ধর্মের কারণে মেয়ের দেখা পাচ্ছেন না টম ক্রুজ!

সোমবার, অক্টোবর ৮, ২০১৮

বিনোদন ডেস্ক : নিজের সন্তানকে কয়েকদিন না দেখেই থাকা কষ্ট। সেখানে, অভিনেতা টম ক্রুজ পাঁচ বছরেরও বেশি সময় ধরে দেখেন না তার ১২ বছরের মেয়ে সুরিকে। মাসে দশদিন দেখা করার অনুমতি থাকলেও, তাদের দেখা হয় না পাঁচ বছর ধরে। আর এর কারণ, টমের ধর্ম বিশ্বাস!

টম ক্রুজ সাইন্টোলজি ধর্মে বিশ্বাসী। এই ধর্মে বিশ্বাসের কারণেই ডিভোর্স হয়েছিল টম ক্রুজ ও কেটি হোমসের। কেটি চান না, তার মেয়ে সুরি ক্রুজের ওপরে এই ধর্মের কোনো প্রভাব পড়ুক। আর তাই টম ক্রুজের সঙ্গে মেয়েকে দেখা করতে দেন না তিনি।

বাবা-মেয়েকে সর্বশেষ প্রকাশ্যে দেখা গেছে ফ্লোরিয়ার ডিজনির একটি পার্কে ২০১২ সালের আগস্টে।

২০০৭ সালে বিবাহবন্ধনে আবদ্ধ হয়েছিলেন হলিউডের জনপ্রিয় তারকা জুটি টম ক্রুজ ও কেটি হোমস। সাইন্টোলজির কারণেই বিয়ের পাঁচ বছর পর তার স্ত্রী ও অভিনেত্রী কেটি হোমস তাকে ছেড়ে চলে গেছেন এবং সঙ্গে নিয়ে গেছেন একমাত্র মেয়ে সুরি ক্রুজকে।

টমের সঙ্গে বিবাহবিচ্ছেদের সময় কেটি জানিয়েছিলেন, যদি টম সাইন্টোলজি ছেড়ে দেন, তবেই মেয়ের সঙ্গে দেখা করতে পারবেন। কারণ, সাইন্টোলজির ছায়া মেয়ের ওপর পড়তে দিতে চান না কেটি। ফলে দীর্ঘ পাঁচ বছর ধরে নিজের মেয়ের সঙ্গে দেখা করার সুযোগ পাননি টম।

এদিকে ২০১৭ সালের সেপ্টেম্বরে প্রকাশিত এক প্রতিবেদনে বলা হয়, টমের অনুপস্থিতিতে একা একা মেয়েকে লালন-পালন করতে গিয়ে হাপিয়ে উঠেছেন কেটি। অন্যদিকে বাবা হলিউডের অন্যতম মেগাস্টার হলেও সুরির বেড়ে উঠা কঠিন হয়ে পড়ছে।

কেটির আগে নিকোল কিডম্যানের সঙ্গে বিয়ে হয়েছিল টম ক্রুজের। দুটি সন্তান দত্তক নিয়েছিলেন তারা। বিচ্ছেদের পরে দত্তক নেয়া সেই ছেলে ও মেয়ে টমের সঙ্গেই থাকেন। তারাও বাবার মতো সাইন্টোলজি ধর্মে বিশ্বাসী।

সাইন্টোলজি ধর্ম বিশ্বাসের প্রবর্তক হলেন কল্পবিজ্ঞান গল্পের বিখ্যাত লেখক এল রন হাবার্ড। হাবার্ড ১৯৫২ সালে তার বই ডাইনেটিকস-এর মূল বক্তব্য শরীরের সঙ্গে মন বা আত্মার সম্পর্কের ভিত্তিতে ধর্মটি প্রতিষ্ঠা করেন। পরবর্তীতে ১৯৫৩ সালে ক্যামডেন, নিউজার্সিতে চার্চ অফ সাইন্টোলজি নামে একটি গির্জা প্রতিষ্ঠা করা হয়।