ভারতে উগ্রবাদী, মৌলবাদী হিন্দুরা গো-রক্ষার নামে মুসলমান হত্যা করছে: ওলামালীগ

শনিবার, অক্টোবর ৫, ২০১৯

ঢাকা : ভারতে উগ্রবাদী, মৌলবাদী হিন্দুরা গো-রক্ষার নামে গত ৩ বছরে হাজার হাজার মুসলমান হত্যা করেছে অভিযোগ করে মুসলমানদের পিটিয়ে হত্যা করেছে অভিযোগ করে বাংলাদেশ আওয়ামী ওলামা লীগের নেতারা বলেছেন,’ মুসলমান মেয়েদের পর্দা পালনে বাধা দিয়েছে। কাস্মীরে লাখ লাখ মা-বোনদের ধর্ষণ করেছে। পুরুষদের হত্যা করেছে। অথচ বাংলাদেশে তারা রামরাজত্ব চালাতে চাইছে।

তারা বলেন,’দুরভিসন্ধিমূলকভাবে নিজেরা মূর্তি ভেঙ্গে মুসলমানদের উপর দোষ চাপাচ্ছে। সরকারের ভাবমূর্তি নষ্ট করতে চাইছে। রানাদাশ, প্রিয়া সাহা, গোবিন্দ প্রামাণিক, রবীন্দ্র ঘোষ দেশে বিদেশে মুসলমান ও বাংলাদেশ বিরোধী ষড়যন্ত্র বাস্তবায়ন করছে। ধর্মপ্রাণ মুসলমানরা জোরদার প্রশ্ন তুলছেন যে ভারতে যদি মুসলমানরা তাদের ধর্মীয় অধিকার না পায় তাহলে বাংলাদেশে উগ্রবাদী, মৌলবাদী হিন্দুরা কীভাবে তাদের অযাচিত ধর্মীয় অধিকার চাইতে পারে। কাজেই অবিলম্বে সব জায়গা থেকে উগ্রবাদী, মৌলবাদী হিন্দুত্ববাদীদের প্রতিহত করতে হবে।

শনিবার(৫ অক্টোবর) জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে ওলামা লীগসহ-১৩টি সংগঠন মানবন্ধনের আয়োজন করে।

জুয়া দুর্নীতি বন্ধে প্রধানমন্ত্রীর সাথে আমৃত্যু থাকার অঙ্গীকারের পাশাপাশি রসূলুল্লাহ ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার অবমাননার শাস্তি মৃত্যুদ-, সিলেবাসে উনার জীবনী মুবারক অন্তর্ভুক্ত এবং উগ্রবাদী মৌলবাদী হিন্দুত্ববাদ প্রতিহত করার ঘোষণা ওলামা লীগের নেতারা বলেন,’জুয়া, দুর্নীতি বন্ধে প্রধানমন্ত্রীর সাথে আমৃত্যু থাকার অঙ্গীকার করেছে আওয়ামী ওলামা লীগ।

বক্তারা বলেন,’নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার মুবারক শানে মানহানীকর বক্তব্য, লেখা, প্রকাশনা, টিভি প্রোগ্রাম, রেডিও প্রোগ্রাম, ইন্টারনেটে স্ট্যাটাসসহ যে কোন বিষয় প্রচার, প্রকাশ ও প্রদানকারীর শাস্তি মৃত্যুদ- দিতে হবে।সব শ্রেণীর পাঠ্যপুস্তকে নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযুর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার এবং হযরত আহলু বাইত শরীফ আলাইহিমুস সালাম উনাদের সুমহান জীবনী মুবারক বাধ্যতামূলক করতে হবে।

তারা বলেন,’উগ্রবাদী, মৌলবাদী হিন্দুরা নিজেরা মুর্তি ভেঙ্গে মুসলমান ও সরকারের প্রতি অপবাদ দিচ্ছে। অথচ ভারতে উগ্রবাদী মৌলবাদী হিন্দুরা মুসলমানদের কুরবানী করতে দেয়না, পবিত্র দ্বীন ইসলাম পালন করতে দেয়না, শহীদ করে। ধর্মপ্রাণ মুসলমানদের প্রশ্ন- ভারতে যদি তারা মুসলমানদের ধর্মীয় অধিকার না দেয় তবে বাংলাদেশে তারা কি করে তাদের ধর্মীয় অধিকার দাবী করতে পারে? উগ্রবাদী, মৌলবাদী হিন্দুত্ববাদ প্রতিহত করতে হবে।

ওলামা লীগ নেতৃবৃন্দ ভ্যাকসিন হিরোসহ মোট ৪০টি আন্তর্জাতিক পুরস্কারের ভূষিত বিশ্বের শীর্ষ নেতৃত্বের তালিকায় দ্বিতীয় স্থান অধিকারী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ক্যাসিনো ও জুয়া এবং দুর্নীতির বিরুদ্ধে জিহাদ ঘোষণা করায় আন্তরিক অভিনন্দন জানান।

বক্তারা বলেন, ইসলামবিদ্বেষী ও নাস্তিকদের মুক্তমনা ব্লগ, ইষ্টিশন ব্লগ, ধর্মকারী ব্লগগুলো এদেশে এখনো তীব্র ইসলামবিদ্বেষ ছড়াচ্ছে। নাস্তিকদের পৃষ্ঠপোষকতা করছে। অথচ পুলিশ, র‌্যাব, বিটিআরসি তাদের বিরুদ্ধে কোনো মামলা দেয়নি, কোনো ব্যবস্থাও নেয়নি। এর মাধ্যমে সরকারের বিরুদ্ধে ধর্মপ্রাণদের ক্ষেপিয়ে দেয়ার তৎপরতা চালানো হচ্ছে। নাঊযুবিল্লাহ!তাই অবিলম্বে নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার, হযরত উম্মাহাতুল মু’মিনীন আলাইহিন্নাস সালাম উনাদের এবং মহাসম্মানিত হযরত আহলু বাইত শরীফ আলাইহিমুস সালাম উনাদের বিন্দু থেকে বিন্দুতম অবমাননা করলে বা মানহানীকর বক্তব্য, লেখা, প্রকাশ ও প্রচার করলে তাৎক্ষণিক মৃত্যুদ-ের বিধান করতে হবে।

বক্তারা আরও বলেন, বর্তমানে দেশে শিশু-কিশোররাও পর্নোগ্রাফিতে ভয়ঙ্কর আশক্ত। সারা দেশে হাজার হাজার সন্ত্রাসী কিশোর গ্যাংদের অস্তিত্ব ধরা পড়ছে। মারাত্মকহারে বেড়ে চলছে খুন-ধর্ষণ। অন্যদিকে দুর্নীতি, জুয়ায় সয়লাব সারাদেশ। পাশাপাশি দায়িত্বহীনতা ভেজাল, মজুদদারী, অনিয়ম আর বিশৃঙ্খলায় বিপর্যস্থ সারাদেশ ও জনগণ। অথচ ৯৮ ভাগ মুসলমানের দেশে এমনটি হওয়ার কথা ছিলনা। এর পেছনে একমাত্র কারণ মুসলমান তাদের হযরত নবী ও রসূল, নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার এবং মহামহিম, মহাপবিত্র আহলু বাইত শরীফ আলাইহিমুস সালামগণ উনাদের মহিমান্বিত, মহাসম্মানিত ও মহাপবিত্র জীবনী মুবারক ও আদর্শ মুবারক জানেনা।

মানববন্ধনে বক্তব্য দেন,ওলামা লীগের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা আলহাজ্জ মাওলানা মুহম্মদ আখতার হুসাইন বুখারী,সাধারণ সম্পাদক আলহাজ্জ কাজী মাওলানা মুহম্মদ আবুল হাসান শেখ শরীয়তপুরী, সম্মিলিত ইসলামী গবেষণা পরিষদের সভাপতি- আলহাজ্জ হাফেজ মাওলানা মুহম্মদ আব্দুস সাত্তার, সহ সভাপতি- মাওলানা মুহম্মদ শোয়েব আহমেদ গোপালগঞ্জী, সাংগঠনিক সম্পাদক- হাফেজ মাওলানা মুহাম্মদ আব্দুল জলিল, মাওলানা মুহম্মদ শওকত আলী শেখ ছিলিমপুরী, দপ্তর সম্পাদক- বাংলাদেশ আওয়ামী ওলামা লীগ, লায়ন আলহাজ্জ মাওলানা মুহম্মদ আবু বকর সিদ্দিক প্রমুখ।