ক্যান্সারের সম্ভাবনা কমায় তুলসি চা

বুধবার, অক্টোবর ১০, ২০১৮

চা অনেকেরই প্রিয় একটি পানীয়। তবে চা কিন্তু ক্যানসারের সম্ভাবনাও কমাতে পারে। তেমনই একটি চা হলো তুলসি গ্রিন টি। এই পাতা শরীর থেকে বিষাক্ত টক্সিন দূর করে। এছাড়াও এতে আছে প্রচুর অ্যান্টি-অক্সিডেন্টস এবং ক্যাফেইন যা শরীরের ইমিউন সিস্টেমকে এনার্জি প্রদান করে।

যেভাবে তৈরি করবেনঃ ১ম ধাপ আপনি কতটুকু চা তৈরি করতে চান সে অনুযায়ী একটি পাত্রে পানি ফুটিয়ে নিন। পানি ফুটানো হয়ে গেলে এবার পাত্রের ঢাকনা বন্ধ করে দিন এবং কিছুক্ষণ অপেক্ষা করুন।

ফুটন্ত পানিতে তুলসি পাতা দিয়ে চা তৈরি করবেন না বা পানিতে তুলসি পাতা দিয়ে ওই পানি ফুটাবেন না তাহলে তুলসি পাতার নিজস্ব গুণাগুণ নষ্ট হয়ে যায়।

২য় ধাপঃ

প্রতিটি কাপে ৪-৫ টি করে তুলসি পাতা রেখে তার মধ্যে গরম পানি ঢেলে নেড়ে নিন। কিছুক্ষণ অপেক্ষা করুন। ব্যস, তৈরি হয়ে গেলো তুলসি চা।
আপনি চাইলে এর সাথে মধু বা চিনি যোগ করতে পারেন। অথবা ঠাণ্ডা তুলসি গ্রিন টি খেতে চাইলে চা পুরোপুরি ঠাণ্ডা করে এতে ২/৩ টি আইস কিউব যোগ করতে পারেন। এর সাথে আরো যোগ করতে পারেন ২/৩ ফোঁটা লেবুর রস।

স্ট্রেস কমাতে সাহায্য করেঃ তুলসি চা শরীরের অতিরিক্ত স্ট্রেস কমাতে সাহায্য করে। এটি স্নায়ুকে নিয়ন্ত্রণ করে রক্ত প্রবাহ স্বাভাবিক রাখে।

কিডনিতে পাথর জমতে বাধা দেয়ঃ তুলসি একটি মুত্রবর্ধক যা কিডনির সমস্যায় খুবই কার্যকর। ইউরিক এসিড কিডনিতে পাথর জমার মূল উপাদান। তুলসি পাতা ইউরিক এসিডকে শরীর থেকে পরিষ্কারভাবে বেরিয়ে যেতে সাহায্য করে।

ক্যানসারের ঝুঁকি কমায়ঃ অক্সিডেশন প্রসেসরের কারণে দেহের কোষ ক্ষতিগ্রস্ত হয়। এগুলো ওরাল বা ব্রেস্ট ক্যানসার সম্ভাবনা বাড়ায়। আর এইসব অক্সিডেশন প্রসেসকে নিয়ন্ত্রণে রাখতে মূখ্য ভূমিকা পালন করে তুলসি গ্রিন টি। এটি ক্যানসার কোষকে দমন করে নতুন রক্ত তৈরিতে সহায়তা করে। এমন কি রেডিয়েশন থেরাপির কারণে যেসব টিস্যু ও কোষ ক্ষতিগ্রস্ত হয় সেগুলোকেও সারিয়ে তুলতে সাহায্য করে তুলসি।