চীনে নতুন আতঙ্ক ছড়াচ্ছে ল্যাংগায়া ভাইরাস, আক্রান্ত ৩৫

বুধবার, আগস্ট ১০, ২০২২

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : করোনার পর এবার চীনে খোঁজ মিলল ‘ল্যাংগায়’ হেনিপাভাইরাস (লেভি) নামের আরও একটি ভাইরাসের। এ ভাইরাসে এখন পর্যন্ত আক্রান্ত হয়েছেন ৩৫ জন। চীনের হেনান এবং শানডং প্রদেশে এ ভাইরাসের প্রাদুর্ভাব লক্ষ করা গেছে বলে তাইপে টাইমস এক প্রতিবেদনে জানিয়েছে।

তাইওয়ানের বিজ্ঞানীদের উদ্ধৃতি দিয়ে দ্য গার্ডিয়ান এক প্রতিবেদনে জানিয়েছে, সম্ভবত ভাইরাসটি প্রাণী থেকে মানুষের মধ্যে সংক্রমণ করেছিল।

দেশটির স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় এখন ভাইরাসটির বিস্তারের ওপর নজর রাখছে। চীন, সিঙ্গাপুর এবং অস্ট্রেলিয়ার বিজ্ঞানীদের নতুন ভাইরাস সম্পর্কে এক গবেষণা নিউ ইংল্যান্ড জার্নাল অব মেডিসিনে (এনইজেএম) প্রকাশিত হয়েছে।

তাইওয়ানের সেন্টার ফর ডিজিজ কন্ট্রোল (সিডিসি) ডেপুটি ডিরেক্টর-জেনারেল চুয়াং জেন-হসিয়াং বলেছেন, আক্রান্ত ৩৫ রোগীর মধ্যে ২৬ জনের মধ্যে জ্বর, ক্লান্তি, কাশি, ক্ষুধা হ্রাস, পেশীতে ব্যথা, বমি বমি ভাব, মাথাব্যথা এবং বমির মতো লক্ষণ দেখা দিয়েছে। তাদের দেহে শ্বেত রক্তকণিকার হ্রাস, প্লেটলেট সংখ্যা হ্রাস, লিভার এবং কিডনি ফেইলরের মতো লক্ষণও দেখা গেছে।

২৫টি বন্য প্রাণীর প্রজাতির পরীক্ষার ফলাফল থেকে জানা যায় যে শ্রু (একটি ইঁদুরের মতো ছোট পোকামাকড় স্তন্যপায়ী) ল্যাংয়া হেনিপাভাইরাসের একটি প্রাকৃতিক আধার হতে পারে। কারণ ২৭ শতাংশ শ্রু এর মধ্যে ভাইরাসটি পাওয়া গেছে বলে সিডিসি কর্মকর্তা বলেছেন।

তবে এ ভাইরাস থেকে কোন মৃত্যুর ঘটনা ঘটেনি।

ডিউক-এনইউএস মেডিক্যাল স্কুলের অধ্যাপক ওয়াং লিনফা, এনইজেএম পেপারের সহ-লেখক, গ্লোবাল টাইমসকে বলেছেন, এ ভাইরাসের কেসগুলি এখনও পর্যন্ত ‘মারাত্মক বা খুব গুরুতর ছিল না’ এবং এতে আতঙ্কিত হওয়ার কিছু নেই।

হেনিপাভাইরাস হল জুনোটিক আরএনএ ভাইরাসের একটি শ্রেণী যার মধ্যে হেন্ড্রা ভাইরাস এবং নিপাহ ভাইরাসও রয়েছে। হেন্দ্রা অস্ট্রেলিয়ায় উদ্ভূত বলে মনে করা হয়, এটি ঘোড়া এবং মানুষকে প্রভাবিত করে।