিমেন্ট টাউনে কোটি টাকার ওই বাংলোয় থাকতেন অমৃতা সিংয়ের সৎ দাদা মধুসুদন। যিনি ভারতীয় বিমান বাহিনীতে চাকরি করতেন।অবসর নেওয়ার পর ওই পৈত্রিক বাড়িতেই থাকতেন। সম্প্রতি তিনি ক্যান্সারের মারা যান।

পুলিশ সূত্রে জানা যায়, ৪ একর জমির উপর ওই বাংলোটি ১৯৬৯ সালে কিনেছিলেন অমৃতার বাবা। প্রসঙ্গত অমৃতা সিং হলেন মধুসুদনের বাবার প্রথম পক্ষের স্ত্রী রুকসানা সুলতানার কন্যা। পরবর্তীকালে রুকসানার সঙ্গে বিবাহ-বিচ্ছেদের পর অমৃতা সিংয়ের বাবা দ্বিতীয়বার আশা বিম্বাটকে বিয়ে করেন। তাদের সন্তান হলেন মধুসুন ও তাহিরা। বর্তমানে ওই বাংলোয় থাকতে মধুসুদন। তিনি অবিবাহিত ছিলেন।

মধুসুদনের সাম্প্রতিক কালে মৃত্যুর পরই ওই সম্পত্তির দাবি করে মামলা করেছেন অমৃতা ও তাহিরা। জানা যাচ্ছে সৎ দাদা মধুসুদনের মৃত্যুর পর তার শেষকৃত্যের জন্য দেরাদুনে গিয়েছিলেন অমৃতা ও সারা।

তবে তাদের সেখানে ঢুকতে দেওয়া হয়নি। মধুসুদন বিম্বাটের এক বন্ধু জানাচ্ছেন মধুসুদন বাবু চেয়েছিলেন ওই বাংলোটিতে যেন অনাথাশ্রম করা হয়। আপাতত এই মামলাটি কোন দিকে গড়ায় এখন সেটাই দেখার।

তথ্যসূত্র: জি নিউজ