মানিকছড়িতে বন্দুকযুদ্ধে সেনা অফিসার ও ইউপিডিএফ সদস্য গুলিবিদ্ধ, একে-৪৭ উদ্ধার

বুধবার, সেপ্টেম্বর ২৫, ২০১৯

খাগড়াছড়ি: খাগড়াছড়ির মানিকছড়িতে আঞ্চলিক সংগঠন ইউনাইটেড পিপলস ডেমোক্রেটিক ফ্রন্ট –ইউপিডিএফ (প্রসীত) এর সাথে সেনাবাহিনীর গোলাগুলির ঘটনা ঘটেছে। এ ঘটনায় গুলবিদ্ধ এক জন সেনা কর্মকর্তা আহত হয়েছে। এ সময় ঘটনাস্থল থেকে সশস্ত্র ইউপিডিএফ এক সদস্যকে একটি অত্যাধুনিক এসএমজিসহ আটক করেছে সেনা সদস্যরা। বুধবার (২৫ সেপ্টেম্বর) বিকেল সাড়ে ৫ টার দিকে মানিকছড়ি উপজেলার বড়ডলু এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।
নিরাপত্তা বাহিনীর সূত্রে জানা যায়,‘ ইউপিডিএফ সন্ত্রাসীরা অস্ত্রসহ বড়ডলু এলাকায় অবস্থান করছে এমন সংবাদের ভিত্তিতে লক্ষীছড়ি জোনের সেনা সদস্যরা অভিযান চালায়। এসময় সন্ত্রাসীরা সেনাবাহিনীর উপস্থিতি টের পেয়ে এলোপাতাড়ি গুলি চালালে সেনা সদস্যরাও আত্মরক্ষায় পাল্টা গুলি করে। এ সময় সন্ত্রাসীদের গুলিতে লক্ষ্মীছড়ি জোনের উপ-অধিনায়ক মেজর আনিস পায়ে গুলিবিদ্ধ হলে তাকে দ্রুত মানিকছড়ি উপজেলা হাসপাতালে প্রাথমিক চিকিৎসা প্রদান করে চট্টগ্রাম সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। পরে ঘটনাস্থল থেকে তল্লাশী চালিয়ে গুলিবিদ্ধ এক ইউপিডিএফ সন্ত্রাসীকে একটি অত্যাধুনিক এসএমজিসহ আটক করা হয়। তবে তাৎক্ষণিকভাবে আটককৃত সন্ত্রাসীর পরিচয় এখনো পাওয়া যায়নি।
মানিকছড়ি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আমির হোসেন জানান,‘ সেনাবাহিনীর সাথে আঞ্চলিক সংগঠন ইউপিডিএফ এর গুলিবিনিময়ের ঘটনাটি শুনেছি। তবে ঘটনাস্থলে পুলিশ এখনো পৌছাতে পারেনি। ’
মানিকছড়িতে বন্ধুকযুদ্ধের সাথে ইউপিডিএফ জড়িত নয়
খাগড়াছড়ির মানিকছড়ি উপজেলার কুমারী এলাকায় বুধবার ২৫ সেপ্টেম্বর বিকেলের দিকে সংঘটিত বন্ধুকযুদ্ধের ঘটনার সাথে ইউপিডিএফকে জড়িয়ে কতিপয় সংবাদ মাধ্যমে যে খবর প্রকাশিত হয়েছে তা আদৌ সত্য নয় বলে জানিয়েছেন ইউপিডিএফ খাগড়াছড়ি জেলা সংগঠক অংগ্য মারমা।
তিনি বলেন, সেনাবাহিনীর সাথে যেখানে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে সেখানে গতকাল মঙ্গলবার থেকে একটি চিহ্নিত সশস্ত্র সন্ত্রাসী দলের কিছু সদস্য অবস্থান করছিল, যার তথ্য গ্রামবাসীরা সেনাদের কাছে সরবরাহ করেছিল বলে জানা যায়।
অংগ্য মারমা বলেন ইউপিডিএফ একটি গণতান্ত্রিক দল বিধায় সেনাবাহিনীর সাথে তার দলের সদস্যদের বন্দুকযুদ্ধে জড়িত হওয়ার কোন প্রশ্নই উঠতে পারে না।
তিনি ঘটনার সাথে ইউপিডিএফকে মিথ্যাভাবে না জড়িয়ে প্রকৃত তথ্য দেশবাসীকে জানানোর জন্য গণমাধ্যম কর্মীদের প্রতি অনুরোধ জানান।