অবশেষে প্রতীক্ষার জয় পেলো খুলনা

বুধবার, জানুয়ারি ২৩, ২০১৯

স্পোর্টস ডেস্ক: এবারের বিপিএলে কিছুতেই তাল খুঁজে পাচ্ছে না খুলনা টাইটানস। একের পর এক হারে হতাশ মাহমুদউল্লাহ শিবির। আর এক ম্যাচ হারলেই শেষ চারের সম্ভাবনা থেকেও ছিটকে যেতে হতো। এমন চ্যালেঞ্জকে সামনে রেখে সিলেট সিক্সার্সের বিপক্ষে জয় তুলে প্রতিযোগিতায় আশা জিইয়ে রাখলো মাহেলা জয়াবর্ধনার শিষ্যরা।

টেইলর, জুনায়েদ সিদ্দিকী ও ওয়াইসদের ব্যাটিংয়ের পর বল হাতে তাইজুল ইসলামের দুর্দান্ত পারফরম্যান্সে সিলেটকে ২১ রানে হারিয়েছে খুলনা।

বুধবার (২৩ জানুয়ারি) বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগের (বিপিএল) ষষ্ঠ আসরের ২৮তম ম্যাচে টসে হেরে ব্যাট করতে নেমে ১৭০ রানের সংগ্রহ দাঁড় করায় পয়েন্ট টেবিলের তলানিতে থাকা খুলনা টাইটানস।

দলের পক্ষে ওপেনিংয়ে নামেন ব্রেন্ডন টেইলর ও জুনায়েদ সিদ্দিকী। ২৩ বলে ব্যক্তিগত ৩৩ রানে ফেরেন জুনায়েদ। টেইলর ৩১ বলে করেন ৪৮ রান। তিন নম্বরে নামা আল আমিন ফেরেন দুই রানে। নাজমুল হোসেন শান্ত ১৩ বলে করেন ১৭ রান।

এরপর অধিনায়ক মাহমুদুল্লাহ ৩, আরিফুল হক ফেরেন ০ রানে। শেষ ওভারে ডেভিড উইসি ২৫ বলে ৩৮ রান করে সাজঘরে ফেরেন। তাইজুল ইসলাম ৯ রানে অপরাজিত থাকেন।

সিলেটের পক্ষে পেসার তাসকিন, মোহাম্মদ নওয়াজ ২টি করে এবং অলোক কাপালি ৪ ওভারে তুলে নেন ৪টি উইকেট।

১৭১ রানের লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে দলীয় শূণ্য রানে লিটন দাসকে বোল্ড করে সাজঘরে ফেরান শুভাশিষ রায়। এর পর দলীয় ৩২ রানে সাব্বির (১৩) ফিরে গেলে ব্যাট হাতে প্রতিরোধ গড়েন আফিফ হোসাইন। তাইজুলের দ্বিতীয় শিকার হওয়ার আগে ২৪ বলে ২৯ রান করেন এই বাঁহাতি।

এদিন বল হাতে ৪ উইকেট নেয়া অলোক কাপালি ব্যাটে দলকে খুব একটা সাপোর্ট দিতে পারেননি। মাত্র ১১ রান করে তাইজুলের তৃতীয় শিকার হন তিনি।

এর পরই মোহাম্মদ নওয়াজ ও নিকোলাস পরানের জুটিতে জমে উঠে ম্যাচ। দলীয় ১৩৭ রানে পরান ২১ বলে ব্যক্তিগত ২৮ রান করে আউট হন। এরপর ১৪৫ রানের মাথায় নওয়াজ শিকার হন জুনায়েদ খানের। তার আগে ৪ ছক্কা ও ২ চারে ৩৪ বলে ৫৪ রান করেন তিনি।

শেষ দিকে আর কেউ দাঁড়াতে না পারলে ৭ উইকেটে ১৪৯ রানে থামে সিলেট সির্ক্সাসের ইনিংস।

উল্লেখ্য, ৯ ম্যাচে ২ জয়ে ৪ পয়েন্ট নিয়ে সিলেটকে টপকে টেবিলের ৬ নম্বরে উঠে এসেছে মাহমুদউল্লাহর খুলনা টাইটানস। তবে এক ম্যাচ কম খেলে ২ জয়ে সমান ৪ পয়েন্ট নিয়ে এখন সবার নিচে সিলেট।