প্রশাসন ও আ.লীগ গণশত্রুতে পরিণত হয়েছে: মির্জা ফখরুল

শনিবার, জানুয়ারি ৫, ২০১৯

ঢাকা: প্রশাসন ও আওয়ামী লীগ গণশত্রুতে পরিণত হয়েছে বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

মির্জা ফখরুল বলেন, ‘রাষ্ট্রীয় সন্ত্রাসের মধ্য দিয়ে একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে জনগণের ভোটাধিকার কেড়ে নেয়া হলো আবার। এ ভোটের অধিকার কেড়ে নেয়ার মধ্য দিয়ে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ ও বাংলাদেশের প্রশাসন সম্পূর্ণভাবে গণশত্রুতে পরিণত হয়েছে।’

শনিবার (৫ জানুয়ারি) সকাল ১০ টায় নির্বাচনী সহিংসতায় নোয়াখালীর সুবর্ণচরে ধর্ষণের শিকার নারীকে দেখতে যাওয়ার পথে কুমিল্লা বিশ্বরোডে জমজম হোটেলে সাংবাদিকদের তিনি এসব কথা বলেন।

তিনি বলেন, ‘একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের পূর্বের সহিংসতা, নির্বাচনের দিনের সহিংসতা এবং পরের সহিংসতার মধ্য দিয়ে গোটা বাংলাদেশে একটা সহিংস ত্রাস এবং নৈরাজ্যকর পরিস্থিতির সৃষ্টি করা হয়েছে। আমরা দেখেছি নোয়াখালীতে আমাদের এক বোন ধর্ষিত হয়েছে। আমরা নিন্দা জানিয়েছি, সারা বাংলাদেশে সহিংসতারও আমরা নিন্দা জানিয়েছি এবং জনগণের কাছে আমরা আহ্বান জানাচ্ছি এবং এই সহিংসতাকে তাদের প্রতিরোধ করার প্রয়োজন রয়েছে। আপনারা যারা দায়িত্বে আছেন বিশেষ করে নির্বাচন কমিশনের কাছে আমরা বলেছি এই সহিংসতা সম্পূর্ণভাবে বন্ধ করার জন্য। তাদের উচিৎ হবে এই সহিংসতা বন্ধ করা।’

এর আগে সকাল সাড়ে ৭ টায় বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর সহ জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের বেশ কয়েকজন শীর্ষনেতা গুলশানে বিএনপি চেয়ারপারসনের রাজনৈতিক কার্যালয় থেকে গাড়িবহর যোগে নোয়াখালীর উদ্দেশে রওনা দেন।

গাড়িবহরে আরও উপস্থিত আছেন জেএসডির সভাপতি আ স ম আব্দুর রব, কৃষক শ্রমিক জনতা লীগের সভাপতি বঙ্গবীর কাদের সিদ্দিকী, বিএনপির ভাইস-চেয়ারম্যান মো: শাজাহান, যুগ্ম-মহাসচিব ব্যারিস্টার মাহবুব উদ্দীন খোকন, হারুনুর রশিদ, প্রচার সম্পাদক শহীদ উদ্দীন চৌধুরী এ্যানী প্রমুখ।