ছাত্রলীগ সভাপতি জয় এখন সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী

শনিবার, আগস্ট ১৩, ২০২২

ঢাকা: সর্বোচ্চ আদালত বাংলাদেশ সুপ্রিম কোর্টে আইন পেশায় কাজ করার অনুমতি পেয়েছেন ৩০৫২ জন আইনজীবী। তাদের মধ্যে বাংলাদেশ ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় সভাপতি আল নাহিয়ান খান জয়ও রয়েছেন।

এরআগে ২০১৮ সালের ২৩ ডিসেম্বর বার কাউন্সিলের সনদ লাভ করেছিলেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে আইন বিভাগে পড়াশোনা করা ছাত্রলীগের শীর্ষ নেতা জয়।

অবশ্য সাংগঠনিক ব্যস্ততার অজুহাতে আইন পেশায় এখনো সময় দেয়ার সুযোগ হয়নি তার।

শনিবার (১৩ আগস্ট) দুপুরে ফলাফল প্রকাশ করা হয়। ভাইভায় উপস্থিত পরীক্ষার্থীদের মধ্যে পাসের হার শতকরা ৯৭ ভাগ বলে জানা গেছে।

এর আগে গত বছরের ৩১ ডিসেম্বর লিখিত পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়। লিখিত পরীক্ষায় ৩ হাজার ৩৮৬ জন উত্তীর্ণ হন।

এদিকে ফলাফল প্রকাশের পর ছাত্রলীগের বিভিন্ন পর্যায়ের নেতাকর্মীরা আল নাহিয়ান খান জয়কে অভিনন্দন জানাচ্ছেন। সাংগঠনিক সম্পাদক ব্যস্ততার মধ্যেও সর্বোচ্চ আদালতের আইনজীবী হিসেবে তালিকাভুক্ত হওয়ায় সবাই জয়কে সাধুবাদ জানান।

ঢাকা কমার্স কলেজ থেকে এইচএসসি পাশের পর ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আইন বিভাগে ভর্তি হন আল নাহিয়ান খান জয়। বিশ্ববিদ্যালয়ের শহীদ সার্জেন্ট জহুরুল হক হলে ছাত্রলীগের উপ-আইনবিষয়ক সম্পাদক এবং পরবর্তীতে সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করেন।

এরপরই তার জায়গা হয় কেন্দ্রীয় কমিটিতে। সোহাগ-জাকির কমিটিতে আইনবিষয়ক সম্পাদক পদে ছিলেন তিনি। আইন বিষয়ে অধ্যায়নের পর তিনি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্রিমিনোলজি বিভাগে মাস্টার্স করেছেন বলে জানা গেছে।

২০২০ সালের ৫ জানুয়ারি ভারপ্রাপ্ত হিসেবে দায়িত্ব পাওয়ার প্রায় সাড়ে ৩ মাসের মাথায় ছাত্রলীগ সভাপতি আল নাহিয়ান খান জয় ও সাধারণ সম্পাদক লেখক ভট্টাচার্যকে ভারমুক্ত ঘোষণা করেন আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনা।

তাদের কমিটির আগের দায়িত্বে থাকা রেজওয়ানুল হক চৌধুরী শোভনকে সভাপতি ও গোলাম রাব্বানীকে চাঁদাবাজিসহ নানা অভিযোগে পদ থেকে সরিয়ে দেয়ার পর তাদের দায়িত্ব দেয়া হয।

জয় গোলাম রাব্বানী -শোভনের কমিটির ১ নম্বর সহ-সভাপতি ছিলেন।