এই মুহূর্তে বাংলাদেশে গণতন্ত্র সম্ভবত ‘অস্থিতিশীল’

বুধবার, ডিসেম্বর ১৯, ২০১৮

ঢাকা : বাংলাদেশে আসন্ন ৩০ ডিসেম্বরের নির্বাচনে নিয়ে এখন দেশের ভেতরে যেমন সমস্ত আলাপ-আলোচনা তেমনি আগ্রহ তৈরি হয়েছে যুক্তরাজ্যসহ বিভিন্ন দেশে বসবাসকারী বাংলাদেশীদের মধ্যেও।

ব্রিটেনের বাংলাদেশী কমিউনিটির একটি অংশ – যারা প্রধানত অপেক্ষাকৃত বয়স্ক তারা নিয়মিত বাংলাদেশের রাজনীতি ও ঘটনাপ্রবাহের ওপর নজর রাখেন, প্রবাসী টিভি চ্যানেলগুলোতে এ নিয়ে আলোচনা-বিতর্কও হয়।

কিন্তু অপেক্ষাকৃত তরুণরা বাংলাদেশের রাজনীতি, গণতন্ত্র এবং আসন্ন ভোট নিয়ে কতটা আগ্রহী?

ব্রিটিশ-বাংলাদেশী রেডিও উপস্থাপক, বিবিসির এশিয়ান নেটওয়ার্কের উপস্থাপক নাদিয়া আলি বলেন, সবসময় তাদের মধ্যে একধরনের আগ্রহ থাকে – বাংলাদেশে কী হচ্ছে, নির্বাচনে কে জিতবে সেটা নিয়ে।

“সবসময় ইন্টারেস্ট (আগ্রহ) থাকে – বাংলাদেশে কী হচ্ছে, নির্বাচনে কে উইন করছে (জিতছে) সেটা নিয়ে”।

এই আগ্রহের পেছনে কারণ কী?
“আমার ক্ষেত্রে আমার জন্ম, বেড়ে ওঠা ইংল্যান্ডে। কিন্তু আমার পরিচয়, আমি সবসময় বিশ্বাস করি, আমি বাংলাদেশী, সেটাই প্রথমে আসে- আমি ব্রিটিশ-বাংলাদেশী.. এজন্য সবসময় রাজনীতিতে একটা আগ্রহ ছিল।”

পারিবারিকভাবেও তাদেরকে সবসময় বাংলাদেশের কথা বলা হয়েছে, জানান তিনি। এছাড়া বিভিন্ন মাধ্যমে তারা দেশের খবরাখবর পাচ্ছেন।

নাদিয়া আলি বলেন, “আমাদের যে বাংলাদেশী মিডিয়া আছে তার মাধ্যমে আমরা আপডেটেড হতে পারছি এবং অনলাইন, সোশ্যাল মিডিয়া ইত্যাদির মাধ্যমে জানতে পারছি।”

“অবশ্যই আমাদের বাবা-মা আত্মীয় স্বজন যখন এক জায়গায় একত্র হচ্ছে ইলেকশন (নির্বাচন) নিয়ে কথা-বার্তা হচ্ছে।”

তরুণ ব্রিটিশ-বাংলাদেশীরা দেশের সম্পর্কে আসলে কতটা জানে?
নাদিয়া আলির কথা বোঝা যায়, তারা দেশের রাজনীতি সম্পর্কে যতটুকু জানেন সেখানে আওয়ামী লীগ ও বিএনপির দুই শীর্ষ নেতার বিষয়ে তারা জানেন। আর রাজনৈতিক পরিবেশ নিয়ে খুব একটা ইতিবাচক ধারণা তাদের মধ্যে নেই।

“আমরা বেশি জানিনা। আমরা জানি যে, শেখ হাসিনা, খালেদা জিয়া নিশ্চিতভাবে খুবই গুরুত্বপূর্ণ। এটাই মূলত যা বাংলাদেশের রাজনীতি সম্পর্কে আমাদের জানা, এবং আমরা জানি যে গণ্ডগোল হয়।”

“আমরা বুঝতে পারি যে এই মুহূর্তে বাংলাদেশে গণতন্ত্র সম্ভবত অস্থিতিশীল এবং বিভিন্ন খবরের মাধ্যমে আমরা সেটা জানতে পারছি,” বলছিলেন মিজ আলি।

ব্রিটিশ-বাংলাদেশীরা কেমন বাংলাদেশ দেখতে চান?
নাদিয়া আলির কথায় উঠে আসে বাংলাদেশ সম্পর্কে তাদের আকাঙ্ক্ষার কথা।

“আমরা দেখতে চাই ন্যায়বিচার, অনুকূল পরিবেশ, সব মিলিয়ে একটি সুন্দর বাংলাদেশ। আমাদের বাংলাদেশ কিন্তু অনেক সমৃদ্ধ, সংস্কৃতিতে সমৃদ্ধ… এখানে প্রচুর সম্ভাবনা, কিন্তু তার সদ্ব্যবহার করা হচ্ছে”।

তিনি বলেন, “আমরা এমন একটা সরকার দেখতে চাই যারা ভিন্নতা আনবে, পরিবর্তন আনবে।”

“আমরা নেতিবাচক কিছু আর দেখতে চাইনা, আমরা ইতিবাচক একটা বার্তা পেতে চাই।”

উদাহরণ হিসেবে বাংলাদেশের ক্রিকেট দলের কথা উল্লেখ করেন নাদিয়া আলী। তিনি বলেন, বাংলাদেশের ক্রিকেটের কথা এখন বিশ্বের সবাই জানে। সূত্র: বিবিসি।