সালথায় আ’লীগের দুপক্ষের সংঘর্ষে শটগানের গুলি, আহত ৩৫

বুধবার, জানুয়ারি ২, ২০১৯

নগরকান্দা (ফরিদপুর) প্রতিনিধি : ফরিদপুরের সালথা উপজেলার সোনাপুর ইউনিয়নের ফুকরা গ্রামে বুধবার সকালে আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে আওয়ামী লীগের দুপক্ষের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে।

এ সংঘর্ষে কমপক্ষে ৩৫ জন আহত হয় এবং সংঘর্ষের সময় অন্তত ১৫টি বাড়িঘর ভাঙচুরের ঘটনা ঘটে। পরিস্থিতি শান্ত করতে ৫ রাউন্ড শটগানের গুলি ও ১৮টি টিয়ারশেল নিক্ষেপ করে পুলিশ। এ ঘটনার সঙ্গে জড়িত থাকার সন্দেহে ৭ জনকে আটক করেছে পুলিশ।

আহতদের ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল, নগরকান্দা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সসহ বিভিন্ন হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

স্থানীয়রা জানান, সালথা উপজেলা যুবলীগের সভাপতি ও সোনাপুর ইউপির চেয়ারম্যান খায়রুজ্জামান বাবু মোল্লার সমর্থকদের সঙ্গে সালথা উপজেলা আওয়ামী লীগের সদস্য ও সোনাপুর ইউপির সাবেক চেয়ারম্যান জাফর মোল্লার সমর্থকদের আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে ও পূর্বশত্রুতার জের ধরে বুধবার সকালে সংঘর্ষ বাধে। উভয়পক্ষ দেশীয় অস্ত্র রামদা, ছ্যানদা, ঢাল, সরকি, কাতরা, ইটপাটকেল নিয়ে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে।

প্রায় দুই ঘণ্টাব্যাপী ধাওয়া-পাল্টাধাওয়া ও সংঘর্ষে কমপক্ষে ৩৫ জন আহত হয় এবং এ সময় অন্তত ১৫টি বাড়িঘর ভাঙচুরের ঘটনা ঘটে। পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনেন।

সালথা থানার ওসি দেলোয়ার হোসেন খান বলেন, সংঘর্ষের খবর পেয়ে ফোর্স নিয়ে ঘটনাস্থলে যাই। পরিস্থিতি শান্ত করতে ৫ রাউন্ড শটগানের গুলি ও ১৮টি টিয়ারশেল নিক্ষেপ করা হয়। এ ঘটনার সঙ্গে জড়িত থাকার সন্দেহে ৭ জনকে আটক করা হয়েছে। পরিস্থিতি শান্ত ও নিয়ন্ত্রণে রাখতে এলাকায় অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন রাখা হয়েছে।