দেশের উন্নয়নের স্বার্থে নৌকা মার্কাকে আবারো ক্ষমতায় আনবে জনগন

বৃহস্পতিবার, ডিসেম্বর ১৩, ২০১৮

এম ওসমান, বেনাপোল প্রতিনিধি : সংসদ সদস্য আলহাজ শেখ আফিল উদ্দিন বলেছেন, বিএনপি দুর্নীতি ও সন্ত্রাসের অন্যতম পৃষ্ঠপোষক। দলীয় গঠনতন্ত্র থেকে ৭ ধারা তুলে দিয়ে দলটি আত্মস্বীকৃত দুর্নীতিবাজ দল হিসেবে আত্মপ্রকাশ করেছে। দলটি শুধু দুর্নীতিবাজদের পৃষ্ঠপোষক করে না, তারা স্বাধীনতা বিরোধী ও জঙ্গিবাদেরও পৃষ্ঠপোষকতা করছে।

তিনি আরও বলেন, বিএনপির অপরাজনীতির কারণে জনগণ এখন তাদের ওপর থেকে মুখ ফিরিয়ে নিয়েছে। তাই জনগণকেই এখন সিদ্ধান্ত নিতে হবে তারা কাদেরকে ক্ষমতায় রাখবে। যারা মানুষ মারে তাদেরকে, নাকি যারা দেশের উন্নয়ন করছে তাদেরকে।

একাদশ জাতীয় নির্বাচনকে সামনে রেখে বৃহস্পতিবার প্রচার প্রচারনা ও গন সংযোগের ৩য় দিনে শার্শার ৬নং গোগা ইউনিয়নের বিভিন্ন হাট বাজার গ্রাম গঞ্জে’র পথসভায় তিনি এ কথা বলেন।

তিনি আরো বলেন, ব্যক্তি স্বার্থের রাজনীতি দেশ ও জনগনকে কিছু দিতে পারেনা। বিএনপি- জামায়াতের দুঃশাসনের প্রতি ইঙ্গিত করে তিনি বলেন, ‘ব্যাক্তি স্বার্থে যে রাজনীতি, সে রাজনীতি কখনও জনগণ ও দেশকে কিছু দিতে পারে না। ইতিহাস তাদের ক্ষমা করবে না। তাই বিএনপি’র প্রতি জনগনের কোনো আস্থা নেই।’

তিনি বলেন, ‘এটা প্রমাণিত যে, বিএনপি’র ওপর জনগণের কোন আস্থা ও বিশ্বাস নেই। কারণ তাদের শাসনামলে অর্থাৎ ২০০১-২০০৬ সাল পর্যন্ত মানুষ হত্যা থেকে শুরু করে সীমাহীন দুর্নীতি, সন্ত্রাস ও ধ্বংসাত্মক কর্মকান্ড চলছিল।’

তিনি বলেন, যারা অতীতে লুটপাট করেছে, ভবিষ্যতে ক্ষমতায় আসলে আবারও তারা লুটেপুটেই খাবে এবং শুধু নিজেদের ভাগ্য গড়বে। এ প্রসঙ্গে তিনি বিএনপির বিরুদ্ধে ২০০১ -২০০৬ মেয়াদে আওয়ামী লীগের নেতা কর্মীদের হত্যা, নির্যাতন, বাড়ি ঘর লুটপাট এবং ২০১৩ সালে সন্ত্রাস ও জ্বালাও-পোড়াও এবং নির্বাচন প্রতিহত করার নামে প্রিসাইডিং ও সকারী প্রিসাইডিং অফিসার, বিদ্যুৎ কেন্দ্র পুড়িয়ে দিয়ে সেই আগুনে ফেলে বিদ্যুতের ইঞ্জিনিয়ার হত্যা এবং ২৭ জন আইন-শ্খৃলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যকে হত্যার অভিযোগ করেন।

এ সময় গোগা ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি ও ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুর রসিদের নেতৃত্বে পথসভা ও গনসংযোগকালে আরো উপস্থিত ছিলেন উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি ও উপজেলা চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা সিরাজুল হক মঞ্জু, সাধারন সম্পাদক আলহাজ নুরুজ্জামান, যুগ্ম সাধারন সম্পাদক আলহাজ সালেহ আহমেদ মিন্টু, অধ্যক্ষ ইব্রাহিম খলিল, কোষাধক্ষ আলহাজ ওয়াহিদুজ্জামান ওহিদ, কৃষকলীগের সাধারন সম্পাদক হায়দার আলী গগন, উপজেলা পরিষদের ভাইস চেযারম্যান মেহেদি হাসান, উপজেলা যুবলীগের সাধারন সম্পাদক চেয়ারম্যান সোহারাব হোসেন, ছাত্রলীগের সভাপতি আব্দুর রহিম সরদার, বাহাদুরপুর ইউনিয়ন আওয়ালীগের সাধারন সম্পাদক মফিজুর রহমান প্রমুখ।

এদিকে অব্যাহতভাবে শার্শা ব্যাপী চলছে উপজেলা ব্যাপক প্রচার প্রচারনা। প্রতি ওয়ার্ডে ও গ্রামে গ্রামে আওয়ামীলীগের বিভিন্ন পর্যায়ের নেতা কর্মী সমর্থকরা আ,লীগ সরকারের সাফল্য তুলে ধরে প্রচার প্রচারনা ও গন সংযোগ।

কায়বা ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক শরিফুল ইসলামের নেতৃত্বে কায়বা’র প্রতিটি ওয়ার্ডে চলছে প্রচার প্রচারনা ও গন সংযোগ। ইউপি চেয়ারম্যান হাসান ফিরোজ আহমেদ টিঙ্কু’র বলিষ্ট নেতৃত্বে নৌকার প্রচার এখন তুঙ্গে।

তাদের বলিষ্ট নেতৃত্বে কায়বা’র জনগন এখন নৌকার জয়গানে একাকার। জনগনও তাদের এ প্রচারে একাত্ততা প্রকাশ করছে।