এমন ‘কলঙ্কিত উলঙ্গ’ ভোট ডাকাতি আর দেখিনি: রব

শনিবার, জানুয়ারি ৫, ২০১৯

ঢাকা : ভোট নিয়ে জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল-জেএসডি’র সভাপতি আ স ম আবদুর রব বলেছেন, ‘আজ জনমনে প্রশ্ন এসেছে ভোট নিয়ে। কেমন হলো ভোট? ভোট তো আসলে হয়ই নাই। কারণ, ভোটের তারিখ ছিলো ৩০ ডিসেম্বর। কিন্তু ব্যালট তো শেষ ২৯ তারিখেই।’

শনিবার (৫ জানুয়ারি) বিকেলে নোয়াখালীর জজ কোর্ট এলাকায় জেলা আইনজীবী সমিতির এক মতবিনিময় সভায় তিনি এসব কথা বলেন।

রব বলেন, ‘আমি ১৯৫৪ সালে ভোট দিতে গিয়েছি, সেই থেকে এই পর্যন্ত সব ভোট দেখেছি, ভোটে অংশগ্রহণ করেছি। পৃধিবীর বিভিন্ন দেশের ভোটের ইতিহাস আমি পড়েছি। এই ধরনের কলঙ্কিত উলঙ্গ ভোট ডাকাতি নয়, মহা ডাকাতি। এরকম ভোট কোখাও হয়েছে কিনা আমার জানা নেই। এই ঘৃণা প্রকাশ করার ভাষা নেই।’

তিনি আরও বলেন, ‘সারা বাংলাদেশ সুবর্ণচর হয়ে যাবে। মা-বোন-মেয়ে নিয়ে মান ইজ্জতের সাথে বেঁচে থাকবেন কিভাবে? এরা (বর্তমান সরকার) হায়েনা। এদের খপ্পরে আক্রমণে সুবর্ণচরের এক মহিলার শরীর ক্ষত-বিক্ষত হয়ে গেছে, তার শরীরে সিগারেটের স্যাগা দিয়েছে। আমার সেই বোনকে আমরা দেখতে এসেছি।’

নেতাকর্মীদের প্রতি আহ্বান জানিয়ে ঐক্যফ্রন্টের এই শীর্ষ নেতা আরও বলেন, ‘একাত্তরে যেভাবে পাকিস্তানি হানাদার বাহিনীর বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়িয়েছেন, এই হায়েনাদের বিরুদ্ধেও একইভাবে রুখে দাঁড়ান। রুখে না দাঁড়ালে মান-ইজ্জত নিয়ে কেউ বাঁচতে পারবেন না। এই হায়েনারদের রুখতে হবে, এই জালেমদের রুখতে হবে, এই জানোয়ারদের রুখতে হবে।’

একাদশ নির্বাচনে সংসদ সদস্যদের শপথগ্রহণ ‘অবৈধ’ উল্লেখ করে তিনি বলেন, ‘উনি (শেখ হাসিনা) তড়িঘড়ি করে শপথ নিয়েছেন। আপনি তো ভোটে জিতেন নাই। আপনার শপথ নেয়া বেআইনি। এই সংসদ (দশম) এর মেয়াদ আছে ২৮ জানুয়ারি পর্যন্ত।

সেই সংসদ বাতিল করা হয়েছে, এটা আমি কোনও পত্রিকায় দেখি নাই। ওই সংসদ বাতিল না করে কিভাবে শপথ নিলেন আপনারা। এই শপথ বেআইনি ও অবৈধ। আপনার (শেখ হাসিনা) শপথ সংবিধানবিরোধী ও নীতি নৈতিকতা বিরোধী।’

জনগণকে সঙ্গে নিয়ে জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট সরকার পতনের জোর আন্দোলন গড়ে তুলবে বলেও এসময় হুঁশিয়ারি দেন রব।

সভায় বিএনপি মহাসচিব ও ঐক্যফ্রন্টের মুখপাত্র মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, কৃষক শ্রমিক জনতা লীগের চেয়ারম্যান বঙ্গবীর আবদুল কাদের সিদ্দিকী উপস্থিত ছিলেন।