রাব্বিকে আরো সুযোগ দেবে মাশরাফি

মঙ্গলবার, অক্টোবর ২৩, ২০১৮

স্পোর্টস ডেস্ক: খুব হাঁকডাক করে জিম্বাবুয়ে সিরিজের দলে অভিষেক করানো হয়েছে ফজলে রাব্বিকে। ৩০ বছর বয়সী এই ব্যাটসম্যান দীর্ঘদিন ধরেই পারফরম্যান্স করে যাচ্ছে ঘরোয়া লিগে। মূলত তার পারফরম্যান্সের কারণেই এই বয়সে তাকে অভিষেক করানো হয়েছে। কিন্তু নিজের অভিষেক ম্যাচেই ব্যর্থতার পরিচয় দিলেন তিনি। আন্তর্জাতিক ক্যারিয়ারের প্রথম ম্যাচে শুন্য রানেই বিদায় নিতে হয়েছে তাকে।

তবে এখনই রাব্বিকে ছুড়ে ফেলে দেওয়ার কথা ভাবতে চান না টাইগার দলপতি। সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপচারিতায় রাব্বির প্রসঙ্গে মাশরাফি বলেন, ‘এটা রাব্বির আন্তর্জাতিক ক্যারিয়ারের প্রথম ম্যাচ ছিল। তাই একটু উনিশ-বিশ হতেই পারে। আর মানসিক চাপও থাকে। আমার মনে হয় না এটা কোনো বড় ইস্যু।’

অভিষেকে ব্যর্থ হলেও রাব্বি পাশে পাচ্ছেন দলনেতা ম্যাশকে, ‘দেখুন, আমি ব্যক্তিগতভাবে ওকে আরও সুযোগ দেওয়ার পক্ষে। কারণ একটা ম্যাচ দিয়ে একজন খেলোয়াড়কে কখনোই যাচাই করা যায় না। ও যে বলটায় আউট হয়েছে, আসলে ওকে সে জন্য দোষ দেওয়া যায় না। আর ক্রিকেটে দোষ দেওয়ার কিছু নেই।

একইসঙ্গে তিনি জানান, ‘সাম্প্রতিক সময়ে যারা দলে ছিল, তাদের সবাইকেই কম-বেশি সুযোগ দেওয়া হয়েছে। কিন্তু আমরা বিলাসিতা করার মতো ‘বড়’ দলও হয়ে যাইনি। ফলে টানা কাউকে সুযোগ দেওয়া সম্ভব না। তবে আশা করি আমরা ওকে পূর্ণভাবে সহযোগিতা করতে পারব।’

রাব্বির এমন পারফরম্যান্সে মাশরাফি তুলে ধরেন আন্তর্জাতিক ক্রিকেটের সঙ্গে ঘরোয়া ক্রিকেটের পার্থক্য। মাশরাফির ব্যাখ্যা, ‘ক্যামেরার একটা বিষয় থাকে। একজন খেলোয়াড় যখন জানে যে, সরাসরি খেলাটা টেলিভিশনে দেখানো হবে, তখন বাড়তি চাপ থাকে। আর নিজেদের মাঠে খেলা হলে তো দর্শকেরও একটা বিষয় থাকে। আর সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম আছেই। তাছাড়া গণমাধ্যম আছে, দলের সতীর্থরা আছে, পরিবার আছে। সবমিলিয়ে একেবারে আলাদা একটা জগৎ। ঘরোয়া ক্রিকেটে তো এসব নেই। অনেকে হয়তো খোঁজও রাখে না। আন্তর্জাতিক ক্রিকেটের সঙ্গে ঘরোয়া ক্রিকেটের এখানেই বিশাল পার্থক্য।