একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন

খালেদা জিয়ার ছবি ব্যবহার করতে পারবে না ঐক্যফ্রন্টের শরিকরা

বুধবার, ডিসেম্বর ১৯, ২০১৮

ঢাকা: জাতীয় ঐক্যফ্রন্টে বিএনপির শরিকেরা পোস্টার, ব্যানার বা অন্য কোনো প্রচার উপকরণে দলীয় প্রধান হিসেবে খালেদা জিয়ার ছবি ব্যবহার করতে পারবেন না। বুধবার (১৯ ডিসেম্বর) বিকেলে নির্বাচন কমিশন (ইসি) থেকে এই কথা জানিয়ে বিএনপিকে চিঠি দেওয়া হয়েছে।

ইসি সচিবালয়ের অতিরিক্ত সচিব মোখলেসুর রহমান বলেন, আইন অনুযায়ী কার ছবি ব্যবহার করা যাবে বা কার ছবি ব্যবহার করা যাবে না—ইসি সে বিষয়ে ব্যাখ্যা দিয়েছে। কোন দল কার ছবি ব্যবহার করবে, সে বিষয়ে ইসি কোনো নির্দেশনা দেয়নি।

বিএনপিকে লেখা ইসির চিঠিতে বলা হয়েছে—গণপ্রতিনিধিত্ব আদেশ (আরপিও) অনুযায়ী স্বতন্ত্র প্রার্থীরা পোস্টার বা ব্যানারে নিজের ছবি ও প্রতীক ছাড়া অন্য কোনো ছবি ছাপাতে পারবেন না। কোনো প্রার্থী নিবন্ধিত রাজনৈতিক দলের মনোনীত হলে তিনি নিজের ছবি ও প্রতীকের পাশাপাশি দলীয় প্রধানের ছবি ছাপাতে পারবেন।

চিঠিতে আরও বলা হয়েছে, কোনো নিবন্ধিত রাজনৈতিক দল জোটভুক্ত হয়ে নির্বাচন করলে তাঁদের প্রার্থী জোটভুক্ত অন্য দলের প্রতীক ব্যবহার করতে পারবে। কিন্তু নিজ দলের প্রধানের ছবি ছাড়া অন্য কোনো দলের প্রধানের ছবি ব্যবহার করতে পারবে না।

এর আগে গত সপ্তাহে এই বিষয়ে ব্যাখ্যা চেয়ে বিএনপি থেকে ইসিকে চিঠি দেওয়া হয়েছিল। চিঠিতে বিএনপি থেকে জানতে চাওয়া হয়—ঐক্যফ্রন্টের শরিক দলগুলোর কেউ কেউ দলীয় প্রধান হিসেবে বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার ছবি ব্যবহার করতে চায়।

প্রসঙ্গত, গত বৃহস্পতিবার (১৩ ডিসেম্বর) নির্বাচন কমিশনের (ইসি) সচিব হেলালুদ্দীন আহমেদ জানিয়েছেন, শুধুমাত্র বিএনপির প্রার্থীরাই পোস্টার, ব্যানার, ফেস্টুনে দলের চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার ছবি ব্যবহার করতে পারবে।

জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট ও ২০ দলীয় জোটের নিবন্ধিত শরিক দলের প্রার্থীদের পোস্টারে বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার ছবি ব্যবহার প্রসঙ্গে ইসি সচিব বলেন, ‘নিবন্ধিত কোনও দলের প্রার্থী তাদের জোটের প্রতীক ব্যবহার করতে পারলেও, ওই দলের প্রধানের ছবি পোস্টারে ব্যবহার করতে পারবে না। যারা দলের মনোনীত প্রার্থী তারাই কেবল দলীয় প্রধানের ছবি ব্যবহার করতে পারবে।’

এর আগে, বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় ইসিতে চিঠি দিয়ে ঐক্যফ্রন্ট ও ২০ দলীয় জোটের প্রার্থীদের পোস্টারে খালেদা জিয়ার ছবি ব্যবহারের অনুমতি চায় বিএনপির একটি প্রতিনিধি দল। এর প্রেক্ষিতেই ইসি সচিব এসব কথা জানান।

ইসি সচিব হেলালুদ্দীন আহমেদ আরও বলেন, ‘ইসি সিদ্ধান্ত নিয়েছে, আগামী ২৪ ডিসেম্বর সেনাবাহিনী মোতায়েন করা হবে। তারা ২ জানুয়ারি পর্যন্ত মাঠে থাকবে। সেনাবাহিনী স্ট্রাইকিং ফোর্স হিসেবে কাজ করবে।’

এক প্রশ্নের জবাবে ইসি সচিব বলেন, ‘২২ ডিসেম্বর থেকে বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি) মোতায়েন হবে বলে প্রাথমিকভাবে আলোচনা হয়েছে। শনিবার এ বিষয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত হবে।’