সূর্যের আলোতে চলবে গাড়ি, নেই জ্বালানী খরচ

রবিবার, জুলাই ২৪, ২০২২

বিশ্বে বেড়েই চলেছে জ্বালানী তেলের দর আর তেলের ব্যবহারে বাড়ছে পরিবেশদূষণ। এমন পরিস্থিতিতে গাড়ি নির্মাতা প্রতিষ্ঠানগুলো ভাবছে এমন এক গাড়ি আবিষ্কারের কথা যে গাড়ি হবে পরিবেশবান্ধব এবং জ্বালানী ছাড়াই সড়কে চলাচল করবে। আর এই স্বপ্নকে অনেকটাই সত্যিতে রূপান্তর করেছেন এক ভারতীয় নাগরিক।

ভারতীয় এক সংবাদ মাধ্যম দ্য ইন্ডিয়া নিউজের প্রতিবেদনে উঠে এসেছে বিশেষ এই গাড়ির আবিষ্কারক বিলাল আহমেদের কথা।

প্রতিবেদন থেকে জানা যায়, এমন গাড়ির আবিষ্কারক বিলাল কোন বিজ্ঞানী কিংবা অটোমোবাইল গবেষক নয়। পেশায় তিনি একজন গণিত শিক্ষক।

কাশ্মীরের রাজধানী শ্রীনগরের সনত নগরের বাসিন্দা বিলাল আহমেদ এমন পরিবেশবান্ধব গাড়ি তৈরি করার পরিকল্পনা করেন ২০০৯ সালে। এই হিসেবে এমন অত্যাধুনিক প্রযুক্তির গাড়িটি বাস্তবে পরিণত করতে তার সময় লেগেছে প্রায় ১১ বছর। কাশ্মীরের আকাশ প্রায়ই মেঘাচ্ছন্ন থাকায় মৃদু সূর্যের আলোতে গাড়ি চালানোটার এই বিষয়টিকে তিনি চ্যালেঞ্জিং হিসেবে গ্রহণ করেছিলেন।

কীভাবে এই গাড়িটি কাজ করে এমন প্রশ্নে বেলাল বলেন গাড়িতে মনোক্রিস্টালাইন সোলার প্যানেল ব্যবহার করার কথা। এই প্রযুক্তির মাধ্যমেই সম্পূর্ণ গাড়িটি বিদ্যুতে চলবে।

বিলাসবহুল গাড়িগুলোর প্রায় সব ফিচারই পাওয়া যাবে বিলাল আহমেদের তৈরি এই গাড়িতে। এই গাড়ির বনেট, ছাদে, সাইড গ্লাস এবং পেছনের কাঁচেও সোলার প্যানেল লাগানো আছে। তবে এর জন্য গাড়ির ডিজাইন যেন দেখতে খারাপ না হয় সেদিকেও রাখা হয়েছে সতর্ক দৃষ্টি।

স্বপ্নকে বাস্তবে পরিণত করার পর বিলাল মনে করেন, ভারতীয় সরকারের পর্যাপ্ত সাহায্য পেলে এই গাড়ি দেশের চাহিদা মিটিয়ে বাইরের দেশেও রফতানি করা যাবে। এই স্বপ্নও যদি বাস্তবে রূপ পায় তবে তিনি হবেন কাশ্মীরের ইলন মাস্ক।