এরশাদের আসনে ভোট গ্রহণ চলছে

শনিবার, অক্টোবর ৫, ২০১৯

ঢাকা: জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান হুসেইন মুহম্মদ এরশাদের মৃত্যুতে শূন্য হওয়া রংপুর-৩ (সদর) আসনের উপনির্বাচনে ভোটগ্রহণ শুরু হয়েছে।

শনিবার সকাল ৯টা থেকে ভোটগ্রহণ শুরু হয়, যা একটানা চলবে বিকেল ৫টা পর্যন্ত। নির্বাচনে ১৭৫টি কেন্দ্রেই ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিনে (ইভিএম) ভোট নেওয়া হচ্ছে।

নির্বাচনে এ আসনে লড়ছেন মহাজোটের প্রার্থী জাতীয় পার্টির (জাপা) প্রয়াত চেয়ারম্যান হুসেইন মুহম্মদ এরশাদের ছেলে জাপার রাহাগীর আল মাহি সাদ এরশাদ (লাঙ্গল), বিএনপির রিটা রহমান (ধানের শীষ), এরশাদের ভাতিজা (স্বতন্ত্র) হোসেন মকবুল শাহরিয়ার আসিফ (মোটরগাড়ি), খেলাফত মজলিসের তৌহিদুর রহমান মণ্ডল (দেয়াল ঘড়ি), গণফ্রন্টের কাজী মো. শহিদুল্লাহ্‌ (মাছ), এনপিপির শফিউল আলম (আম)।

নির্বাচনে ছয়জন প্রার্থী অংশ নিলেও সাদ, রিটা ও আসিফের মধ্যে লড়াই হবে বলে মনে করছেন ভোটাররা। নগরীর ২৫টি ওয়ার্ড ও পাঁচটি ইউনিয়ন নিয়ে সদর আসনে মোট ভোটার রয়েছে চার লাখ ৪১ হাজার ২২৪ জন।

আঞ্চলিক নির্বাচন কর্মকর্তা জিএম সাহাতাব উদ্দিন বলেন, নির্বাচনকে ঘিরে চার স্তরের নিরাপত্তা ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। ১৮ প্লাটুন বিজিবি, তিন হাজারের বেশি পুলিশ ও আনসার বাহিনীর সদস্যরা নিরাপত্তার দায়িত্বে নিয়োজিত আছেন। সঙ্গে আছে র‌্যাবের ২০টি টহল টিম। ১৮ জন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটের নেতৃত্বে আছে ভ্রাম্যমাণ আদালতও। এছাড়া জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেটের জন্য আছে চারটি ভ্রাম্যমাণ আদালত।

তিনি বলেন, ভোটারদের প্রতি আহ্বান- নির্বিঘ্নে ভোটকেন্দ্রে এসে তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করে নিরাপদে বাড়ি ফিরে যাওয়ার জন্য সব ধরনের ব্যবস্থা রয়েছে। একটি অবাধ, সুষ্ঠু, নিরপেক্ষ নির্বাচন করতে কমিশন বদ্ধপরিকর।

জেলা পুলিশ সুপার বিপ্লব কুমার সরকার বলেন, নিশ্ছিদ্র নিরাপত্তার মধ্য দিয়ে সদর আসনের ভোটগ্রহণ করা হবে। নিরাপত্তা নিয়ে কোনো শঙ্কা নেই।

রংপুর মহানগর পুলিশ কমিশনার আবদুল আলীম মাহমুদ বলেন- র‌্যাব, বিজিবি, পুলিশ, আনসারসহ আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সমন্বয়ে একটি মডেল নির্বাচন অনুষ্ঠান করতে সব ধরনের ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে।

গত ১৪ জুলাই ঢাকায় সামরিক হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান রংপুর-৩ (সদর) আসনের সংসদ সদস্য জাপা চেয়ারম্যান হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ। ১৬ জুলাই সংসদ সচিবালয় আসনটি শূন্য ঘোষণা করে।