শিবগঞ্জে মক্তবের জায়গাকে কেন্দ্র করে হামলা আহত ১

মঙ্গলবার, অক্টোবর ১, ২০১৯

জিএম মিজান, শিবগঞ্জ (বগুড়া) প্রতিনিধি : বগুড়ার শিবগঞ্জ উপজেলায় মক্তবের জায়গা নিয়ে বিরোধকে কেন্দ্র করে সন্ত্রাসী হামলার শিকার হয়েছেন জমিদাতা আবু বক্কর সিদ্দিক। তিনি এখন মারাত্মক জখম অবস্থায় হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। ঘটনাটি ঘটেছে উপজেলার কিচক ইউনিয়নের হরিপুর গ্রামে।

ওই গ্রামের আবু বক্কর সিদ্দিক গ্রামের দরিদ্র ছেলে-মেয়েদের আরবি শিক্ষার জন্য কয়েক বছর আগে নিজের পৈত্রিক জায়গায় মক্তব গড়ে তোলেন। এলাকাবাসী জানায়, মক্তবের পাশে প্রতিবেশি কছিম উদ্দিনের ছেলে খয়বর আলীর চলাচলের সুবিধার জন্য বক্কর মিয়া এক শতক জায়গা দলিল করে দেন। কিন্তুএক শতক জায়গার স্থলে মক্তব ও কবরস্থানের জায়গাসহ খয়বর আলী প্রায় চার শতক জায়গা জবরদখল করেন। বিষয়টি নিয়ে উত্তেজনার সৃষ্টি হলে এলাকাবাসী স্বানীয়ভাবে মিমাংসার জন্য সালিশী বৈঠকে আমিন দিয়ে মাপের সিদ্ধান্ত হয়।

শনিবার সেই আমিন দিয়ে মাপের প্রস্তুতিকালে উভয় পক্ষে রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষ বাঁধে। এতে হামলার শিকার হন জমিদাতা আবু বক্কর সিদ্দিক। সরেজমিনে গিয়ে ওই এলাকার স্থানীয় আওয়ামী লীগ নেতা নবীর উদ্দিন, একাব্বর ও তমিজ উদ্দিনসহ বেশ কয়েক জন নারী-পুরুষ ও মুরুব্বি এ প্রতিবেদক-কে বলেন, জবরদখলকারী খয়বর ও তার সন্ত্রাসী ছেলে মাহবুর, লিটন লোহার চোকা (ফালা) দিয়ে বক্করের মাথায় আঘাত করে।

এতে তিনি রক্তাক্ত জখম হয়ে মাঠিতে লুটিয়ে পড়েন। স্বানীরা তাকে উদ্ধার করে শিবগঞ্জ হাসপাতালে ভর্তি করেছে। একাব্বর আরও বলেন, বক্করকে বাচাঁতে গিয়ে তিনিও আহত হন। এলাকাবাসী আরও বলেন, এই খয়রব ও তার ছেলেরা কিচকের আলোচিত আওয়ামী লীগ নেতা শরাফত হত্যা মামলার যাবজ্জীবন সাজাপ্রাপ্ত আসামি।

তাদের ভয়ে গ্রামে কেউ মুখ খুলতে সাহস পায় না। তারা গ্রামে মারধরসহ অসংখ্য ঘটনায় মামলার আসামি। এমন অপরাধীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি চান গ্রামবাসী। আহত আবু বক্কর সিদ্দিকের ছেলে বগুড়া জেলা ছাত্রলীগের নেতা সজল খন্দকার বাদি হয়ে ঘটনার দিন রাতেই খয়বর ও তার ছেলে মাহবুর, আনোয়ার ও লিটনকে আসামি করে শিবগঞ্জ থানায় লিখিত অভিযোগ করে। পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে।

শিবগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মিজানুর রহমান এ প্রতিবেদক-কে বলেন, ঘটনার তদন্ত সম্পন্ন হয়েছে, মামলা রেকর্ড হবে।