নির্বাচনী প্রচারণা থেকে সরে দাঁড়ালেন ধানের শীষের আমিনুল

মঙ্গলবার, ডিসেম্বর ২৫, ২০১৮

রাজশাহী : নির্বাচনী প্রচারণা থেকে সরে দাঁড়ালেন রাজশাহী-১ আসনের বিএনপি প্রার্থী ব্যারিস্টার আমিনুল হক। বিএনপির নেতাকর্মীদের আটক, পোস্টার ছিঁড়ে ফেলা ও বিভিন্ন স্থানে হামলার প্রতিবাদে তিনি এ সিদ্ধান্ত নিয়েছেন বলে জানিয়েছেন।

মঙ্গলবার (২৫ ডিসেম্বর) বিকালে তিনি ভোটের প্রচার-প্রচারণা স্থগিত করে নির্বাচনী এলাকায় যাওয়া থেকে বিরত থাকেন বলে জানিয়েছেন গোদাগাড়ী উপজেলা বিএনপির দফতর সম্পাদক আব্দুল মালেক।

তিনি বলেন, সোমবার (২৪ ডিসেম্বর) দিবাগত রাতে প্রার্থীর গাড়ি থেকে বিএনপি নেতাকে নামিয়ে নিয়ে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। সাদা পোশাকের পুলিশ প্রার্থী ব্যারিস্টার আমিনুল হকর বাড়ি ঘিরে রাখে। এছাড়া বিভিন্ন জায়গায় ধানের শীষের পোস্টার ছিঁড়ে ফেলা, প্রচারণায় বাধা, বিএনপি নেতাকর্মীদের ওপর হামলার ঘটনা ঘটছে। এ কারণে পরিস্থিতি স্বাভাবিক না হওয়া পর্যন্ত তিনি নির্বাচনী প্রচারণা স্থগিত করেছেন।

তিনি বলেন, মঙ্গলবার ব্যারিস্টার আমিনুল হক রিটানিং অফিসারের সঙ্গে দেখা করে লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন।

উল্লেখ্য, সোমবার রাতে গোদাগাড়ীতে উপজেলা বিএনপির সভাপতিসহ তিনজনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। ধানের শীষের প্রচার শেষে বাড়ি ফেরার পথে তাদের গ্রেপ্তার করা হয়। নির্বাচনে নাশকতার পরিকল্পনার অভিযোগে তাদের গ্রেফতার করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন সহকারি পুলিশ সুপার ও জেলা পুলিশের মুখপাত্র আব্দুর রাজ্জাক খান।

গ্রেফতারকৃতরা হলেন, গোদাগাড়ী উপজেলা বিএনপির সভাপতি আবদুস সালাম সাওয়াল, গোদাগাড়ী পৌরসভা বিএনপির সভপতি মজিবর রহমান ও সাধারণ সম্পাদক আনোয়ারুল হক চৌধুরী।

সহকারি পুলিশ সুপার আব্দুর রাজ্জাক খান বলেন, উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় আওয়ামী লীগের নির্বাচনী কার্যালয় ভাঙচুর, অগ্নিসংযোগ ও পোস্টার ছিঁড়ে ফেলার জন্য বিএনপির নেতাকর্মীদের নির্দেশনা দেয়ার অভিযোগ রয়েছে তাদের বিরুদ্ধে। এছাড়াও নির্বাচন কেন্দ্র করে নাশকতার পরিকল্পনার অভিযোগ রয়েছে। সন্ত্রাস দমন আইন ও নির্বাচনী কার্যালয় ভাঙচুর ও অগ্নিসংযোগের মামলায় তাদের গ্রেফতার দেখিয়ে দুপুরে আদালতে চালান দেয়া হয়েছে।