‘আমাদেরও মাফ করুন’প্রধানমন্ত্রীকে মান্না

শুক্রবার, ডিসেম্বর ২১, ২০১৮

ঢাকা: প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনাকে উদ্দেশ করে জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের নেতা ও নাগরিক ঐক্যের আহ্বায়ক মাহমুদুর রহমান মান্না বলেছেন, এত দিন পর আমাদের প্রধানমন্ত্রী বলেছেন, যদি কোনও ভুল হয়ে থাকে, তবে মাফ করে দেবেন।

তিনি বলেন, আমরা ভালো মানুষ, আমাদের মনে দয়া আছে, আমরা মাফ করতে চাই। একই সঙ্গে আমরা বলি, আমাদেরও মাফ করুন, এখন পর্যন্ত যে অত্যাচার করেছেন।

শুক্রবার বেলা সাড়ে ৩টায় নারায়ণগঞ্জের বন্দর উপজেলার সোনাকান্দা স্কুল মাঠে আয়োজিত জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের নির্বাচনী জনসভায় তিনি এসব কথা বলেন।

মান্না বলেন, ‘সভা করার জন্য ট্রাকের ওপর দাঁড়িয়ে আছি কেন? এখানে তো মঞ্চ হওয়ার কথা ছিল। সারা মাঠে মাইক থাকার কথা ছিল। সমস্ত বন্দরের লোক আজকের এই জনসভা শোনার জন্য তৈরি ছিল। এত কিছুর পরেও কি কথা শোনানো বন্ধ করা গেছে?’

প্রধানমন্ত্রীকে উদ্দেশ করে ঐক্যফ্রন্টের এই নেতা বলেন, ‘মনে করেছিলেন, সামনে ভোট। গতবার তো আরাম-আয়েশে, হেলে-খেলে ভোট করলেন। একটি ম্যাচে প্রতিপক্ষে আর কোনও টিম ছিল না। এরপর ৫ বছর ক্ষমতায় থাকলেন। মানুষের ওপর অত্যাচার চললো। বললেন, দেশে গণতন্ত্র কায়েম করছি।’

মাহমুদুর রহমান মান্না আরও বলেন, ৫ বছর পর যখন আবার ভোট আসলো, এখনও মনে করছেন, আবারও গতবারের মতো, ২০১৪ সালের মতো প্রতিপক্ষ দল ওয়াকওভার দিয়ে যাবে, আমরা বলছি তা হবে না। এবার আমরা মাঠে আছি। এবারে খেলা হবে।

তিনি অভিযোগ করে বলেন, ‘দেশে যেখানেই গিয়েছি, সেখানেই সভা করতে বাধা দেওয়া হয়েছে। মিছিল করতে দেওয়া হয়নি। মাইক কেড়ে নেওয়া হয়েছে। প্রচারণা চালাতে দেওয়া হয়নি। মঞ্চ বানাতে দেওয়া হয়নি। মামলা-গ্রেফতার চলছে। তবু জনগণের কণ্ঠরোধ করতে পারেনি। আমরা জিতবোই।’

মাহমুদুর রহমান মান্না বলেন, ‘৫ বছর সহ্য করেছি। এখনও সহ্য করছি। ২৯ তারিখ পর্যন্ত সহ্য করব। আমরা নিরীহ-শান্তিপূর্ণ মানুষ। শান্তির দেশ গড়তে চাই। তার জন্য জনগণের অধিকার চাই, ভোটের অধিকার চাই।’

মান্না বলেন, ‘মা-বোন, ভাই-বন্ধু, বাবা-ছেলে সবাই আগামী ৩০ তারিখে ভোট দিতে যাবেন। ৮টা থেকে ১১টার মধ্যে ভোট দিয়ে বাড়িতে ফিরে নাশতা সেরে আবারও ভোটকেন্দ্রে যাবেন। এরপর ভোট গণনা শেষে বাসায় ফিরবেন।’

সামবেশে সভাপতিত্ব করেন নারায়ণগঞ্জ মহানগর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক এ টি এম কামাল।

সামবেশে বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, গণস্বাস্থ্যকেন্দ্রের প্রতিষ্ঠাতা ডা. জাফরউল্লাহ চৌধুরী, চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা তৈমূর আলম খন্দকার, নারায়ণগঞ্জ-৫ আসনে জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের প্রার্থী এস এম আকরাম, নারায়ণগঞ্জ-৪ আসনের প্রার্থী মনির হোসাইন কাসমী, নারায়ণগঞ্জ-২ আসনের প্রার্থী নজরুল ইসলাম আজাদ, নারায়ণগঞ্জ-১ আসনের প্রার্থী কাজী মনিরুজ্জামান মনির, সাম্যবাদী দলের সাঈদ হাসান প্রমুখ বক্তব্য দেন।

প্রসঙ্গত, গত ১৯ ডিসেম্বর আওয়ামী লীগের নির্বাচনী ইশতেহার ঘোষণার সময় দেশবাসীর প্রতি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নিজের ও সহকর্মীদের ভুল-ত্রুটিগুলো ক্ষমাসুন্দর দৃষ্টিতে দেখার অনুরোধ জানিয়েছিলেন।

এদিন প্রধানমন্ত্রী বলেন, মানুষ মাত্রই ভুল হয়। কাজ করতে গিয়ে আমার বা আমার সহকর্মীদেরও ভুলভ্রান্তি হয়ে থাকতে পারে। আমি নিজের ও দলের পক্ষ থেকে আমাদের ভুলভ্রান্তিগুলো ক্ষমাসুন্দর চোখে দেখার জন্য দেশবাসীর প্রতি সনির্বন্ধ অনুরোধ জানাচ্ছি।