শ্বশুরকে বিয়ে করে প্রতিশোধ নিলো পুত্রবধূ

শুক্রবার, জুন ২৪, ২০২২

কুমিল্লা: কুমিল্লা জেলার বরুড়া উপজেলায় ননদ ও শাশুড়ী মিলে জোর করে স্বামীর কাছ থেকে তালাকনামায় সই নেওয়ায় নিজের শ্বশুরকে নিয়ে পালিয়ে বিয়ে করলেন পুত্রবধূ।

শুক্রবার (২৪ জুন) দুপুরে ভবানীপুর ইউনিয়নের লক্ষ্মীপুর গ্রামের খাদিজা আক্তার পুতুল নামের এক মানবাধিকার কর্মী ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন। ঘটনাটি ঘটেছে কুমিল্লার বরুড়া উপজেলার ২নং ভবানীপুর ইউনিয়নের লক্ষ্মীপুর (উঃ) গ্রামে।

হিউম্যান রাইটস রিভিউ সোসাইটি মানবাধিকার এর ওই কর্মী বলেন, উপজেলার ভবানীপুর ইউপি’র লক্ষ্মীপুর (উঃ) গ্রামের মৈশান বাড়ির মহসিন মিয়ার ছেলে সৌদি প্রবাসী আল আমিনের সঙ্গে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার কসবা এলাকার মেয়ে ফারজানার ভালোবেসে বিয়ে হয় দুই বছর আগে।

ফারজানা কুমিল্লা ইপিজেডে একটি সুতার ফ্যাক্টরিতে কাজ করত। তার স্বামী আল আমিন কুমিল্লা নগরীতে সিএনজি চালাতো। বিয়ের পর ফারজানার জমানো টাকা দিয়ে আল আমিন সৌদি আরবে যায়।

ভালোবেসে বিয়ে মেনে নিতে না পেরে বিয়ের পর থেকে ফারজানার ননদ ফাতেমা ও শাশুড়ি মোর্শেদা বেগম বিভিন্ন অজুহাতে নির্যাতন করত ফারজানাকে। ফারজানার বাবা-মা কেউ জীবিত না থাকায় তার উপর নির্যাতনের মাত্রাটি ছিল বেশি পরিমাণে।
বিয়ের দেড় বছর পর শশুড়ের সাথে পরকিয়ার সম্পর্ক আছে এমন অভিযোগ এনে জোর করে তালাক নামায় সই করিয়ে নেওয়া হয় ফারজানার কাছ থেকে। তালাকের ৩ লাখ টাকা তাকে দিয়ে সে টাকা আবার ননদ শাশুড়ি কেড়ে নিয়ে তাকে বাড়ি থেকে বের করে দেওয়া হয়। এসবের প্রতিশোধ নিতে বৃহস্পতিবার (২৩ জুন) ঢাকায় একটি কাজী অফিসে শ্বশুর মহসিন মিয়াকে ১০ লাখ টাকা কাবিন করে বিয়ে করেন নেয় ফারজানা।

এ বিষয়ে স্থানীয় ইউপি সদস্য শাহ আলম জানান, দু’দিন ধরে নিখোঁজ রয়েছে মহসিন। তার ফোনে কল দিলে এক নারী রিসিভ করে বলে আমি তাকে বিয়ে করেছি। সে আমার স্বামী।

তবে আমি যতটুকু জেনেছি পুত্রবধূকে শ্বশুরের সাথে পরকীয়ার সম্পর্ক আছে এমন অভিযোগ দিয়ে জোর করে তালাক দিয়ে বাড়ি থেকে বের করে দেওয়া হয়েছে ফারজানাকে। তাই পুত্রবধূ ক্ষিপ্ত হয়ে এ কাজ করেছে বলে শুনেছি।

শুক্রবার (২৪ জুন) সন্ধ্যায় বরুড়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ইকবাল বাহার মজুমদার বলেন, বিষটি আমি শুনেছি তবে কোনো অভিযোগ পাইনি। অভিযোগ পেলে আইন অনুযায়ী ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।