কর্তৃপক্ষের গাফিলতিতে ছাড়েনি কুবির সান্ধ্যকালীন বাস

শনিবার, জানুয়ারি ৫, ২০১৯

কুবি করেসপন্ডেন্ট : কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ে (কুবি) সান্ধ্যকালীন বাস না ছাড়ার অভিযোগ উঠেছে কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে। এ নিয়ে ক্যাম্পাস থেকে শহরগামী শিক্ষার্থীদের মাঝে ক্ষোভের সৃষ্টি হয়। শিক্ষার্থীদের অভিযোগ পরিবহন কমিটির গাফলতির কারণে সান্ধ্যকালীন বাস ছেড়ে যায়নি।

জানা যায়, বন্ধের দিন ব্যতীত প্রতিদিন সন্ধ্যা ৭ টায় ক্যাম্পাস থেকে শহরে একটি বাস ছেড়ে যায় এবং রাত সাড়ে ৮ টায় শহর থেকে ক্যাম্পাসে ফিরে। কিন্তু বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা ৭ টায় শহরের উদ্দেশ্যে কোনো বাস ছেড়ে না যাওয়ায় শহরমুখী শিক্ষার্থীরা বিপদে পড়ে যায়। বিভিন্ন কাজে শহরে যাওয়ার জন্য এসে শিক্ষার্থীরা বাস না পেয়ে সিএনজি করে শহরে যেতে হয়। ভোক্তভোগী শিক্ষার্থী খোরশেদ আলম বলেন,’আমরা সাংস্কৃতিক সংগঠনের কাজ শেষ করে বাসের জন্য অপেক্ষা করে বসে আছি। কিন্তু এখন শুনি বাস নেই। এখন অনেক কষ্ট করে শহরে যেতে হচ্ছে।’

বাস না পেয়ে অনেক শিক্ষার্থী সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে পরিবহন কমিটির সমালোচনা করেন। বিশ্ববিদ্যালয়ের সাংস্কৃতিক জোটের সভাপতি মেহেদী হাসান ফেইসবুক স্ট্যাটাসে বলেন,’২০ থেকে ২৫ জন শিক্ষার্থী বাসের জন্য অপেক্ষা করে বাস পায়নি। ধিক্কার বিশ্ববিদ্যালয়ের পরিবহন সংশ্লিষ্ট সকল কর্মকর্তাকে।’ তিনি প্রশ্ন রাখেন কেন সন্ধ্যাকালীন বাস বন্ধ করে দেয়া হয়েছে।

অন্যদিকে সন্ধ্যার বাসের ড্রাইভার সুজন বলেন,’বাস ছাড়ার সময় মাত্র একজন শিক্ষার্থী ছিল। তাই পরিবহন কমিটির প্রধানের নির্দেশে বাস বন্ধ রেখেছি।’ এ বিষয়ে জানতে চাওয়া হলে পরিবহন কমিটির দায়িত্বে থাকা কর্মকর্তা জিল্লুর রহমান বলেন,’ক্যাম্পাসে শিক্ষার্থী কম থাকার কারণে আজকে বাস ছেড়ে যায়নি। আগামী রবিবার থেকে বাস নিয়মিত চলবে।’

বিশ্ববিদ্যালয়ের পরিবহন কমিটির প্রধান স্বপন চন্দ্র মজুমদার বলেন,’সন্ধ্যার বাসের ড্রাইভার আমাকে ফোন করে বললো একজন শিক্ষার্থী রয়েছে। তাই আমি বাস ছাড়তে না করি। অধিক শিক্ষার্থী থাকার বিষয়টি আমি জানতাম না।’ একজন শিক্ষার্থী থাকলে কি বাস না ছাড়ার নিয়ম আছে এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন,’না কোনো নিয়ম নেই তবে পরিবহন খাতের ক্ষতি হবে ভেবে একজন শিক্ষার্থী থাকায় বাস ছাড়া থেকে বিরত ছিলাম। সামনে থেকে নিয়মিত চলবে।’