গাইবান্ধায় স্কুল ছাত্রী ও গৃহবধূ হত্যা

মঙ্গলবার, জানুয়ারি ৮, ২০১৯

সুন্দরগঞ্জ (গাইবান্ধা) প্রতিনিধি : গাইবান্ধার সুন্দরগঞ্জ উপজেলায় গত এক সপ্তাহের ব্যবধানে এক স্কুল ছাত্রী ও এক গৃহবধূকে পিঠিয়ে হত্যা করা হয়েছে। থানা পুলিশ ও স্থানীয়দের নিকট থেকে জানা গেছে, সোমবার উপজেলার কঞ্চিবাড়ি ইউনিয়নের সতিরজান গ্রামের রিয়াজুল হকের ছেলে আতোয়ার রহমান পারিবারিক কলহের জেরধরে স্ত্রী আনোয়ারা বেগমকে পিঠিয়ে হত্যা করে ফাঁসের মধ্যে ঝুলিয়ে রাখার চেষ্টা করে। পরে স্থানীয়দের খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে স্বামী আতোয়ার রহমানকে আটক করে।

লাশের সুরতহাল রিপোট করে ময়না তদন্তের জন্য লাশ মর্গে পাঠিয়েছে। আনোয়ারা বেগম পার্শ¦বর্তী চন্ডিপুর গ্রামের লাল মিয়ার কন্যা। দীর্ঘ ১৬ বছর পূর্বে তাদের বিয়ে হয়। আনোয়ার দুইটি সন্তান রয়েছে। বিয়ের পর থেকে স্বামী ও স্ত্রীর মধ্যে বিরোধ চলে আসছিল। এনিয়ে থানায় মামলার প্রস্তুতি চলছে।

এদিকে গত শনিবার উপজেলার হরিপুর ইউনিয়নের দুর্গম চরাঞ্চল মাদারী পাড়া গ্রামের আব্দুল মজিদ মিয়ার কন্যা কাশিম বাজার বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের ৮ম শ্রেণির ছাত্রী মনিজা খাতুনকে জমি-জমা নিয়ে বিরোধের জের ধরে পিঠিয়ে হত্যা করা হয়েছে।

স্থানীয়রা জানান দীর্ঘদিন থেকে মজিদ মিয়ার সাথে ভাগীশরিক খেলাফত মিয়ার বসতবাড়ির জমি নিয়ে বিরোধ চলে আসছিল। জীবিকার তাগিদে মজিদ মিয়া বাড়িতে না থাকায় ঘটনার দিন মজিদের স্ত্রী শাহিদা বেগমের সাথে বাক্বিতন্ডার এক পর্যায় হাতাহাতি বাধে। এরই ফাঁকে খেলাফতের লোকজনের লাঠির আঘাতে মনিজা গুরুত্বর আহত হয়।

স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে প্রথমে চিলমারি এবং পরে কুড়িগ্রাম সদর হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসক তাকে মৃত্যু ঘোষনা করে। এনিয়ে গত রোববার শাহিদা বেগম বাদী হয়ে ৭ জনকে আসামি করে সুন্দরগঞ্জ থানায় হত্যা মামলা করেছে। ওসি এসএম আব্দুস সোবহান জানান, আসামিদের গ্রেফতারের চেষ্টা অব্যাহত রয়েছে।