জমি নিয়ে বিরোধের জের সংঘর্ষে উভয় পক্ষের আহত ৩

শুক্রবার, ডিসেম্বর ১৪, ২০১৮

ফুলবাড়ী (দিনাজপুর) প্রতিনিধি : দিনাজপুরের ফুলবাড়ীতে জমি নিয়ে বিরোধের জেরধরে উভয় পক্ষের এক তিনজন আহত হয়েছে। গত বৃহস্পতিবার বিকালে উপজেলার বেতদিঘী ইউনিয়নের মাদিলা হাট সরকারী প্রথমিক বিদ্যালয়ের সন্নিকটে সৈয়দপুর গ্রামে এই সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে।

আহতরা হলেন সৈয়দপুর গ্রামের আব্দুল আজিজ এর ছেলে হোমিও চিকিৎসক সোলায়মান হোসেন (৪২) একই এলাকার ছমির উদ্দিনের ছেলে শরিফুল (৩৫) ও ছমির উদ্দিনের মেয়ে নুরুজ্জামানের স্ত্রী তহছেনা বেগম (৪৫)। বর্তমানে আহতরা সকলে ফুলবাড়ী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন রয়েছে।

এলাকাবাসীদের সাথে কথা বলে জানাগেছে, হোমিও চিকিৎসক সোলায়মান, তার ক্রয়কৃত জমিতে পাকা ঘর নির্মান করতে গেলে, একই এলাকার ছমির উদ্দিনের ছেলে মেয়ে বাধা দেয়। এতেকরে উভায় পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ বাধে।

হোমিও চিকিৎসক সোলায়মান বলেন, সৈয়দপুর মৌজার ১২৮০ দাগে সাড়ে ১০ শতাংশ জমি, ওই জমির মালিক লতিফন বিবির দুই মেয়ের নিকট খরিদ করে দখল ভোগ করে আসছেন, সেই জমিতে ঘর নির্মান করতে গেলে ছমির উদ্দিনের ছেলে মেয়েরা তার উপর হামলা করে নির্মানাধীন ঘর ভেঙ্গে গুড়িয়ে দেয়।

এদিকে ছমির উদ্দিনের দাবী বিরোধীয় জমি পীর স্থান ও ওই পীরস্থান জমির মোতোয়ালী হিসেবে তার পিতা মালিক ছিলেন, তিনি ওয়ারীশ সুত্রে প্রাপ্ত। সেই সুত্রধরে তার নামে মাঠ পর্চা হয়েছে বলে তিনি দাবী করেন।

ছমির উদ্দিন আরো বলেন, সোলাইমান হোসেন পীরস্থানের জমি দখল করে মার্কেট নির্মান করতে গেলে তাকে বাধা দেয়া হয়েছে।

অপরদিকে একই জমির অপর ওয়ারীশ আব্দুর রশিদ বলেন, সৈয়দপুর মৌজার ১২৮০ দাগের ৬২ শতাংশ জমির মুল মালিক ছিলেন নুটু মন্ডল। নুটু মন্ডরের মৃত্যুরপর তার দুই ছেলে জহির উদ্দিন মন্ডল ও খাতের মামুদ মন্ডল শরিক হন, কিন্তু দির্ঘ সময় ওই জমির খাজনা পরিষদ না করায়, ১৯৬৬ সালে জমিটি নীলাম হয়ে যায়।

নীলামের মাধ্যমে আব্দুর রহমানের স্ত্রী লতিফন বিবি ওই জমির মালিক হন। এরপর তিনিসহ সকলে লতিফন বিবির নিকট খরিদ করে ভোগ দখল করে আসছেন।

লতিফন বিবির মৃত্যুরপর, লতিফন বিবির বাকি অংশ লতিফন বিবির দুই মেয়ের নিকট খরিদ করেছেন হোমিও চিকিৎসক সোলায়মান হোসেন বলে তিনি জানান। । এ ঘটনায় দুই পক্ষই মামলার প্র¯‘তি নি”েছন বলে জানাগেছে।