বিনা গোসলে অজু করে নামাজ পড়লে হবে কি?

বৃহস্পতিবার, ডিসেম্বর ২০, ২০১৮

ঢাকা : নামাজ, রোজা, হজ, জাকাত, পরিবার, সমাজসহ জীবনঘনিষ্ঠ ইসলাম বিষয়ক প্রশ্নোত্তর অনুষ্ঠান ‘আপনার জিজ্ঞাসা’। জয়নুল আবেদীন আজাদের উপস্থাপনায় দেশের বেসরকারি একটি টেলিভিশনের জনপ্রিয় এ অনুষ্ঠানে দর্শক-শ্রোতাদের বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তর দেয়া হয়।

নামাজ, রোজা, হজ, জাকাত, পরিবার, সমাজসহ জীবনঘনিষ্ঠ ইসলামবিষয়ক প্রশ্নোত্তর অনুষ্ঠান ‘আপনার জিজ্ঞাসা’। জয়নুল আবেদীন আজাদের উপস্থাপনায় এনটিভির জনপ্রিয় এ অনুষ্ঠানে দ‍র্শকের বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তর দেন বিশিষ্ট আলেম ড. মুহাম্মদ সাইফুল্লাহ।

অনুষ্ঠানটির ২১৭০তম পর্বে দর্শক-শ্রোতাদের বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তর দেন বিশিষ্ট আলেম ড. মুহাম্মদ সাইফুল্লাহ। এই পর্বে ঢাকা থেকে চিঠিতে একজন দর্শক জানতে চেয়েছেন- কোনো কারণে কেউ গোসল করতে না পারলে অজু করে নামাজ পড়লে নামাজ হবে কি না।

প্রশ্ন: ওয়াজে শুনেছি মুমিনরা কখনও অপবিত্র হয় না। কোনো কারণে কেউ গোসল করতে না পারলে অজু করে নামাজ পড়লে তার নামাজ হবে কি?

উত্তর: প্রথম কথা হচ্ছে আপনি যে বলেছেন, ওয়াজে শুনেছেন, ‘মুমিনগণ অপবিত্র হয় না’ ব্যাপারটি এমন নয়।

হাদিসের বক্তব্য হচ্ছে, ‘মুমিন ব্যক্তি স্বভাবগতভাবে বা স্বভাবজাতভাবে অপবিত্র নয়।’ এই অর্থ যদি কেউ না বুঝে তাহলে তিনি হাদিসটিই বোঝেন নি। তিনি জাহিল, মূর্খ, হাদিসের জ্ঞান তার মধ্যে নেই। যদি মুমিন ব্যক্তি অপবিত্র না হতো তাহলে তো তার গোসল করার বা অজু করারই প্রয়োজন হতো না।

স্বভাব এবং সৃষ্টিগতভাবে ঈমানদার ব্যক্তিগণ ঈমানের কারণে তাহারাতের মধ্যে রয়েছেন। কোনো অবস্থায় তারা অপবিত্র হবে না। তারা মানসিকভাবে অপবিত্র নন।

কিন্তু এর অর্থ এই নয় যে তারা অপবিত্র হবে না, তাদের ওপর গোসল ফরজ হবে না। জৈবিক কারণে তারা অপবিত্র হতেই পারে যার কারণে তাদের ওপর অজু ফরজ হবে। তাদের ওপর অজু, গোসল ফরজ হবে এবং গোসল ফরজ হলে তাদের গোসল করতেই হবে।

কিন্তু ওজর থাকলে সেটি ভিন্ন মাসআলা। আপনি তো ওজোরের কথা উল্লেখ করেননি। বরং আপনি এই ওয়াজ থেকে বুঝতে পেরেছেন যে, যেহেতু ঈমানদারগণ অপবিত্র হয় না তাহলে আর অপবিত্র হলাম না।

আপনি অপবিত্রতার কাজ করেও, পবিত্র থেকে যাবেন, এটি আসলে কোনো যুগে কোনো আলেম বলেননি। এটি আলেমদের বক্তব্য নয়, এটি জাহিলদের বক্তব্য।