৪০০ বছর পর পৃথিবীর কাছে আসা ধূমকেতুটি দেখুন (ভিডিও)

রবিবার, ডিসেম্বর ১৬, ২০১৮

ঢাকা : এই ধূমকেতুটির আবিষ্কার হয়েছিল ১৯৪৮ সালে। জ্যোতির্বিজ্ঞানী কার্ল ভিরটানেন ও তার সহযোগীরা ক্যালিফোর্নিয়ার মাউন্ট হ্যামিলটন পর্যবেক্ষণ কেন্দ্র থেকে প্রথম দেখেছিলেন এই ধূমকেতুটিকে। ওই জ্যোতির্বিজ্ঞানীর নামেই ধূমকেতুটির নাম রাখা হয়েছে ‘ভিরটানেন’।

১৫ ডিসেম্বর, শনিবার আনন্দবাজার পত্রিকার প্রতিবেদন থেকে জানা যায়, ৪০০ বছর পর পৃথিবীর এত কাছে এসেছে ‘ভিরটানেন’ ধূমকেতুটি। আগামীকাল রবিবার পৃথিবীর সবচেয়ে কাছে আসবে ধূমকেতুটি। তখন পৃথিবী থেকে মাত্র ৭০ লাখ মাইল দূরে থাকবে ধূমকেতুটি। চাঁদ যতটা দূরে রয়েছে পৃথিবীর, তার চেয়ে ধূমকেতুটি ৩০ গুণ বেশি দূরে থাকবে।

সব ধূমকেতুর মতোই ‘৪৬পি/ ভিরটানেন’ সূর্যকে কেন্দ্র করে নিজের কক্ষপথে ঘুরছে। সূর্যকে এক বার ঘুরতে তার সময় লাগে মোটামুটি সাড়ে পাঁচ বছর। সূর্যকে প্রদক্ষিণ করতে করতেই ধূমকেতুটি এখন এসে পড়েছে পৃথিবীর এত কাছাকাছি; যার জেরে তাকে অনেক বেশি উজ্জ্বল দেখাবে। এই শতাব্দীতে আর কখনো পৃথিবীর এত কাছে আসবে না ধূমকেতুটি। অবশ্য ধূমকেতুটির লেজ দেখা যাবে না। কারণ এটি একটি ছোট ধূমকেতু। ভিরটানেন আমাদের চোখে ধরা দেবে নীল-সবুজ রঙের আগুনের গোলার রঙে।

বিজ্ঞানীরা জানান, আকাশে মেঘ না থাকলে সব দেশ থেকেই দেখা যাবে এই ধূমকেতুকে। খোলা চোখে বোঝা গেলেও বাইনোকুলারে চোখ রাখলে আরও ভালোভাবে বোঝা যাবে তাকে। বিজ্ঞানীরা এখন পর্যন্ত পাঁচ হাজার ২৫৩টি ধূমকেতুর দেখা পেয়েছেন।

যারা এ বছরের সবচেয়ে উজ্জ্বল ধূমকেতু ভিরটানেনকে খালি চোখে দেখার সুযোগ হাতছাড়া করতে চান না, তারা এবার চোখ রাখুন রাতের আকাশে। ‘৪৬পি/ ভিরটানেন’কে দেখা যাবে খালি চোখেই।