কিশোরগঞ্জে ৬টি উপজেলায় বিদ্যুতায়ন উদ্বোধনে বনাঢ্য র‌্যালী

বৃহস্পতিবার, নভেম্বর ১, ২০১৮

কিশোরগঞ্জ : কিশোরগঞ্জ নতুন জেলা কারাগারসহ ৬টি উপজেলার শতভাগ বিদ্যুতায়নের উদ্বোধন করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। বৃহস্পতিবার (১ নভেম্বর) সকালে গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে জেলা কারাগারসহ কিশোরগঞ্জ সদর, হোসেনপুর, তাড়াইল, বাজিতপুর, ইটনা ও মিঠামইন উপজেলার শতভাগ বিদ্যুতায়নের উদ্বোধন করেন তিনি।

জেলা প্রশাসক মো. সারওয়ার মুর্শেদ চৌধুরীর সভাপতিত্বে জেলা কারাগার উদ্বোধন উপলক্ষে ভিডিও কনফারেন্সে অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) তরফদার মো. আক্তার জামীল, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার নাজমুল ইসলাম, অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট হাবিবুর রহমান, সিভিল সার্জন ডা. মো. হাবিবুর রহমান, জেলা কারাগারের জেল সুপার মো. বজলুর রশীদ, জেলা পরিষদের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা শিবির বিচিত্র বড়ুয়া প্রমুখ কিশোরগঞ্জ জেলা প্রশাসকের কার‌্যালয় প্রান্ত থেকে প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে যুক্ত হন।

কিশোরগঞ্জ গণপূর্ত বিভাগ সূত্রে জানা যায়, ১৯৯৯-২০০০ অর্থ বছরে শহর থেকে প্রায় পাঁচ কিলোমিটার দূরে জেলা সদরের পশ্চিমে মারিয়া ইউনিয়নে ২৮ একর জমি অধিগ্রহণ করা হয় নতুন এ কারাগারের জন্য। ২০১১ সালের জানুয়ারিতে এ কারাগার প্রকল্পের কাজ শুরু হয়। প্রায় সাড়ে ৬৮ কোটি টাকা ব্যয়ে নির্মিত কারাগারটি ১৫শ’ কয়েদির ধারণ ক্ষমতা সম্পন্ন।

এছাড়াও শতভাগ বিদ্যুতায়ন উদ্বোধনে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাগণ স্ব-স্ব উপজেলা থেকে গণভবনে যুক্ত হন।কিশোরগঞ্জ পল্লীবিদ্যুৎ সমিতি সূত্র জানায়, সদর উপজেলায় ২০৯টি গ্রামে ১৬১ কি.মি. বিদ্যুৎ লাইনে ৪০০৩৬টি বিদ্যুৎ মিটার, হোসেনপুর উপজেলায় ১১০ গ্রামে ১২১.২৯ কি.মি. বিদ্যুৎ লাইনে ৩৫১৪৩টি বিদ্যুৎ সংযোগ, তাড়াইল উপজেলায় ১০৮টি গ্রামে ১৪১.৮৬ কি.মি লাইনে ৩২৭১৮টি বিদ্যুৎ সংযোগ, মিঠামইন উপজেলায় ১৪১টি গ্রামে ২২২.৯২ কি.মি. বিদ্যুৎ লাইনে ১৯৩৮৭টি সংযোগ এবং ইটনায় ১১৭টি গ্রামে ৪০১.৯৪ কি.মি. বিদ্যুৎ লাইনে ২৩১৭৪টি বিদ্যুৎ সংযোগ দেওয়া হয়েছে। এসব উপজেলায় ৫৬৫.৩৬ কোটি টাকা ব্যয় হয়েছে।

এসময় জনপ্রতিনিধি, সাংবাদিক, নেতৃস্থানীয় ব্যক্তিবর্গ, মুক্তিযোদ্ধা, স্থানীয় প্রশাসন, বিদ্যুৎ বিতরণী সংস্থার কর্মকর্তাগণ উপস্থিত ছিলেন।