টাইগারদের বোলিং তোপে উইন্ডিজের সংগ্রহ ১৯০

শনিবার, ডিসেম্বর ২২, ২০১৮

ঢাকা: তিন ম্যাচ টি-টোয়েন্টি সিরিজের প্রথম ম্যাচ হেরে ব্যাকফুটে যাওয়া টাইগাররা দ্বিতীয় ম্যাচে জয় তুলে নেয়। তৃতীয় ম্যাচে টস জিতে ফিল্ডিং করে বাংলাদেশ। ১৯.২ ওভারে অলআউট হওয়ার আগে উইন্ডিজরা তোলে ১৯০ রান। জয়ের জন্য বাংলাদেশের লাগবে ১৯১ রান।

আজ শনিবার (২২ ডিসেম্বর) মিরপুর শের-ই-বাংলা জাতীয় স্টেডিয়ামে সিরিজের তৃতীয় বা শেষ ম্যাচে বিকেল পাঁচটায় মুখোমুখি হয় দুই দল। টস জিতে ফিল্ডিংয়ের সিদ্ধান্ত নেন টাইগার দলপতি সাকিব আল হাসান।

উইন্ডিজদের উদ্বোধনী জুটিতে নামেন শাই হোপ এবং এভিন লুইস। ৫ ওভারেই তারা তুলে নেন ৭৬ রান। পঞ্চম ওভারের শেষ বলে সাকিব বোল্ড করে ফেরান ১২ বলে তিনটি চার আর একটি ছক্কায় ২৩ রান করা শাই হোপকে। পাওয়ার প্লের ৬ ওভারে সফরকারীরা তুলে নেয় ৮৮ রান। ১৮ বলে নিজের ফিফটি তুলে নেন এভিন লুইস। ইনিংসের সপ্তম ওভারে মোস্তাফিজ ফিরিয়ে দেন কেমো পলকে (২)।

অবশেষে লুইস ঝড় থামান মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। ইনিংসের দশম ওভারে সাকিব বল তুলে দেন তার হাতে। নিজের দ্বিতীয় বলেই লুইসকে বোল্ড করেন রিয়াদ। বিদায়ের আগে যা করার করেন লুইস। ক্যারিবীয়ান এই ওপেনার ৩৬ বলে ৬টি চার আর ৮টি ছক্কায় করেন ৮৯ রান। পরের বলেই এলবির ফাঁদে পড়েন শিমরন হেটমেয়ার। হ্যাটট্রিকের সম্ভাবনা জাগলেও হয়নি। ইনিংসের ১৪তম ওভারে রিয়াদের বলে লিটনের হাতে ক্যাচ তুলে দেন ১৬ বলে ১৯ রান করা রোভম্যান পাওয়েল।

ইনিংসের ১৭তম ওভারে মোস্তাফিজ এসে ফিরিয়ে নিকোলাস পুরানকে। আবু হায়দার দারুণ এক ক্যাচ নেন। বিদায়ের আগে ২৪ বলে দুটি চার আর দুটি ছক্কায় পুরান করেন ২৯ রান। একই ওভারে মোস্তাফিজ ফেরান কার্লোস ব্রাথওয়েইটকে। স্লিপে মেহেদি মিরাজের দুর্দান্ত এক ক্যাচে ফেরার আগে উইন্ডিজ দলপতি ৭ বলে করেন ৮ রান। ১৯তম ওভারে সাকিব ফিরিয়ে দেন ফ্যাবিয়ান অ্যালেনকে (৮)। স্ট্যাম্পিংয়ের ফাঁদে পড়েন তিনি। একই ওভারে অভিষিক্ত শেরফানে রাদারফোর্ডকেও (২) বিদায় করেন সাকিব। মাহমুদউল্লাহর করা শেষ ওভারের দ্বিতীয় বলে রানআউট হন ওশানে থমাস।

৪ ওভারে ৩৭ রানে সাকিব তিনটি উইকেট নেন। ৪ ওভারে ৩৩ রান দিয়ে মোস্তাফিজ নিয়েছেন তিনটি উইকেট। মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ ৩.২ ওভারে মাত্র ১৮ রান খরচ করে নিয়েছেন তিনটি উইকেট। ৪ ওভারে ৩৬ রান দিয়ে কোনো উইকেট পাননি সাইফউদ্দিন। মিরাজ ২ ওভারে ২৬ রান দিয়ে কোনো উইকেট পাননি। আবু হায়দার রনি ২ ওভারে ৩৯ রান দিয়ে উইকেটশূন্য থাকেন।