চৌকিতে শুয়ে লতিফ সিদ্দিকীর অনশন

সোমবার, ডিসেম্বর ১৭, ২০১৮

টাঙ্গাইল : গাড়িবহরে হামলার ঘটনায় ওসি’র প্রত্যাহারসহ তিন দফা দাবিতে দ্বিতীয় দিনের মতো অনশন কর্মসূচি করছেন টাঙ্গাইল-৪ (কালিহাতী) আসনের স্বতন্ত্র প্রার্থী লতিফ সিদ্দিকী।

সোমবার টাঙ্গাইল জেলা রিটার্নিং কর্মকর্তা ও জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের সামনে তাঁবু গেড়ে কাঁথা, বালিশ বিছিয়ে দ্বিতীয় দিনের মতো অনশন কর্মসূচি করছেন লতিফ সিদ্দিকী। দাবী আদায় না হওয়া পর্যন্ত তার এই কর্মসূচি অব্যহত থাকবে বলে তার কর্মী সমর্থকরা জানিয়েছেন।

এদিকে সোমবার সকাল থেকেই গুড়ি গুড়ি বৃষ্টি পড়ছে । এ কারণে লতিফ সিদ্দিকীর জন্য একটি চৌকির ব্যবস্থা করা হয়েছে। বর্তমানে তিনি সেখানে শুয়ে আছেন।

এ ব্যাপারে লতিফ সিদ্দিকীর ভাতিজা শাহরিরার সিদ্দিকী সোহাগ বলেন, এই হামলার পর থেকে লতিফ সিদ্দিকী রোববার প্রথমে জেলা রিটার্নিং কর্মকর্তার কার্যালয়ের সামনে অবস্থান করেন।

পরে তিনি ৩ দফা দাবিতে এখন অনশন কর্মসূচি পালন করছেন। দাবি আদায় না হওয়া পর্যন্ত তার কর্মসূচি চলবে। সোমবার দ্বিতীয় দিনের মতো তার কর্মসূচি চলছে। তিনি রোববার সকালে খেয়েছিলেন, এখন পর্যন্ত তিনি কিছুই খান নি।

তিনি আরো বলেন, আমাদের উদ্যোগেই সেখানে একটি তাবু টাঙানো হয়েছে। এর মধ্যেই তিনি অবস্থান করছেন। এ ঘটনায় একটি লিখিত অভিযোগ দেয়া হয়েছে।

লতিফ সিদ্দিকীর দাবিগুলো হলো- কালিহাতীর থানার ওসি মীর মোশারফ হোসেনকে প্রত্যাহার, হামলাকারীদের দ্রুত গ্রেফতার এবং সুষ্ঠু নির্বাচনের লক্ষে শান্তিশৃঙ্খলা বজায় রাখার প্রতিশ্রতি যাতে করে এ ধরনের হামলা ঘটনা আর না ঘটে এজন্য আওয়ামী লীগ প্রার্থী সোহেল হাজারীকে লিখিত দিতে হবে।

লতিফ সিদ্দিকী রোববার অবস্থান কর্মসূচি পালন করলেও তিনি পরে কাঁথা, বালিশ বিছিয়ে শুয়ে অনশন কর্মসূচি পালন করছেন।

সেখানে তিনি সাংবাদিকদের বলেন, আমি রোববার সকালে কালিহাতী উপজেলার গোহালিয়াবাড়ি ইউনিয়নে আমার নির্বাচনী কাজে যাই। প্রথমত সরাতৈল এবং বল্লভবাড়ির মাঝামাঝি এলাকায় আমাদের ওপর ইটপাটকেল নিক্ষেপ করা হয়। পরে আমরা নির্ধারিত কর্মসূচি অনুযায়ী বল্লভবাড়িতে মহির উদ্দিন তালুকদারের বাড়িতে যাই।

সেখানে গোহালিয়াবাড়ি ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান মহির উদ্দিন তালুকদারের সাথে কথা বলার সময় স্থানীয় আওয়ামী লীগের নেতা-কর্মীরা বর্তমান সংসদ সদস্য হাসান ইমাম খানের ইন্দনে হামলা চালানো হয়। হামলাকারীরা লাঠিসোটা দিয়ে ও ইটপাটকেল নিক্ষেপ করে অন্তত চারটি গাড়ি ভাঙচুর করে। এতে আহত হন অন্তত ২০ জন নেতাকর্মী।

সরেজমিন দেখা যায়, লতিফ সিদ্দিকীর শতাধিক কর্মী-সমর্থক সেখানে অবস্থান করছেন। লতিফ সিদ্দিকীকে দেখার জন্য অনেকেই ভিড় করছেন।

এ ব্যাপারে জেলা প্রশাসক শহীদুল ইসলাম সাংবাদিকদের বলেন, এ ব্যাপারে একটি লিখিত অভিযোগ পেয়েছি। তদন্ত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।

লতিফ সিদ্দিকী স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে নির্বাচন করছেন। তিনি আওয়ামী লীগের সভাপতিমন্ডলীর সাবেক সদস্য ও সাবেক মন্ত্রী। লতিফ সিদ্দিকীর পৈত্রিক নিবাস টাঙ্গাইলের কালিহাতী উপজেলার নাগবাড়ী ইউনিয়নের ছাতিহাটী গ্রামে।