‘রাজনৈতিক প্রতিহিংসায়’ চিকিৎসাবঞ্চিত খালেদা জিয়া: ফখরুল

সোমবার, নভেম্বর ১২, ২০১৮

ঢাকা: গুরুত্বর অসুস্থ বিএনপি চেয়ারপারসন ও সাবেক প্রধানমন্ত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে সরকার ‘রাজনৈতিক প্রতিহিংসার’ বশবর্তী হয়ে উন্নত চিকিৎসা থেকে বঞ্চিত রেখেছে বলে অভিযোগ করেছেন দলের মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

তিনি বলেন, ‘আজকে আমরা দেশনেত্রীর সাথে দেখা করতে গিয়েছিলাম। তিনি জানালেন, ৭ দিন যাবত তাঁকে থেরাপি দেয়া হচ্ছে না। অথচ রাষ্ট্রের কাছে তাঁর চিকিৎসা পাওনা। সরকার তাঁকে মৌলিক অধিকার থেকে বঞ্চিত করছে।’

সোমবার (১২ নভেম্বর) রাতে গুলশানে বাংলাদেশ জাতীয় হিন্দু-খ্রিষ্টান-বৌদ্ধ ঐক্যপরিষদের সঙ্গে দলীয় নেতৃবৃন্দের এক মতবিনিময় সভায় তিনি এসব কথা বলেন।

সরকারের সমালোচনা করে মির্জা ফখরুল বলেন, ‘বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়াকে দুটি সাজানো মমালায় সাজা দিয়ে সরকার কারাগারে বন্দি রেখেছে। তাঁর বিরুদ্ধে ২ কোটি টাকার দুর্নীতির অভিযোগ আনা হয়েছে। অথচ ব্যাংকে এর তিনগুণ টাকা জমা আছে।’

তিনি বলেন, ‘এই সরকারের সময়ে হাজার হাজার কোটি টাকা দুর্নীতি হচ্ছে। তার কোনও তদন্ত হয় না, বিচার হয় না। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নামেও ১৫ টি মামলা ছিল। সবগুলো প্রত্যাহার করে নিয়েছে।’

বিরোধীদলের ওপর সরকারের দমন-পীড়নের প্রসঙ্গে টেনে মির্জা ফখরুল বলেন, ‘বিএনপির নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে ৯৩ হাজার মামলায় ২৫ লক্ষের বেশি আসামি করা হয়েছে। এরা কেউ এলাকায় থাকতে পারে না। সবাই পালিয়ে বেড়াচ্ছে। অনেকে ঢাকায় এসে রিকশা চালাচ্ছে। এরই নাম কি গণতন্ত্র? আমরা কি এই গণতন্ত্রের জন্য রক্ত দিয়ে দেশ স্বাধীন করেছিলাম?’

তিনি বলেন, ‘আজকে দেশে গণতন্ত্র অনুপস্থিত। ২০১৪ সালে ভোটারবিহীন নির্বাচনের মাধ্যমে এই সরকার ক্ষমতা দখল করেছে। এখনও সেই ষড়যন্ত্র চলছে।’

বিএনপি মহাসচিব বলেন, ‘হিন্দু- খ্রিষ্টান-বৌদ্ধসহ সকল ধর্মের সাথে বিএনপির সৌহাদ্যপূর্ণ সর্ম্পক। সে সর্ম্পক অটুট রাখতে চাই। আমরা সকল ধর্মের স্বাধীনতায় বিশ্বাস করি। বিএনপি ক্ষমতায় এলে সরকারি ছুটি ৩ দিনসহ তাদের দাবি পূরণ করা হবে।’

মতবিনিময় সভায় আরও বক্তব্য রাখেন, বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায়, ড. আব্দুল মঈন খান, নজরুল ইসলাম খান, বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা বিজন কান্তি সরকার, বিএনপি নেতা অ্যাডভোকেট দীনবন্ধু রায়, গোবিন্দ চন্দ্র প্রমানিক, নৃপেন চন্দ্র সরকার, ড. সোনালী রানী দাশ, ডা. এমকে রায়, বিধান বিহারী গোস্বামী, সুব্রত কুমার দাশ, প্রতিভা, প্রশান্ত হালদার প্রমুখ।