যে গ্রামের প্রত্যেক পুরুষ দু’বার বিয়ে বাধ্যতামূলক

মঙ্গলবার, নভেম্বর ১৩, ২০১৮

ঢাকা : হাতে হাত রেখে পরম ভালোবাসার বন্ধনে জীবন কাটিয়ে দেওয়ার প্রত্যয় নিয়েই দু’জন বিয়ে করেন। পৃথিবীতে বেশীরভাগ দেশের মানুষ জীবনে একবারই বিয়ে করেন। তবে সংসার ভেঙে গেলে দ্বিতীয়বার বিয়ে দোষের কিছু নয়।

কিন্তু এমন কথা কি শুনেছেন কোনো একটি এলাকার সবাই দুই বিয়ে করেন। ভারতের রাজস্থানে একটি গ্রামে এই রীতি প্রচলিত বহু দিন ধরে।

ভারত-পাকিস্তান সীমান্তের কাছের দেরাসর গ্রামটিতে প্রত্যেক পুরুষেরই দু’বার বিয়ে বাধ্যতামূলক। কিন্তু, তাতে কোনো সামাজিক বা আইনগত সমস্যা হয় না এই গ্রামে।

কিন্ত কেন? দেখে নেওয়া যাক কারণগুলি-

গ্রামে প্রায় ৬০০ মানুষের বাস। গ্রামটি মূলত মুসলিম অধ্যুষিত। রয়েছে কম বেশি ৭০টি পরিবার।

গ্রামবাসীদের দাবি, প্রত্যেক পরিবারই নাকি বংশ পরম্পরাগতভাবে বিয়ে নিয়ে এই রীতি মেনে আসছে।

এক প্রকার জোর করেই ছেলেদের দ্বিতীয়বার বিয়ে দিতে বাধ্য করে তাদের পরিবার।

গ্রামবাসীদের দাবি, আগে গ্রামে যত জন পুরুষ বিয়ে করতেন, তাঁদের কারওরই প্রথম পক্ষের স্ত্রী-র সন্তান হত না। তাই দ্বিতীয় বার বিয়ে করতে হত। সেই দ্বিতীয় পক্ষের স্ত্রীর গর্ভে নাকি সন্তান আসত।

বহুকাল ধরে এমন ঘটনাই ঘটছে। তার পর সেটাকেই রীতি হিসেবে মেনে নেন গ্রামবাসীরা।

এখনও নাকি এমন ঘটনাই ঘটে চলেছে গ্রামটিতে। যদিও এই ঘটনার কোনও ব্যাখ্যা দিতে পারেননি কেউই। গ্রামবাসীদের কথায়, প্রথমবার বিয়ের পর অনেকেই দীর্ঘকাল সন্তানের জন্য অপেক্ষা করেছেন, এ রকম উদাহরণ প্রচুর রয়েছে।

দ্বিতীয় বার বিয়ে করাটাকে তাই এই গ্রামে শুভ বলেই মনে করা হয়।