মেসিদের পিএসজি ছেড়ে রোনালদোর কোচ হতে চান পচেত্তিনো!

মঙ্গলবার, নভেম্বর ২৩, ২০২১

স্পোর্টস ডেস্ক : ওলে গুনার সোলশায়ারের চাকরি যাওয়ার পর থেকেই শুরু গুঞ্জনের, ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের আসবেন কোন কোচ? এক দিন আগে গুঞ্জন উঠেছিল, সাবেক বার্সেলোনা কোচ ও বর্তমান স্পেন কোচ লুইস এনরিকেকে চাইছেন ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদো। সেটা অবশ্য হেসেই উড়িয়ে দিয়েছেন স্পেন কোচ।

তবে গুঞ্জনে এবার যোগ হয়েছে পিএসজি কোচ মরিসিও পচেত্তিনোর নাম। ইউরোপীয় সংবাদ মাধ্যমে গুঞ্জন, সাবেক আর্জেন্টাইন এই ফুটবলারকে নিজেদের ভবিষ্যৎ কোচ হিসেবে ভাবছে ইউনাইটেড।

গোল ডট কম জানাচ্ছে, ওলে গুনার সোলশায়ারের ফেলে যাওয়া শূন্যস্থান পূরণে পচেত্তিনোই আছেন সবার আগে। যদিও দু’পক্ষের ভেতর আনুষ্ঠানিক কোনো কথাবার্তা হয়নি এখনো।

পচেত্তিনো ২০১৯ সালে টটেনহ্যাম হটস্পারকে নিয়ে গিয়েছিলেন চ্যাম্পিয়ন্স লিগ ফাইনালে, ইউনাইটেড যে কীর্তি সর্বশেষ গড়েছিল সেই ২০১১ সালে। সঙ্গে লিগেও বেশ দাপটের সঙ্গেই খেলছিল পচেত্তিনোর দল। তবে তার ছয় মাসের ভেতরই তিনি চাকরি হারিয়েছিলেন, দলের বাজে ফর্মের খেসারত দিয়ে।

ইউনাইটেডও কোচ জোসে মরিনিওকে কোচের পদ থেকে অব্যহতি দিয়েছিল সে সময়। তখনই গুঞ্জন ছিল তার কোচ হওয়ার। কিন্তু তখন অন্তর্বর্তীকালীন কোচ ওলে গুনার সোলশায়ারের অবিশ্বাস্য কিছু রেকর্ড সে ভাবনা থেকে সরে আসতে বাধ্য করে ইউনাইটেডকে। গোল জানাচ্ছে, সে সিদ্ধান্ত থেকে সরে এলেও পচেত্তিনোর গুণগ্রাহীদের তালিকা থেকে নিজেদের সরিয়ে নেয়নি ইউনাইটেড। সেটাই আবারও সামনে এসেছে সোলশায়ারের পদচ্যুতির পর।

এদিকে পচেত্তিনো মাঝে এক বছর চাকরিহীন থাকার পর গেল জানুয়ারিতে আসেন পিএসজি কোচের পদে। তবে বছর ঘুরলেও পচেত্তিনো পিএসজিকে স্থিতিশীল একটা কাঠামোয় আনতে পারেননি এখনো। গুঞ্জন আছে, প্যারিসের জীবনযাত্রা নিয়েও সন্তুষ্ট নন তিনি। সে কারণেই পিএসজি ছাড়ার ভাবনা আছে তার মগজেও। তবে সেটা তিনি ভাববেন নতুন কোনো ‘ভালো’ প্রস্তাব পেলে তবেই। ইএসপিএন জানাচ্ছে, সেটা আসতে হবে প্রিমিয়ার লিগের কোনো দল থেকে।

ইংলিশ সংবাদ মাধ্যম জানাচ্ছে, সেই ‘ভালো’ প্রস্তাবটা আর্জেন্টাইন এই কোচের কাছে যাচ্ছে ইউনাইটেডের পক্ষ থেকেই। পচেত্তিনোর ইংলিশ ফুটবলের অভিজ্ঞতা আছে, সঙ্গে যোগ হয়েছে ইউনাইটেডের অতীত আগ্রহ।

এদিকে পচেত্তিনো পিএসজি ছেড়ে গেলে কে হবেন মেসিদের কোচ, সেটাও এখন আলোচনায়। ইএসপিএন জানাচ্ছে, এজন্য ইতোমধ্যেই জিনেদিন জিদানের সঙ্গে যোগাযোগ করেছে পিএসজি। ফরাসি দলটির কর্তাব্যক্তিদের বিশ্বাস, অতীতে জিদানের বড় খেলোয়াড়দের সঙ্গে কাজের অভিজ্ঞতা, মানব সম্পদ ব্যবস্থাপনায় তার দক্ষতা, ও তার আক্রমণাত্মক কৌশল পিএসজির সঙ্গে খুব ভালোভাবেই খাপ খেয়ে যায়।