চলন্ত বাসে ডাকাতি-ধর্ষণ: আরও দুইজন গ্রেফতার

শুক্রবার, আগস্ট ৫, ২০২২

কুষ্টিয়া থেকে নারায়ণগঞ্জগামী ঈগল এক্সপ্রেসের চলন্ত বাসের নিয়ন্ত্রণ নিয়ে ডাকাতির পর যাত্রীদের জিম্মি করে এক নারী যাত্রীকে দলবেঁধে ধর্ষণের ঘটনায় আরও দুইজনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

পুলিশের একটি সূত্র তাদের গ্রেফতারের তথ্য নিশ্চিত করলেও কোথা থেকে গ্রেফতার করা হয়েছে তা জানানো হয়নি। এছাড়া তাদের নামপরিচয়ও জানানো হয়নি। রিমান্ডে থাকা ঘটনার মূলহোতা রাজা মিয়ার পাওয়া তথ্য অনুযায়ী তাদের গ্রেফতার করা হয়েছে বলে সূত্রটি জানিয়েছে। তাদের সম্পর্কে বিস্তারিত জানাতে দুপুরে সংবাদ সম্মেলন করবে টাঙ্গাইল জেলা পুলিশ।

এ নিয়ে চাঞ্চল্যকর ওই ডাকাতি ও গণধর্ষণের ঘটনায় মোট তিনজনকে গ্রেফতার করল আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী।

এর আগে ঘটনার মূলহোতা রাজা মিয়াকে টাঙ্গাইল শহরের নতুন বাস টার্মিনাল এলাকা থেকে গতকাল ভোরে গ্রেফতার করেছিল ডিবি পুলিশ।

গত মঙ্গলবার রাতে কুষ্টিয়া থেকে ঈগল পরিবহনের একটি বাস ৩০-৩৫ জন যাত্রী নিয়ে নারায়ণগঞ্জের উদ্দেশ্যে ছেড়ে আসার পথে সেটিতে ডাকাতি ও সংঘবদ্ধ ধর্ষণের ঘটনা ঘটে।

ডাকাতি ও গণধর্ষণের ঘটনার মূলহোতা রাজা মিয়া

টানা তিন ঘণ্টা যাত্রীদের ওপর অত্যাচার চালানোর পর টাঙ্গাইল-ময়মনসিংহ মহাসড়কের মধুপুরের রক্তিপাড়া জামে মসজিদ এলাকায় রাস্তার পাশের বালির ঢিবিতে পরিবহনটি উল্টে দিয়ে পালিয়ে যায় ডাকাতরা।

খবর পেয়ে বুধবার সকালে মধুপুর থানা পুলিশ তাদের উদ্ধার করে। এ ঘটনায় অজ্ঞাত ১০-১২ জনকে আসামি করে কুষ্টিয়ায় একটি মামলা করা হয়।

ঘটনাটি চাঞ্চল্যের সৃষ্টি করলে আসামিদের ধরতে অভিযানে নামে পুলিশ। এর মধ্যে মূলহোতা রাজা মিয়াকে বৃহস্পতিবার ভোরে টাঙ্গাইল শহরের নতুন বাস টার্মিনাল এলাকা থেকে গ্রেফতার করে ডিবি পুলিশ। পরে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য তার ৭ দিনের রিমান্ড চাইলে আদালত পাঁচ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন।