ভোলায় মৃত্যুর জন্য বিএনপি নেতারাই দায়ী : তথ্যমন্ত্রী

বৃহস্পতিবার, আগস্ট ৪, ২০২২

ঢাকা: বিক্ষোভ চলাকালে ভোলায় পুলিশের গুলিতে বিএনপির দুই কর্মীর মৃত্যুর জন্য দলটিকেই দায়ী করেছেন তথ্যমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ।

বৃহস্পতিবার (৪ আগস্ট) সন্ধ্যায় রাজধানীর আগারগাঁওয়ের জাতীয় বেতার ভবনে আয়োজিত এক স্মরণসভায় সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে এমন মন্তব্য করেন তিনি।

বিএনপি নেতারা তাদের কর্মীদের সংঘাতের দিকে ঠেলে দিয়েছে, ফলে ভোলায় মৃত্যুর জন্য প্রকারান্তরে তারাই দায়ী এবং তাদের এ দায় স্বীকার করে পদত্যাগ করা উচিত।

তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ

তথ্যমন্ত্রী বলেন, ‘বিএনপি লাশের রাজনীতি করে এবং সে কারণেই তাদের অপরাধপ্রীতি ও লাশের রাজনীতির বলি হচ্ছে ভোলায় তাদের দুজন কর্মীর মৃত্যু। কারণ বিএনপি তাদেরকে সংঘাতের দিকে ঠেলে দিয়েছিল এবং কারও কারও হাতে অস্ত্র তুলে দিয়েছিল।’

আরও পড়ুন: নুরে আলম-রহিমের হত্যার প্রতিশোধ নেব: ফখরুল

ঘটনার সময় পুলিশের ওপর গুলি করা হয়েছে উল্লেখ করে তিনি বলেন, ‘পুলিশ সদস্য গুলিবিদ্ধ হয়েছে। মানুষের সহায়-সম্পত্তি ধ্বংস করা হয়েছে, ভাঙচুর করা হয়েছে। পুলিশ সদস্যকে তাদের দলীয় কার্যালয়ে ধরে নিয়ে গিয়ে আটকে রেখে মারধর করা হয়েছে। অর্থাৎ বর্তমান নেতৃত্ব তাদেরকে সংঘাতের দিকে ঠেলে দিয়েছে। সুতরাং এই যে তাদের দুজন কর্মী মৃত্যুবরণ করল, এর জন্য প্রকারান্তরে দায়ী বিএনপির নেতৃত্ব এবং এ দায় স্বীকার করে তাদের বরং আগে পদত্যাগ করা দরকার।’

বিএনপির আন্দোলন প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘বিএনপি তো এখন ফাঁকা মাঠে আন্দোলন করছে। এখন শোকের মাস আগস্ট, সামনে শোক দিবস, আমরা পর্যবেক্ষণ করছি। আমরা যখন মাঠে নামব, তারা পালানোর পথ খুঁজে পাবে না।’

এ দিন সাংবাদিকদের সঙ্গে মতবিনিময়ের আগে তথ্যমন্ত্রী বাংলাদেশ বেতারের সদ্য প্রয়াত মহাপরিচালক আহম্মদ কামরুজ্জামানের স্মরণে আয়োজিত ওই অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন।

এ সময় তিনি বলেন, মরহুম কামরুজ্জামান কখনো রাগান্বিত না হওয়া একজন ভালো মানুষ এবং বেতারের জন্য নিবেদিতপ্রাণ কর্মকর্তা ছিলেন। একই সময় মন্ত্রী তার বিদেহী আত্মার শান্তি কামনা করেন। পাশাপাশি তার শোকাহত পরিবার যেন এই শোক সামলে উঠতে পারে এ জন্য সৃষ্টিকর্তার দরবারে প্রার্থনা করেন।

এছাড়া অনুষ্ঠানের বিশেষ অতিথি এবং তথ্য ও সম্প্রচার সচিব মো. মকবুল হোসেন নিজ বক্তব্যে প্রয়াত মহাপরিচালকের কর্মনিষ্ঠা ও সুআচরণের কথা গভীরভাবে স্মরণ করেন।

অতিরিক্ত সচিব ও বাংলাদেশ বেতারের ভারপ্রাপ্ত মহাপরিচালক খাদিজা বেগমের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে অন্যদের মধ্যে প্রধানমন্ত্রীর স্পিচ রাইটার নজরুল ইসলাম এবং কামরুজ্জামানের সহকর্মীবৃন্দ বক্তব্য রাখেন। পরে মরহুমের বিদেহী আত্মার শান্তি কামনা করে বিশেষ দোয়া অনুষ্ঠিত হয়।