রুল জারি হলেও নির্বাচনে বাধা নেই ২৫ জামায়াত নেতার

বৃহস্পতিবার, ডিসেম্বর ২৭, ২০১৮

ঢাকা : জামায়াতে ইসলামীর ২৫ প্রার্থীর নির্বাচনে অংশ নিতে নির্বাচন কমিশনের দেয়া সিদ্ধান্ত কেন অবৈধ হবে না জানতে চেয়ে রুল জারি করেছেন হাইকোর্ট। কিন্তু আদালত প্রার্থিতার বিষয়ে কোন নিষেধাজ্ঞা বা স্থগিতাদেশ না দেয়ায় তাদের নির্বাচনে অংশ নিতে কোন বাধা নেই বলে জানিয়েছেন আইনজীবীরা।

আজ বৃহস্পতিবার (২৭ ডিসেম্বর ) বিচারপতি জে বিএম হাসান ও বিচারপতি খায়রুল আলমের হাইকোর্ট বেঞ্চ এ আদেশ দেন।

এর আগে সকালে ইসির সিদ্ধান্ত চ্যালেঞ্জ করে দায়ের করা আবেদনের ওপর শুনানি শুরু হয়। আবেদনের পক্ষে শুনানি করেন ব্যারিস্টার তানিয়া আমীর। জামায়াত নেতাদের পক্ষে ছিলেন আইনজীবী রুহুল কুদ্দুস কাজল।

শুনানিতে তানিয়া আমীর আদালতকে বলেন, জামায়াতের গঠনতন্ত্র গণপ্রতিনিধিত্ব অধ্যাদেশের (আরপিও) সঙ্গে সাংঘর্ষিক, সংবিধানের ৮-১১ এর সঙ্গে সাংঘর্ষিক।

এ সংগঠনে অমুসলিমরা সদস্য হতে পারে না, এটাও আরপিওর সঙ্গে সাংঘর্ষিক। তারা সংসদে বিশ্বাস করে না, সংসদে আইন হতে পারে তারা তা বিশ্বাস করে না। এ অবস্থায় নির্বাচন কমিশন তাদের নির্বাচন করতে দিতে পারে না। এটি আরপিও অনুযায়ী হয়নি।
গত ২৩ ডিসেম্বর জামায়াতের ২৫ প্রার্থীর প্রার্থিতা বহাল রাখে নির্বাচন কমিশন (ইসি)। প্রার্থিতা বাতিলের সুযোগ ইসির হাতে নেই বলেই তাদের প্রার্থিতা বহাল রাখার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়।

এর আগে, জামায়াতের ২৫ প্রার্থীর নির্বাচনে অংশ নেয়ার বিষয়ে হাইকোর্টে রিট দায়ের করেন তরিকত ফেডারেশনের মহাসচিবসহ চার জন। তাদের আবেদন তিন দিনের মধ্যে নিষ্পত্তি করতে ১৮ ডিসেম্বর নির্বাচন কমিশনকে নির্দেশ দেন হাইকোর্ট। উচ্চ আদালতের সেই আদেশের চিঠি বৃহস্পতিবার (২০ ডিসেম্বর) ইসিতে পৌঁছায়।