দাপুটে পর্ন তারকা এখন ধর্মযাজক!

শনিবার, জানুয়ারি ৫, ২০১৯

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : একসময় ছিলেন জনপ্রিয় পর্ন তারকা। ক্যারিয়ারে বিশ্বের সফল তারকাদের মধ্যে তিনি ছিলেন অন্যতম। প্রতি মাসে আয় করতেন প্রায় ৩০ হাজার ডলার (প্রায় ২৫ লাখ টাকা)। কিন্তু পর্ন জগৎ ছেড়ে তিনি এখন বেছে নিয়েছেন ধর্ম প্রচারের কাজ।

যুক্তরাষ্ট্রের ক্যালিফোর্নিয়ায় বসবাস করেন ব্রিটানি ডি লা মোরা। স্বামীসহ সান দিয়াগোর কর্নারস্টোনের একটি গির্জায় তিনি ধর্ম প্রচার করেন।

নিজের অতীত নিয়ে খুবই উদ্বিগ্ন ব্রিটানি। মাত্র ১৬ বছর বয়সে মেক্সিকো গিয়ে পর্ন ছবিতে অভিনয় শুরু করেছিলেন। তার অভিনীত প্রায় ৩০০ পর্ন ছবি ছড়িয়ে রয়েছে ইন্টারনেটে। এসব ছবি কাউকে না দেখার আহ্বান জানিয়েছেন ব্রিটানি।

ছয় বছর আগে ব্রিটানি এক জটিল রোগে আক্রান্ত হন। এর আগে তিনি পেশার সঙ্গে খাপ খাওয়াতে হেরোইন ও কোকেনে আসক্ত হয়ে পড়েছিলেন। ফলে দূরারোগ্য ব্যাধিতে পড়তে হয় তাকে।

রোগ থেকে মুক্তি পাওয়ার পর তিনি অপরাধবোধ অনুভব করতে থাকেন। একপর্যায়ে আর পুরনো পেশায় ফিরে যাবেন না বলে সিদ্ধান্ত নেন।

ব্রিটানি গণমাধ্যমকে বলেন, আমার অভিনীত ছবিগুলো দেখে যেন একটি মানুষও ক্ষতিগ্রস্ত না হয় সে জন্য আমি ওই ছবি না দেখার অনুরোধ করছি। আমি যখন সেগুলো করেছি তখন পরিচালকদের সঙ্গে চুক্তিবদ্ধ হয়েছিলাম। ফলে সেগুলো বাতিল করা বা ইন্টারনেট থেকে মুছে ফেলার আইনগত অধিকার আমার নেই।

২০১৬ সালে পর্ন জগৎ ছাড়ার পর ধর্ম প্রচারক রিচার্ড ডি লা মোরার সঙ্গে দেখা করেন। তিনি রিচার্ডের প্রতি নিজের মধ্যে দুর্বলতা অনুভব করেন। পরে তারা দুজনে বিয়ে করেন।

ফক্স নিউজকে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে ব্রিটানি বলেন, আমি পুরনো জগৎ ছেড়ে দেয়ায় বর্তমানে সুখে আছি। সব নারীকে অনুরোধ করব কেউ যেন এমন পেশায় না যায়।

ব্রিটানির বর্তমানে একটি সন্তান রয়েছে। তিনি তার সন্তানের ভবিষ্যৎ নিয়েও উদ্বিগ্ন। তার সন্তানকে ভবিষ্যতে মায়ের পেশার কথা শুনতে হবে, এটি ভেবেই তিনি উদ্বিগ্ন।

ব্রিটানি বলেন, আমি খুবই উদ্বেগে আছি। কারণ আমার সন্তান যখন স্কুলে যাবে এবং তার বন্ধুরা তার মায়ের অতীত নিয়ে কথা বলবে। তখন আমার সন্তানের ওপর নেতিবাচক প্রভাব পড়বে।

সূত্র: ডেইলি মেইল